This Article is From Jul 20, 2020

কোভিড- ১৯ মোকাবিলায় রাজ্যের স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে চূড়ান্ত অব্যবস্থা: বিজেপি

Bengal Coronavirus: বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষ অভিযোগ করেন যে, বিভিন্ন হাসপাতালে করোনা রোগীদের বেড নিয়ে রাজ্য সরকার মিথ্যা খবর ছড়াচ্ছে

কোভিড- ১৯ মোকাবিলায় রাজ্যের স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে চূড়ান্ত অব্যবস্থা: বিজেপি

West Bengal: বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের অভিযোগ, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজ্য সরকার "ব্যর্থ" (ফাইল চিত্র)

হাইলাইটস

  • পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ব্যর্থ রাজ্য সরকার
  • অভিযোগ করলেন রাজ্যের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ
  • করোনা বেডের পরিসংখ্যান নিয়ে ভুয়ো তথ্য দিচ্ছে রাজ্য সরকার, অভিযোগ তাঁর
কলকাতা:

করোনা ভাইরাসের (Bengal Coronavirus) বাড়বাড়ন্তের ফলে তৈরি হওয়া মহামারী রুখতে সবদিক দিয়েই ব্য়র্থ হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার, এমন বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় গুরুতর অব্যবস্থার অভিযোগও তুললেন তিনি (BJP Leader Dilip Ghosh)। দিলীপ ঘোষের দাবি, রাজ্যের (West Bengal) স্বাস্থ্য পরিষেবা এই রোগ নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় সমাধান করতে "ব্যর্থ" হয়েছে। এমনকী তিনি এমন অভিযোগও করেন যে, রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্যে যথেষ্ট বেড বরাদ্দ রয়েছে এবং রোগীরা সহজেই সেই বেড পেয়ে যাচ্ছেন, রাজ্য সরকারের এমন দাবি পুরোপুরি মনগড়া। আসলে পশ্চিমবঙ্গ সরকার করোনা মহামারীকে কার্যকরভাবে মোকাবিলা করতে এবং একে নিয়ন্ত্রণে আনতে কোনওরকম প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি, একথাও বলেন দিলীপ ঘোষ। রাজ্য বিজেপি সভাপতির মতে, "পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য পরিষেবা ব্যবস্থায় প্রচুর অব্যবস্থা রয়েছে, এইভাবে এই রোগকে নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব নয়"। 

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা মৃত্যুর নয়া রেকর্ড, একদিনে মৃত ৩৬ জন রোগী

তবে বিজেপি সাংসদের এই সমস্ত দাবি খারিজ করে দিয়ে রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন যে, পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতি দেশের অন্য অনেক রাজ্যের তুলনায় "বহুগুণ ভালো" অবস্থায় রয়েছে। "ওঁর (দিলীপ ঘোষ) তিন মাসের জন্য গুজরাট সফরে যাওয়া উচিত, তাহলেই আসল পরিস্থিতি কী তা তিনি বুঝতে পারবেন। তিনি ওই রাজ্য থেকে ফিরে এলে আমরা তখন তাঁর বক্তব্য শুনতে চাই", বলেন তিনি।

ঘরে ঘরে নমুনা পরীক্ষায় ইউকে'র অ্যান্টিবডি টেস্ট! ২০ মিনিটে জানা যাবে রেজাল্ট

পশ্চিমবঙ্গে করোনা মহামারী মোকাবিলায় অবশ্য দু'একটি ফাঁক থাকার কথা স্বীকার করে নিয়েও সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, সামগ্রিকভাবে রাজ্যের পক্ষ থেকে কোভিড মোকাবিলায় সবরকম ব্যবস্থাই নেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। পাশাপাশি তিনি এও দাবি করেন যে, করোনার কারণে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্যগুলির মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ কোভিড মহামারী পরিস্থিতি মোকাবিলার ক্ষেত্রে "সেরা"। রাজ্যের মন্ত্রী বলেন, "আমি বলব না যে আমরা দেশের মধ্যে সেরা, তবে অবশ্যই এটা বলবো যে. আমরা সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্যগুলির মধ্যে সেরা।"

এদিকে তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে দলের যুব শাখা সংগঠনের কর্মীদের করোনা ভাইরাসজনিত কারণে সঙ্কটে পড়া মানুষদের সাহায্য করার পরামর্শ দিয়েছেন, তারও সমালোচনা করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি কটাক্ষের সুরে বলেন যে, দেখে মনে হচ্ছে ওনার (অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়) যেন হঠাৎ করেই রাজ্যের মানুষকে মনে পড়েছে।

"বিগত চার মাস ধরে উনি (অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়) কোথায় ছিলেন, এখন হঠাৎ কোথা থেকে উঠে এসে রাজ্যের মানুষের জন্যে কাজ করার কথা বলছেন,  ৫ লক্ষ স্বেচ্ছাসেবীর কথা বলছেন", বলেন দিলীপ ঘোষ। তিনি দাবি করেন, করোনা সঙ্কটের সময় বিজেপি কর্মীরা রাজ্যের দুঃস্থ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তাঁদের চাল-ডাল দিয়ে এবং রান্না করা খাবার সরবরাহ করে সাহায্য করেছেন। বিজেপি সভাপতি বলেন, "আমরা ৩৫ লক্ষ মানুষের ঘরে খাদ্যশস্য পৌঁছে দিয়েছি এবং আরও ২০ লক্ষ মানুষের অন্নসংস্থান করেছি।"

বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন যে, রাজ্যের মানুষ বিজেপির কাছ থেকে এই সাহায্য পেয়ে খুশি হয়েছে। এইসব দেখেশুনেই এখন তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপির এই ভালো উদ্যোগগুলো নকল করার চেষ্টা করছে।