দিল্লির কংগ্রেস প্রধানের শপথগ্রহণে উপস্থিত জগদীশ টাইটলার, তৈরি হল বিতর্ক

অনুষ্ঠানের পর শীলা দীক্ষিত জগদীশ টাইটলারের উপস্থিতি নিয়ে বলেন, "কেন তিনি উপস্থিত থাকবেন না, সেটা আমাকে বলুন! ওঁকে এই অনুষ্ঠানে পেয়ে আমরা গর্বিত"। যে মন্তব্যের পরেই তীব্র আক্রমণের সম্মুখীন হন তিনি। 

দিল্লি কংগ্রেসর প্রধান হিসেবে শীলা দীক্ষিতের শপথগ্রহণে উপস্থিত ছিলেন জগদীশ টাইটলার।

হাইলাইটস

  • দিল্লি কংগ্রেসের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নিলেন শীলা দীক্ষিত
  • অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জগদীশ টাইটলার, যা বিতর্কে ঘি ঢালে
  • ৭৪ বছর বয়সী এই বর্ষীয়ান নেতা বসেছিলেন প্রথম সারিতেই।
নিউ দিল্লি:

দিল্লি কংগ্রেসের প্রধান হিসেবে বুধবারই দায়িত্ব নিলেন শীলা দীক্ষিত। সেই অনুষ্ঠানে ১৯৮৪ সালের দাঙ্গার অন্যতম অভিযুক্ত জগদীশ টাইটলারের উপস্থিতি নিয়ে শুরু হল বিতর্ক। অনুষ্ঠানটিতে ৭৪ বছর বয়সী এই বর্ষীয়ান বিতর্কিত রাজনীতিবিদ বসেছিলেন প্রথম সারিতেই। যা দেখে বিরোধীরা ইতিমধ্যেই বলতে শুরু করে দিয়েছে 'কংগ্রেস শিখদের কাটা ঘায়ে নুনের ছিটে দিতে সচেষ্ট হয়ে উঠেছে'।

অনুষ্ঠানের পর শীলা দীক্ষিত জগদীশ টাইটলারের উপস্থিতি নিয়ে বলেন, "কেন তিনি উপস্থিত থাকবেন না, সেটা আমাকে বলুন! ওঁকে এই অনুষ্ঠানে পেয়ে আমরা গর্বিত"। যে মন্তব্যের পরেই তীব্র আক্রমণের সম্মুখীন হন তিনি। 

তোপ দাগেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরসিমরত কৌর বাদলও। বিজেপির এই শরিক নেত্রীর বক্তব্য, " ইন্দিরা গান্ধী থেকে রাজীব গান্ধী হয়ে রাহুল গান্ধী- সেই ট্র‍্যাডিশন সমানে চলছে! এঁদের প্রত্যেকেরই ডানহাত হলেন জগদীশ টাইটলার। দেশের শিখদের প্রতি কংগ্রেসের তরফ থেকে এটি একদম সরাসরি একটি ইঙ্গিত"। অকালি দলের আরেক নেতা মনজিন্দর সিংহ সিরসা বলেন, "এই ঘটনার মাধ্যমে কংগ্রেস একদম স্পষ্ট জানিয়ে দিতে চাইল যে, যে যাই বলুক না কেন, ওদের হাত জগদীশ টাইটলারের মাথার ওপরেই আছে"।