#MeToo শেষমেশ ইস্তফা দিলেন বিদেশ প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবর

পাল্টা  আইনি পথে হাঁটেন এম জে। মোট 20 জন  অভিযোগকারীর মধ্যে  একজনের নামে মানহানির মামলা  করেছেন এম জে।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS

পাল্টা  আইনি পথে হাঁটেন এম জে।


নিউ দিল্লি: 

হাইলাইটস

  1. এক ডজনেরও বেশি মহিলা এম জে-র বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন
  2. বিদেশ থেকে দেশে ফিরে সব অভিযোগ খারিজ করেছেন আকবর
  3. এখন পদত্যাগ করা উচিত তাই সরে গেলাম জানালেন সদ্য প্রাক্তন মন্ত্রী

শেষমেশ ইস্তফা দিলেন কেন্দ্রীয় বিদেশ প্রতিমন্ত্রী এম জে  আকবর (MJ Akbar)।  মিটু  ( #MeToo) ঘটনা প্রবাহের মাঝে একের পর এক মহিলা সাংবাদিক তাঁর বিরুদ্ধে  অভিযোগ করেন। পাল্টা  আইনি পথে হাঁটেন এম জে। মোট 20 জন  অভিযোগকারীর মধ্যে  একজনের নামে মানহানির মামলা  করেছেন এম জে।   পদত্যাগের কথা  জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগত ভাবে এই সমস্ত অভিযোগের বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ  হয়েছি। আদালতের রায়ের জোরেই আমার বিরুদ্ধে ওঠা  যৌন নির্যাতনের অভিযোগ থেকে মুক্ত হব। তাই  আমার মনে হয় এখন পদে থাকা উচিত  নয়।’

আরও পড়ুন:  #MeToo অভিযোগ, দেশে ফিরে এম জে আকবর বললেন যা বলার পরে বলব                                           

দিন কয়েক আগে মহাত্মা গান্ধির জন্ম দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে  নাইজেরিয়া  গিয়েছিলেন  মন্ত্রী। সেই সময় মহিলা সাংবাদিকদের যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এম জে আকবরের বিরুদ্ধে। আকবেরর বিরুদ্ধে প্রথম অভিযোগ  দায়ের করেন প্রিয়া রামানি। পরে একই রকম অভিযোগ আনেন আরও কয়েকজন মহিলা। দেশে ফিরে  নিজের বক্তব্য জানান এম জে। তিনি বলেন,  

আরও পড়ুন::  #MeToo যৌন হেনস্থার অভিযোগকে মিথ্যা বললেন আকবর, সম্পূর্ণ বক্তব্য পড়ুন

আমার  বিরুদ্ধে  তোলা অশালীন আচরণের অভিযোগ  মিথ্যা। বিদেশে  থাকায় আমি  আগে  জবাব দিতে  পারিনি। কোনও প্রমাণ ছাড়া  মিথ্যা  অভিযোগ করা এখন কিছু মানুষের মধ্যে  সংক্রমণের মতো ছড়িয়েছে। কিন্তু এখন আমি দেশে ফিরে এসেছি। এবার আমার আইনজীবীরা যা করার  করবেন। আর কয়েক মাস বাদে লোকসভা নির্বাচন। তার আগে এমন অভিযোগ উঠল কেন? এর নেপথ্যে  কোনও কারণ আছে কি? উত্তর আপনারাই দেবেন।

আরও পড়ুন:  #MeToo সাংবাদিক প্রিয়া রামানির বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করলেন আকবর

তাঁর এই বক্তব্য প্রকাশ্যে আঁশে রবিবার। এর পর সোমবার প্রিয়া রামানি নামে এক মহিলা সাংবাদিকের নামে মানহানির  মামলা করেন এমজে। আর  সেটার বিরোধিতায় সরব হওয়ার  শপথ  নিয়েছেন প্রিয়া সহ 20 জন মহিলা সাংবাদিক।   এঁরা সকলেই  সর্বভারতীয় দৈনিক এশিয়ান এজ-এর সঙ্গে  জড়িত। আর ওই সংবাদ পত্রেই টানা দেয় দশক  সম্পাদক হিসেবে কাজ করেছেন এমজে। যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করে ওই মহিলা সাংবাদিকরা জানিয়েছেন,  তাঁরা প্রিয়ার পাশে আছেন। লড়াইয়ের শপথ 20 মহিলা সাংবাদিকের 

এর আগেও তাঁর  পদত্যাগ নিয়ে  জল্পনা হয়েছে। তবে সরকারের তরফ থেকে কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। কিন্তু বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিজেদের প্রতিক্রিয়া জানান। নারী ও সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী  মানেকা  গান্ধি  তদন্তের কথা  বলেন। অন্যদিকে আরেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাম প্রসাদ অটওয়ালে এমজে-র পদত্যাগের পক্ষে সওয়াল করেন। শেষমেশ কেন্দ্রীয়  মন্ত্রীর পদ থেকে  ইস্তফাই দিলেন এম জে।

আরও পড়ুন: #Me too: একা প্রিয়া রামানী নন আকবেরর বিরুদ্ধে আইনি

NDTV থেকে প্রকাশিত কোনও  তথ্য যদি আপনার শেয়ার করতে ইচ্ছা করে, তাহলে দয়া করে মেল করুন worksecure@ndtv.com



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................