“কাটমানি” নিয়ে লোকসভায় তৃণমূল-লকেট চট্টোপাধ্যায় বাকযুদ্ধ

লোকসভায় লকেট চট্টোপাধ্যায়ের (Locket Chatterjee) মন্তব্য রেকর্ড থেকে বাদ দেওয়ার দাবি তোলেন তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়।

“কাটমানি” নিয়ে লোকসভায় তৃণমূল-লকেট চট্টোপাধ্যায় বাকযুদ্ধ

লোকসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানান বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়

নয়াদিল্লি:

“কাটমানি” (cut money) নিয়ে রাজ্যজুড়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। বিভিন্ন জায়গায় শাসকদলের নেতা, জনপ্রতিনিধিদের ঘিরে বিক্ষোভ হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও “কাটমানি”  নিয়ে ছড়িয়ে পড়েছে নানা ধরণের মিম, মন্তব্য। তারমধ্যে বুধবার “কাটমানি” নিয়ে ঝড় উঠল লোকসভায়। বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ের(Locket Chatterjee) মন্তব্যকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার বেঁধে যায়। লোকসভায় লকেট চট্টোপাধ্যায়ের মন্তব্য রেকর্ড থেকে  বাদ দেওয়ার দাবি তোলেন তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। জিরো আওয়ারে “কাটমানি” (cut money) নিয়ে প্রবল বাকযুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে কেন্দ্র ও রাজ্যের শাসকদল।  “সংসদকে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা করে তুলবেন না”, বাকযুদ্ধে রত বাংলার যুযুধান দুই দলের সাংসদদের সতর্ক করে দেন লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লা।

ক্ষমতায় এসে প্রথমবার তপশিলি জাতি, উপজাতি বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী

রেকর্ড পরীক্ষা করে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন লোকসভার অধ্যক্ষ। ২০২১-এ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে পদ্মফুল ফোটাতে তৎপর গেরুয়া শিবির। তারজন্য ইতিমধ্যেই জোরদার প্রস্তুতি শুরু করেছে তারা। প্রচারের আলোয় আনা হয়েছে “কাটমানি” ইস্যু।

বিভিন্ন সরকারী প্রকল্প সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার বিনিময়ে টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে দলের একাংশের বিরুদ্ধে। সেই “কাটমানি”র বিরুদ্ধেই সরব বিরোধীরা। সম্প্রতি দলের নেতা  জনপ্রতিনিধিদের, সাধারণ মানুষের থেকে আদায় করা কাটমানি ফেরৎ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার লোকসভায় বক্তব্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।

অর্থনৈতিক ভাবে দুর্বল শ্রেণির জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণের ঘোষণা মমতা সরকারের

জিরো আওয়ারে লোকসভায় লকেট চট্টোপাধ্যায়, “জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত কাটমানি আদায় করেছেন তৃণমূল নেতারা। মুখ্যমন্ত্রী স্বীকার করেছেন, তাঁর দলের নেতারা টাকা নিয়েছে, এবং তিনি তা ফেরৎ দিতে বলেছেন। তিনি দলের নেতাদের ২৫ শতাংশ রেখে বাকি, ৭৫ শতাংশ তাঁকে দিতে বলেছেন। ওপর থেকে নীচে পর্যন্ত এরসঙ্গে জড়িত”।