শুক্রবারই মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত? তেমনই ইঙ্গিত কংগ্রেসের

"জোটের ক্ষেত্রে কিছু বিষয় নিয়ে এখনও আলোচনা করা হয়নি", সেই আলোচনা অব্যাহত রয়েছে, এনসিপি প্রধান শরদ পওয়ারের বাসভবনে বৈঠকের পর বলল Congress

শুক্রবারই মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত? তেমনই ইঙ্গিত কংগ্রেসের

Maharashtra: কংগ্রেসের কার্যকরী কমিটি সনিয়া গান্ধির বাসভবনে গিয়ে তাঁর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন

হাইলাইটস

  • সনিয়া গান্ধির বাসভবনে গিয়ে তাঁর সঙ্গে বৈঠক করেন কংগ্রেসের কার্যকরী কমিটি
  • খুব তাড়াতাড়ি মহারাষ্ট্রে সরকার গঠন করা হবে, ইঙ্গিত কংগ্রেস
  • কংগ্রেস, এনসিপি এবং শিবসেনা মিলে নূন্যতম অভিন্ন কর্মসূচিতে একমত হয়েছে
নয়া দিল্লি:

শিবসেনা-এনসিপির সঙ্গেই জোট বাঁধতে চলেছে কংগ্রেস, এমনটাই যেন ইঙ্গিত দিল কংগ্রেস। কংগ্রেসের হয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণকারী নেতারা বৃহস্পতিবার সকালে দলনেত্রী সনিয়া গান্ধির বাসভবনে বৈঠক করেছেন। ভারতের সবচেয়ে প্রাচীন রাজনৈতিক দলটির (Congress) পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যে মহারাষ্ট্রে (Maharashtra) শিগগিরই একটি "স্থিতিশীল সরকার" গঠন করা হবে এবং তা নিয়েই আলোচনা চলছে। কংগ্রেসের কার্যকরী কমিটির (সিডব্লিউসি) বৈঠকের পর কংগ্রেস নেতা কেসি ভেনুগোপাল বলেন, "আমি মনে করি আগামিকাল মুম্বইয়ে আমাদের একটি বৈঠক হবে এবং সেখানেই সম্ভবত এ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।" সূত্র বলছে যে সনিয়া গান্ধি এই জোটের বিষয়ে নিমরাজি থাকলেও কংগ্রেসের কার্যকরী কমিটির পক্ষ থেকে তাঁকে (Sonia Gandhi) মহারাষ্ট্রে ওই জোট গঠনের ক্ষেত্রে "অগ্রসর হওয়ার" পরামর্শই দেওয়া হয়েছিল এবং বলা হয়েছে যে "সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য বৃহত্তর শত্রু হ'ল বিজেপি"। তবে এ নিয়ে চূড়ান্ত আলোচনা হতে পারে মুম্বইয়ে।

“দ্রুত মহারাষ্ট্রে স্থায়ী সরকার”, শরদ পাওয়ারের সঙ্গে বৈঠকের পর জানাল কংগ্রেস

"জোটের ক্ষেত্রে কিছু বিষয় নিয়ে এখনও আলোচনা করা হয়নি", সেই আলোচনা অব্যাহত রয়েছে, এনসিপি (NCP) প্রধান শরদ পওয়ারের বাসভবনে বৈঠকের পর বলল কংগ্রেস।

"শিবসেনা, এনসিপি এবং কংগ্রেস ছাড়া মহারাষ্ট্রে কোনও সরকার গঠন হতে পারে না। আমরা মতভেদ দূর করার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করছি",কংগ্রেস নেতা পৃথ্বীরাজ চবনকে সঙ্গে নিয়ে সংবাদমাধ্যমকে উদ্দেশ্য করে বলেন এনসিপি নেতা নবাব মালিক। সূত্র মারফৎ খবর, তিনটি দলই একটি নূন্যতম অভিন্ন কর্মসূচি নিয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তবে ক্ষমতা ভাগাভাগির শর্তগুলিতে এখনও একমত হয়নি তাঁরা।

মহারাষ্ট্র নিয়ে আরও আলোচনা প্রয়োজন, সনিয়া গান্ধির সঙ্গে বৈঠকের পর বললেন শরদ পাওয়ার

মহারাষ্ট্রের কৃষক দুর্দশা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ার বৈঠক করার পরেই পাওয়ারের সঙ্গে বৈঠকে বসে কংগ্রেস। 

মহারাষ্ট্রের বাতাসে গুঞ্জন যে বিজেপি এখনও মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের আশা ছাড়েনি, তাঁরা তলে তলে যোগাযোগ রেখে চলেছে এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ারের সঙ্গে। কেননা মহারাষ্ট্রে শিবসেনার থেকে মাত্র ২টো আসন কম পায় ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি। সেক্ষেত্রে এনসিপির সমর্থন পেলেও সরকার গঠন করতে পারবে বিজেপি। প্রয়োজনে মুখ্যমন্ত্রী পদ শরদ পাওয়ারকে দেওয়ারও ভাবনাচিন্তা করছে বিজেপি। এই খবরটি বাতাসে ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই এনসিপি প্রধানের সঙ্গে আলাদাভাবে বৈঠক করার জন্যে উদগ্রীব হয়ে পড়ে হাতের দল।

ওদিকে শিবসেনা-কংগ্রেস-এনসিপির মধ্যে যে আলোচনা হয়েছে তাতে জানা যাচ্ছে যে, মুখ্যমন্ত্রী পদটি শিবসেনা ও এনসিপির মধ্যে ভাগাভাগি করা হতে পারে। এদিকে কংগ্রেসের সঙ্গে ভাগাভাগি করা হবে উপ মুখ্যমন্ত্রীর পদও।

শিবসেনার সাংসদ সঞ্জয় রাউত বুধবার বলেন যে "সমস্ত বাধা মিটে গেছে" এবং "দুই থেকে পাঁচ" দিনের মধ্যে সরকার গঠন নিয়ে স্থির সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে ।

তিনি সংবাদসংস্থা এএনআইকে বলেন, "যখন তিনটি দল একসঙ্গে হয়ে সরকার গঠন করে, তখন প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে একটু সময় লাগেই। আজ থেকে এই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আগামী দু-পাঁচ দিনের মধ্যেই, প্রক্রিয়াটি শেষ হলে মহারাষ্ট্রে সরকার গঠন করা হবে"।

More News