দফতর বণ্টন নিয়ে মধ্যপ্রদেশ বিজেপির কোন্দল, কাঠগড়ায় সিন্ধিয়া

শপথ নিয়েও দপ্তরহীন বসে ২৮ জন বিজেপি বিধায়ক। যদিও কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে সঙ্গে কথা বলতে সম্প্রতি দিল্লি গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান

দফতর বণ্টন নিয়ে মধ্যপ্রদেশ বিজেপির কোন্দল, কাঠগড়ায় সিন্ধিয়া

গত মার্চে কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া।

ভোপাল:

মধ্যপ্রদেশ মন্ত্রিসভার সম্প্রসারণ ঘিরে বিজেপির গোষ্ঠী-কোন্দল প্রকাশ্যে এল। রাজ্যের সাতনার পাঁচ বারের বিজেপি সাংসদ গণেশ সিং দলের অপর সাংসদ জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে কাঠগড়ায় তুলেছেন। তাঁর মদতেই এখনও দপ্তর পাননি শপথ নেওয়া অনেক বিধায়ক। এই অভিযোগ তুলেছেন গণেশ সিং। এই ঢিলেমি নীচুতলায় ভুল বার্তা পাঠাচ্ছে। বৃহস্পতিবার দাবি করেন সেই সাংসদ। রীতিমতো বিবৃতি দিয়ে গণেশ সিং বলেন, "অত্যন্ত বড়মাপের রাজনীতিবিদ জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। রাজ্য রাজনীতিতে তাঁর প্রভাব আছে। সত্যি যদি মন্ত্রিত্বের দপ্তর বণ্টনে তাঁর ইন্ধন থাকে, তাহলে এখন ভাবার সময়। মন্ত্রিসভায় কে, কোন দপ্তর পাবেন, সম্পূর্ণ মুখ্যমন্ত্রীর এক্তিয়ারভুক্ত। সেখানে তৃতীয় কোনও ব্যক্তি ঢুকতে পারেন না।"

ইতিমধ্যে মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে হ্যাটট্রিক করেছেন শিবরাজ সিং চৌহান। রাজ্যকে উন্নয়নের পথে নিয়ে গিয়েছে। তাঁর ওপর আমাদের বিশ্বাস রাখা উচিত। এমনটাও বিবৃতিতে উল্লেখ করেন গণেশ সিং। 

গত মার্চে আস্থা ভোটে জিতে প্রায় ২০ মাস পর মধ্যপ্রদেশে ক্ষমতা দখল করে বিজেপি। তারপর গত ২ জুলাই রাজ্যে দ্বিতীয় দফায় একপ্রস্থ মন্ত্রিসভার সম্প্রসারণ হয়েছে। কিন্তু তারপর থেকে ঝুলে দপ্তর বণ্টন। শপথ নিয়েও দপ্তরহীন বসে ২৮ জন বিজেপি বিধায়ক। যদিও কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে সঙ্গে কথা বলতে সম্প্রতি দিল্লি গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)