গাড়ি শিল্পের মন্দার জন্য নতুন প্রজন্মকে দায়ী করে সমালোচিত অর্থমন্ত্রী

অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের (Nirmala Sitharaman) এহেন মন্তব্যের পর ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

গাড়ি শিল্পের মন্দার জন্য নতুন প্রজন্মকে দায়ী করে সমালোচিত অর্থমন্ত্রী

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর এই বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছে বিরোধী দল কংগ্রেসও।

নয়াদিল্লি:

নতুন প্রজন্ম গাড়ি কেনার জন্যে মাসে মাসে ইএমআই দেওয়ার বদলে উবের ও ওলা ক্যাবগুলিতেই চড়তে বেশি পছন্দ করছে। দেশের গাড়ি শিল্পের খারাপ অবস্থা (Auto Sector Crisis) প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের (Nirmala Sitharaman) এহেন মন্তব্যের পর ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। বুধবার টুইটার ভেসে যায় এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিক্রিয়ায়। অর্থমন্ত্রীর মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ব্যাঙ্গাত্মক এক হ্যাশট্যাগ #BoycottMillennials দ্রুত শীর্ষ ট্রেন্ড হয়ে যায়। মঙ্গলবার সীতারামন বলেন, নতুন প্রজন্ম গাড়ি কেনার ইএমআই না দিয়ে উবের ও ওলা ক্যাবগুলিতে চড়তেই বেশি পছন্দ করছে। আর এরই প্রভাব পড়েছে দেশের গাড়ি শিল্পে। দু'চাকা ও চার চাকা— দু'ধরনের গাড়িরই বিক্রয় সংখ্যা ব্যাপক হারে কমেছে। ট্রাক নির্মাতা অশোক লেল্যান্ডের বিক্রিও ৭০ শতাংশ কমেছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, কেন্দ্র গাড়ি শিল্পের এই মন্দা দূর করতে সক্রিয় ভাবে প্রচেষ্টা করছে। লক্ষ লক্ষ চাকরি নষ্ট হচ্ছে। বিভিন্ন ক্ষেত্রের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যমে এই ইস্যুর সমাধানে সচেষ্ট তারা।

এই প্রজন্ম গাড়ি কেনার থেকে ওলা-উবের বেশি পছন্দ করে: নির্মলা সীতারামন

"বিশেষত অটোমোবাইল সেক্টর বেশ কয়েকটি জিনিস দ্বারা প্রভাবিত হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে বিএস ৬ (ভারত পর্যায় ৬) আন্দোলন, রেজিস্ট্রেশন ফি ইস্যু যা জুন অবধি পিছিয়ে রয়েছে এবং সহস্রাব্দের মানসিকতা, যাঁরা এখন গাড়ি কেনার জন্যে ইএমআই দেওয়া পছন্দ করছে না, বরং তার বদলে ওলা বা উবের ব্যবহার করতে বা মেট্রো করে যেতে পছন্দ করছে", বলেন নির্মলা সীতারামন।

এই মন্তব্যের পরই টুইটারে শুরু হয় এহেন মন্তব্যের সমালোচনা।

বুধবার এই বিতর্ক দানা ‌বাঁধতেই টুইচারে ট্রেন্ড হয়ে যায়।

প্রায় ৩ কোটিরও বেশি মানুষ যুক্ত যে শিল্পের সঙ্গে সেই গাড়ি শিল্প গত কয়েক মাস ধরেই প্রবল অর্থনৈতিক মন্দার সম্মুখীন হচ্ছে। ক্রমশই কমছে গাড়ি বিক্রি। গত দু'দশকের তুলনায় রাতারাতি নিম্নগামী গাড়ির বিক্রি।

ভারতের সবচেয়ে বড় টু হুইলার নির্মাতা হিরো মোটোকর্প-এর বিক্রি গত মাসের তুলনায় ২০ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। মারুতি সুজুকির বিক্রি কমেছে ৩৪ শতাংশ। অশোক লেল্যান্ডের বিক্রি ৭০ শতাংশ কমেছে। মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মাহিন্দ্রার ক্ষেত্রে বিক্রি কমেছে ৭০ শতাংশ।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর এই বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছে বিরোধী দল কংগ্রেস। তাঁদের কটাক্ষ, তবে কী নির্মলা সীতারামন বাস ও ট্রাক বিক্রি কমার জন্যেও সহস্রাব্দের মানসিকতাকেই দায়ী করতে চাইছেন?