হিন্দু তরুণীকে বিয়ে করতে গিয়ে আদালত চত্বরেই মার খেলেন মুসলমান যুবক

সময় থাকতে থাকতে যুবককে  উদ্ধার করে  পুলিশ। মারধের ঘটনায় কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা শুরু হয়েছে ।

মারধের ঘটনায় কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা শুরু হয়েছে

হাইলাইটস

  • গাজিয়াবাদের আদালতে বিয়ে করতে যান মুসলমান যুবক
  • তাঁকে আক্রমণ করে অতি ডানপন্থী সংগঠনের সদস্যরা
  • আক্রান্ত যুবককে উদ্ধার করে পুলিশ
গাজিয়াবাদ:

আদালত ন্যায় বিচার প্রাপ্তির জায়গা। কিন্ত উত্তরপ্রদেশের  গাজিয়াবাদের একটি আদালতে ঘটল এক ভয়াবহ ঘটনা। হিন্দু তরুণীকে বিয়ে করতে গিয়ে মার খেলেন মুসলমান যুবক। তাও আবার আদালত চত্বরেই। সময় থাকতে থাকতে যুবককে  উদ্ধার করে  পুলিশ। মারধের ঘটনায় কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা শুরু হয়েছে । সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা ছড়ানোর মতো ধারাও দেওয়া হয়েছে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ।                   

যুবকের বাড়ি মধ্যপ্রদেশে। তরুণী থাকেন উত্তর প্রদেশে। দুজনেই নয়ডার একটি সংস্থায় চাকরি করেন। সেই সূত্রেই আলাপ এবং প্রেম। বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন দুজনে। পরিচিতদের ‘ পরামর্শ ’ মেনে নিরাপত্তার খাতিরে নয়ডায় না গিয়ে বিয়ে করতে আসেন গাজিয়াবাদ আদালতে। কিন্তু সেখানেও  সমস্যায় পড়তে হল।

 মারধরের ঘটনা ঘটেছে সোমবার বিকেলে। ইতিমধ্যেই সেই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে ফেসবুকে। তাতে দেখা যাচ্ছ ওই যুবককে ঘিরে ধরে মারধর করা হচ্ছে।   6-7 জন যুবক  বার বার আক্রমণ করছে। আদালত চত্বর হওয়ায় প্রাণে বেঁচে গিয়েছেন আক্রান্ত যুবক।

ঘটনায় জড়িতদের মধ্যে  দুজনকে চিহ্নিত করা গিয়েছে বলে সংবাদ সংস্থা আইএএনএসকে জানিয়েছেন সঞ্জয় পান্ডে নামে এক পুলিশ অফিসার । তাদের নাম  বিনোদ ও নবনীত। বাকিদের চেনার চেষ্টা চলছে। পুলিশের অনুমান এই হামলার পেছনে রয়েছেন কোনও অতি ডানপন্থী সংগঠনের সদস্যরা।       

More News