করোনাভাইরাস কি বায়ুর মাধ্যমে ছড়ায়? প্রশ্ন করলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, কী উত্তর দিল WHO?

WHO-এর চিকিৎসকরা আরও জানান যে, নাক দিয়ে জল পড়া করোনাভাইরাসের লক্ষণ নয়। চিনে ৯০ শতাংশ মানুষের মধ্যে দেখা যায় যে যাদেরই উপর এই ভাইরাসের হামলা হয়েছে তাদের সর্দির সঙ্গে প্রচণ্ড জ্বর এবং শুকনো কাশি হয়েছে।

করোনাভাইরাস কি বায়ুর মাধ্যমে ছড়ায়? প্রশ্ন করলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, কী উত্তর দিল WHO?

ডাক্তারদের সরাসরি প্রশ্ন করলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া

হাইলাইটস

  • প্রিয়াঙ্কা চোপড়া সম্প্রতি WHO-এর চিকিৎসকদের সঙ্গে ইনস্টাগ্রাম লাইভ করেন
  • প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার ৪৫ মিনিটের এই সেশনে অংশ নিয়েছিলেন ৪৫ হাজার অনুরাগী।
  • করোনাভাইরাস এই মধ্যেই এখনও পর্যন্ত দেশে ১১ জনের প্রাণ নিয়েছে।
নয়াদিল্লি:

বিশ্বজুড়ে ত্রাসের একটাই নাম এখন, করোনাভাইরাস (Coronavirus)। এই মারণভাইরাসের প্রভাব রুখতে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে প্রধানমন্ত্রী মোদি ভারতবর্ষে ২১ দিনের জাতীয় লকডাউন ঘোষণা করেছেন। করোনাভাইরাস এই মধ্যেই এখনও পর্যন্ত দেশে ১১ জনের প্রাণ নিয়েছে। সম্প্রতি অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া (Priyanka Chopra) করোনাভাইরাস (Covid-19) নিয়ে মানুষের মনে থাকা নানা প্রশ্ন ও ভ্রান্তি দূরের একটি প্রয়াস করেন। প্রিয়াঙ্কা চোপড়া সম্প্রতি তার স্বামী নিক জোনাসের সঙ্গে WHO-এর চিকিৎসকদের সঙ্গে নিয়ে ইন্সটাগ্রাম লাইভ করেন। এই লাইভ সেশনে প্রিয়াঙ্কা তার অনুরাগীদের মধ্যে থাকা আসা নানা প্রশ্ন করেন চিকিৎসকদের। চিকিৎসকরাও মানুষের মধ্যেকার ভুল ধারণা ও গুজব সম্পর্কে সচেতন করে যথাসম্ভব উত্তর দেন। 

প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার ৪৫ মিনিটের এই সেশনে অংশ নিয়েছিলেন ৪৫ হাজার অনুরাগী। এই সময়ই প্রিয়াঙ্কা চোপড়া WHO-এর চিকিৎসক ডাঃ টেডরস এবং ডাঃ মারিয়া ভ্যান কেরখোভকে প্রশ্ন করেন করোনাভাইরাস কি আদৌ বায়ুর মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে পারে? এই চিকিৎসকরা জবাবে বলেন, “এই ভাইরাস কোনও বায়ুবাহিত ভাইরাস নয়। কেবলমাত্র যদি আক্রান্ত ব্যক্তি হাঁচেন বা কাশেন, আর সেই সময় তার মুখ থেকে যে থুতু বা জল ছিটকে আসে তাহলে তার মাধ্যমেই এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে। করোনাভাইরাস খাবার মাধ্যমেও সংক্রামিত হয় না। যদি আপনি নিজের হাত স্যানিটাইজার বা সাবান দিয়েই ভালো করে পরিষ্কার করেন, তারপরে আপনি যদি সেই জায়গাগুলিও ছোঁন যেখানে এই থুতু ছিটকে এসেছে তাও ভাইরাসের প্রভাব বেশ কমই হচ্ছে।”

হু-এর চিকিৎসকরা আরও জানান যে, নাক দিয়ে জল পড়া করোনাভাইরাসের লক্ষণ নয়। চিনে ৯০ শতাংশ মানুষের মধ্যে দেখা যায় যে যাদেরই উপর এই ভাইরাসের হামলা হয়েছে তাদের সর্দির সঙ্গে প্রচণ্ড জ্বর এবং শুকনো কাশি হয়েছে। ভারতবর্ষে এই মুহূর্তে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬২। মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের।