অমিত শাহর রোড শো ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা, পুড়ল বাইক, কলেজে ভাঙচুরের অভিযোগ

কলকাতা  বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে বিদ্যাসাগর কলেজে সংঘর্ষ হয়। পড়ূয়াদের দাবি কলেজের  ভেতর স্বামী বিবেকানন্দর মূর্তি ছিল সেটি ভেঙে দেওয়া হয়েছে।

অমিত শাহর রোড শো ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা, পুড়ল বাইক, কলেজে ভাঙচুরের অভিযোগ

হাইলাইটস

  • শিক্ষামন্ত্রীকে ঘটনাস্থলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী
  • বিদ্যাসাগরের নামাঙ্কিত কলেজে হামলার থেকে বড় অপমান আর হয় নাঃ পার্থ
  • তৃণমূলের তরফেই আগে গোলমাল করা হয় অভিযোগ বিজেপির
কলকাতা:

বিজেপি সভাপতি (BJP President Amit Shah) অমিত শাহর রোড শো ঘিরে  উত্তেজনা  ছড়িয়ে পড়ল।  কলকাতা  বিশ্ববিদ্যালয় (University Of Calcutta ) থেকে শুরু করে বিদ্যাসাগর কলেজে  সংঘর্ষ হয়। পড়ূয়াদের দাবি কলেজের  ভেতর বিদ্যাসাগররে  মূর্তি ছিল সেটি ভেঙে দেওয়া হয়েছে। ঠিক  কী হয়েছে জানতে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ঘটনাস্থলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার আগে  তিনি জানান বিদ্যাসাগরের নামাঙ্কিত কলেজে হামলা  চলেছে। বাংলাকে এর থেকে বেশি আর কোনও ভাবে অপমান করা যাবে না। এই বিজেপি আবার  নিজেদের দেশপ্রেমিক বলে দাবি করে। এই অপমান বাংলার মানুষ  ভুলবে না। এর বিরোধিতায় যা যা করতে হয় আমরা  করব। যত দূর যেতে  হয় যাব।

পাশাপাশি  বিদ্যাসাগর কলেজের বাইরে কয়েকটি মোটর বাইকে আগুন  ধরিয়ে  দেওয়া  হয়। পাল্টা  বি জেপির দাবি প্রথমে তৃণমূলই হামলা চালিয়েছে। বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ সংবাদ মাধ্যমে  দাবি করেন রোড শোয়ের উপর পরপর হামলা হয়।  আর তার কারণেই গোলমাল বেঁধে যায়। পাশাপাশি তাঁর অভিযোগ পুলিশ তাঁকে স্বামী বিবেকানন্দর বাড়িতে যেতে  দেয়নি অন্যদিকে পাঠিয়ে দিয়েছে।

 বিকেলে নির্ধারিত সময়ে শুরু হয় রোড শো। ধর্মতলা থেকে কলেজ স্ট্রিট হয়ে বিবেকানন্দ রোডে স্বামী বিবেকানন্দর বাড়িতে আসার কথা ছিল। কিন্তু এই কর্মসূচিকে  ঘিরে গোলমাল বড় আকার ধারন করে। প্রথমে কলকাতা  বিশ্ববিদ্যালয়ে গোলমাল  শুরু হয়।  

বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটের সামনে বেশ কয়েকজন ছাত্র জড়ো  হয়ে যান। তাঁদের হাতে  থাকা পোস্টারে  লেখা ছিল গো ব্যাক। পাল্টা ট্রাম রাস্তায় জড়ো হতে থাকেন বিজেপি সমর্থকরা। তাদের তরফে সমস্তরকম ভাবে চেষ্টা করেন যাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলমাল অমিতের নজরে না আসে।