“পক্ষপাতদুষ্ট নই, বিজেপি সরকারের সঙ্গেও কাজ করেছি”, NDTV কে বললেন অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়

NDTV কে অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আমি আমার অর্থনৈতিক চিন্তাভাবনায় পক্ষপাতিত্ত্ব করি না। আমরা অনেক রাজ্য সরকারের কাজ করেছি, বেশীরভাগই বিজেপি সরকার”

NDTV কে অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, তাঁর “অর্থনৈতিক ভাবনাচিন্তা” পক্ষপাতদুষ্ট নয়

হাইলাইটস

  • “আমরা যে কোনও সরকারের সঙ্গেই কাজ করি”: অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়
  • তিনি বলেন, “আমরা গুজরাটের দুষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের সঙ্গেও কাজ করেছি”
  • তার কথায়, “তাঁরা প্রমাণ চাইছিলেন, নীতি কার্যকর করেছেন”
নয়াদিল্লি:

নীতির ক্ষেত্রে যাদের দৃষ্টিভঙ্গি আলাদা হতে পারে, তাদের সঙ্গেও কাজ করার ক্ষেত্রে “পেশাদারিত্ব” বজায় রাখার ওপরে জোর দিলেন নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়  (Nobel laureate Abhijit Banerjee) । তাঁর সঙ্গেই অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পান স্ত্রী এস্থার ডাফলো এবং হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মাইকেল ক্রিমার। NDTV কে দেওয়া এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “অর্থনৈতিক ভাবনাচিন্তা”-র ক্ষেত্রে তাঁর সঙ্গী বড় কথা নয়। NDTV কে তিনি বলেন, “অর্থনৈতিক ভাবনাচিন্তার ক্ষেত্রে আমি পক্ষপাতিত্ত্ব করি না। আমরা অনেক রাজ্য সরকারের সঙ্গে কাজ করেছি, তারমধ্যে বেশীরভাগই বিজেপি সরকার। যখন নরেন্দ্র মোদি মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন, সেই সময় আমরা গুজরাটের দুষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের সঙ্গে কাজ করেছি, এবং আমাদের দারুণ অভিজ্ঞতা হয়েছে। আমি বলব, তারা প্রমাণের চাইছিলেন এবং সেই অভিজ্ঞতা থেকে পাওয়া নীতি কার্যকর করেছে”।

“আমার পেশাদারিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন পীযূষ গোয়েল”, NDTV কে বললেন অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়

দেশের গরীব মানুষদের প্রত্যেক ২০ শতাংশ পরিবারকে বাৎসরিক ৭২,০০০ টাকা আয় বা নূন্যতম আয় যোজনা অর্থাৎ ন্যায় (NYAY) প্রকল্প তৈরিতে কংগ্রেসকে সাহায্য করেছিলেন অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। দিল্লিতে NDTV এর সঙ্গে কথা বলার সময় অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “কংগ্রেসের জায়গায় যদি বিজেপি আমায় জিজ্ঞাসা করত, একটি নির্দিষ্ট আয়ের হার কত, তাহলে কি আমি সত্যিটা বলতাম না? আমি তাদের ঠিকটা বলেছিলাম, আমি ইচ্ছুক ছিলাম। একজন পেশাদার হিসেবে, আমি সবার সঙ্গে পেশাদারিত্ব রাখি”। তিনি বলেন, “কোনও অর্থনৈতিক ভাবনাচিন্তা নিয়ে আমি পক্ষপাতদুষ্ট নই”। 

NDTV কে তিনি বলেন, “আমরা বিশেষজ্ঞ, যাঁদের বিশেষ কিছু বলার রয়েছে। তাঁদের নীতির মূল্যায়ন করতে কোনও সরকারের সঙ্গে কাজ করতেই আমাদের কোনও সমস্যা ছিল না।  আমরা সমস্যা সমাধানে গুরুত্ব এবং ইচ্ছের মূল্য দিই”।

অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমালোচনা করায় বিরোধীদের তোপের মুখে পীযূষ গয়াল

অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পাওয়ার জন্য  অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানিয়েছেন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী, এবং স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, তবে কয়েকজন নানা ধরণের মন্তব্য করেছেন। 

একটি সাংবাদিক সম্মেলনে, পীযূষ গোয়েল বলেন, “অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন, আমি তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছি। কিন্তু আপনারা সবাই জানেন, বোঝাপড়াটা কী। তাঁর ভাবনাচিন্তা পুরো বামঘেঁষা। তিনি অকপটে ন্যায় প্রকল্পের প্রশংসা করেছিলেন, তবে ভারতের জনগণ তাঁর চিন্তাভাবনা খারিজ করে দিয়েছে”। 

চলতি বছরে লোকসভা নির্বাচনে ন্যায় প্রকল্পের কথা ইস্তেহারে উল্লেখ করে কংগ্রেস। তবে নির্বাচনে ভরাডুবি হয় কংগ্রেসের। ন্যায় প্রকল্পের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে, নোবেল পুরস্কার পাওয়ার জন্য অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানান কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধি।

অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানিয়েছি, কিন্তু তাঁর তত্ত্বকে ভারতের মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছে: পীযূষ গয়াল

NDTV কে এই নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ বলেন, “ইউপিএ সরকারের শেষদিন পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানগুলি ছিল আক্রমণাত্মক। লম্বা দৌড়ের জন্য এটা সম্ভবত ভাল ধারণা হতে পারে, তবে ছোটো দৌড়ের ক্ষেত্রে, এটা নিয়ে মনক্ষুণ্ণ ছিলেন অনেক ব্যবসায়ী। এখন যেটা হচ্ছে, এই প্রতিষ্ঠানগুলি রয়েছে, তবে তারা আর সিদ্ধান্ত নেয় না”।

অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং এস্থার ডাফলো, দুজনেই আমেরিকার ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অফ টেকলজির অধ্যাপক। এস্থার ডাফলো দ্বিতীয় নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ, ২০০৯-এ অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পান এলিনার ওস্ট্রোম।