INX Media Money Laundering: অস্বস্তির মুখে চিদাম্বরম, তাঁর পিটিশনকে ‘নিষ্ফল’ বলল সুপ্রিম কোর্ট

আদালত পি চিদাম্বরম (P Chidambaram)-এর আইনজীবী কপিল সিব্বালকে জানিয়ে দিল পিটিশন তালিকাভুক্ত হবে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ-এর নির্দেশ পাওয়ার পর।

INX Media Money Laundering: অস্বস্তির মুখে চিদাম্বরম, তাঁর পিটিশনকে ‘নিষ্ফল’ বলল সুপ্রিম কোর্ট

P Chidambaram arrest case: সোমবারই চিদাম্বরমের পাঁচ দিনের সিবিআই হেফাজতে থাকার মেয়াদ শেষ হচ্ছে।

নয়াদিল্লি:

প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরম (P Chidambaram) আইএনএক্স মিডিয়া অর্থ তছরুপ ও দুর্নীতির (INX Media money-laundering and corruption cases) মামলায় গত বুধবার গ্রেফতার হয়েছিলেন দুর্নীতির অভিযোগে। সোমবার সুপ্রিম কোর্টে (Supreme Court) শুনানি ছিল তাঁর। শীর্ষ আদালতে পরপর বাধার মুখে পড়তে হল তাঁকে। সিবিআই (CBI) হেফাজতে তাঁকে রাখার বিরুদ্ধে পিটিশন জমা দিয়েছিলেন তিনি (Chidambaram)। কিন্তু আদালত তাঁর আইনজীবী কপিল সিব্বালকে জানিয়ে দিল পিটিশন তালিকাভুক্ত হবে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ-এর নির্দেশ পাওয়ার পর। সিবিআইয়ের গ্রেফতারি থেকে রেহাই পেতে আবেদন করেছিলেন চিদাম্বরম। গত বুধবার দায়ের করা ওই আবেদনের প্রেক্ষিতে সোমবার সুপ্রিম কোর্ট জানাল তাঁর আবেদন ‘নিষ্ফল', কেননা তাঁকে এর মধ্যেই গ্রেফতার করা হয়েছে। এখন আদালতে ইডির গ্রেফতারি থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য দাখিল করা পিটিশনের শুনানি চলছে।

কংগ্রেসের এই প্রবীণ নেতা দিল্লি হাইকোর্টের আদেশকে চ্যালেঞ্জ করেছিলেন। ওই আবেদনে তিনি আইএনএক্স মিডিয়া দুর্নীতি মামলায় সোমবার পর্যন্ত তাকে সিবিআই হেফাজতে পাঠানোর আদালতের আদেশ চ্যালেঞ্জ করেছিলেন। শুক্রবার, এনফোর্সমেন্ট অধিদপ্তরের দায়ের করা অর্থ তছরুপের মামলায় শীর্ষ আদালত পি চিদাম্বরমকে সোমবার পর্যন্ত সিবিআই হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে। পি চিদাম্বরমের আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত তদন্তকারী সংস্থার কাছে জবাব চেয়েছে এবং সংক্রান্ত তিনটি মামলাই সোমবার তালিকাভুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।

সোমবারই চিদাম্বরমের পাঁচ দিনের সিবিআই হেফাজতে থাকার মেয়াদ শেষ হচ্ছে। সিবিআই বিশেষ আদালতে তাঁকে হেফাজতে রাখার মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করবে। সূত্রানুসারে, সিবিআই গত চার ঘণ্টায় চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে পাওয়া নতুন প্রমাণ পেশ করবে।

"পিটার বা ইন্দ্রাণী মুখার্জীর সঙ্গে দেখাই হয়নি":বললেন কার্তি চিদাম্বরম

পি চিদাম্বরমের যুক্তি ছিল, সংবিধানের ২১ অনুচ্ছেদের অধীনে তার মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করা হচ্ছে। হাইকোর্টের আদেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে তাঁর আবেদনের শুনানি হয়নি উচ্চ আদালতে ২০ অগাস্ট। ২১ অগাস্ট তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তিনি অবশ্য তাঁর বিরুদ্ধে আসা সমস্ত অভিযোগই অস্বীকার করেছেন।

সলিসিটার জেনারেল তুষার মেহতা, এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টররেটের উপস্থিতিতে বলেছিলেন যে, পি চিদাম্বরম এবং তার দলের সহকর্মীরা প্রচুর ঝামেলা করলেও এবং রাজনৈতিক প্রতিহিংসার অভিযোগ করেলেও “আমি অত্যন্ত দায়বদ্ধতার সাথে বলছি যে এটি একটি বিশাল পরিমাণ অর্থ তছরুপেরই বিষয়।”

P Chidambaram Arrest: পি চিদাম্বরমকে সোমবার পর্যন্ত সিবিআই হেফাজতে রাখার নির্দেশ আদালতের

“সিবিআই (আইএনএক্স মিডিয়ার সহ-প্রতিষ্ঠাতা) ইন্দ্রাণী মুখার্জির বিবৃতি রেকর্ড করেছে, যা বিচারের সময় পরীক্ষা করা হবে যে, তিনি এবং তাঁর স্বামী পিটার এফআইপিবির (বিদেশি বিনিয়োগ প্রচার বোর্ড) অনুমোদনের জন্য চিদাম্বরমের কাছে গিয়েছিলেন এবং পি চিদাম্বরম ছিলেন তাদেরকে ছেলের দেখাশোনা করতে বলেছিলেন”, যুক্তির লড়াইয়ে বলেন তুষার মেহতা।

আইএনএক্স মিডিয়া গ্রুপকে ২০০৭ সালে ৩৫০ কোটি টাকার বিদেশি তহবিল পাইয়ে দেওয়ার জন্য বিদেশি বিনিয়োগ প্রচার বোর্ডের ছাড়পত্রে অনিয়মের অভিযোগ উঠিয়ে সিবিআই প্রথম ১৫ মে ২০১৭ সালে একটি এফআইআর নথিভুক্ত করে। ২০০৭ সালে এই দুর্নীতির সময়ে পি চিদাম্বরম ছিলেন অর্থমন্ত্রী। তারপরে, এনফোর্সমেন্ট অধিদফতর একই বছরে অর্থ-তছরুপের মামলা করে।

পি চিদাম্বরমকে গত বুধবার রাতে তার দক্ষিণ দিল্লির বাড়ি থেকে নাটকীয়ভাবে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। সিবিআই আধিকারিকরা বাড়ির পাঁচিল টপকে ভেতরে ঢুকে গ্রেপ্তার করেন প্রাক্তন মন্ত্রীকে। শুক্রবার আদালতেও তোলা হয় তাঁকে, সেখানেই চিদাম্বরমকে সোমবার পর্যন্ত সিবিআই হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়।

More News