This Article is From Apr 13, 2020

৩০ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউনে তামিলনাডু, দেশের সপ্তম রাজ্য হিসেবে লকডাউন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত

তামিলনাডুকে নিয়ে সাতটি রাজ্য লকডাউনের সময়সীমা বাড়িয়ে দিল। বাকি ছ'টি রাজ্য হল মহারাষ্ট্র, পঞ্জাব, ওড়িশা, রাজস্থান, পশ্চিমবঙ্গ ও তেলেঙ্গানা।

৩০ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউনে তামিলনাডু, দেশের সপ্তম রাজ্য হিসেবে লকডাউন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত

৩০ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত তামিলনাডুর।

হাইলাইটস

  • ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন বাড়াল তামিলনাডু
  • এই নিয়ে সাতটি রাজ্য লকডাউন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিল
  • গত ২৫ মার্চ থেকেই দেশে চলছে সম্পূর্ণ লকডাউন
চেন্নাই:

লকডাউনের (Lockdown) সময়সীমা আরও দু'সপ্তাহ বাড়িয়ে দিল তামিলনাডু (Tamil Nadu)। সোমবার তামিলনাডুর মুখ্যমন্ত্রী কে পালানিস্বামী একথা জানিয়ে বলেন, ৩০ এপ্রিল লকডাউন চলবে রাজ্যে। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ মেনেই এই সিদ্ধান্ত ন‌েওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি। প্রসঙ্গত, গত ২৫ মার্চ থেকেই দেশে চলছে সম্পূর্ণ লকডাউন। যা শেষ হচ্ছে ১৪ এপ্রিল। কিন্তু এরই মধ্যে তামিলনাডুকে নিয়ে সাতটি রাজ্য লকডাউনের সময়সীমা বাড়িয়ে দিল। বাকি ছ'টি রাজ্য হল মহারাষ্ট্র, পঞ্জাব, ওড়িশা, রাজস্থান, পশ্চিমবঙ্গ ও তেলেঙ্গানা। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ১৩টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের ভিডিও বৈঠকেও বহু মুখ্যমন্ত্রীই লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানোর পক্ষে সায় দিয়েছিলেন‌ বলে জানিয়েছেন তামিলনাডুর মুখ্যমন্ত্রী। সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে একথা জানা গিয়েছে।

লকডাউনের মেয়াদবৃদ্ধি নিয়ে আগামীকাল সকাল ১০ টায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন মোদি

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি শনিবারের ওই চার ঘণ্টার বৈঠকে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন কোভিড-১০ সংক্রমণ রুখতে দু'সপ্তাহের জন্য বাড়ানো হতে পারে লকডাউন। বহু মুখ্যমন্ত্রীই তাঁকে লকডাউন সম্প্রসারিত করার অনুরোধ জানানোর পরে একথা জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী জোর দিয়েছেন প্রাণ ও দেশের অর্থনীতি উভয়কেই রক্ষা করার বিষয়ে।

২ ব্যক্তির শরীরে প্রথম দু'বার নেগেটিভ হলেও তৃতীয়বারের পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ!

তিনি জানিয়েছেন, ‘‘আমার প্রথম ভাষণে বলেছিলাম, ‘জান হ্যায় তো জাহান হ্যায় (প্রাণ থাকলে পৃথিবী থাকবে)। এবার আমাদের ভাবতে হবে ‘জান ভি জাহান ভি' (প্রাণও পৃথিবীও)।''

গত ২৪ মার্চ জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী দেশব্যাপী লকডাউনের ঘোষণা করেন।

কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে, লকডাউন না ঘোষিত হলে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বিপুল হারে বেড়ে যেত। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের যুগ্ম সচিব লব আগরওয়াল জান‌িয়েছেন, যদি লকডাউন না হত তাহলে দেশের ৮.২ লক্ষ মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হতেন। তিনি আরও জানিয়েছেন, ৪১ শতাংশ সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার ফলে ১১ এপ্রিল ২.০৮ লক্ষ লোক আক্রান্ত হত। পরে ১৫ এপ্রিল তা বেড়ে দাঁড়াত ৮.২ লক্ষ।

আগামীকাল, মঙ্গলবার সকাল দশটায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধান‌মন্ত্রী।