This Article is From Jul 08, 2020

আইসিএমআরের নির্দেশিকা মেনেই ডেথ সার্টিফিকেট ইস্যু করতে হবে: রাজ্য সরকার

"সঙ্কটজনক রোগীদের ভেন্টিলেটরে রাখার আগে হাই ফ্লো ন্য়াজাল অক্সিজেন থেরাপি গাইডলাইন অনুসরণ করা উচিত", রাজ্যের কোভিড হাসপাতালকে দেওয়া হল এই নির্দেশও

আইসিএমআরের নির্দেশিকা মেনেই ডেথ সার্টিফিকেট ইস্যু করতে হবে: রাজ্য সরকার

West Bengal: রাজ্যে বর্তমানে কোভিড -১৯ হাসপাতালগুলোতে মোট ৩৯৫ টি ভেন্টিলেটর এবং ৯৪৮ টি আইসিইউ বেড রয়েছে

হাইলাইটস

  • কোভিড হাপাতালগুলোকে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে দেওয়া হল কড়া নির্দেশ
  • আইসিএমআরের গাইডলাইন মেনেই কোভিড রোগীদের ডেথ সার্টিফিকেট ইস্যু করতে হবে
  • রাজ্যের কোভিড হাসপাতালগুলোতে ৩৯৫ টি ভেন্টিলেটর ও ৯৪৮ টি আইসিইউ বেড রয়েছে
কলকাতা:

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চের (ICMR) নির্দেশিকা মেনেই করোনা (Coronavirus) রোগীদের ডেথ সার্টিফিকেট ইস্যু করতে হবে, রাজ্যের (West Bengal) কোভিড হাসপাতালগুলোকে এই পরামর্শই দিল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। পাশাপাশি প্রোটোকল মনিটরিং টিমের পরামর্শ অনুসারে রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর তার নয়া নির্দেশিকায় জানিয়েছে, বিভিন্ন হাসপাতালে অ্যান্টিবায়োটিকের যথেচ্ছ ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। এই নিয়ে তৃতীয়বার রাজ্যের কোভিড হাসপাতালগুলোকে সতর্ক করা হল। সেইসঙ্গে "সঙ্কটজনক রোগীদের ভেন্টিলেটরে রাখার আগে হাই ফ্লো ন্য়াজাল অক্সিজেন থেরাপি গাইডলাইন অনুসরণ করা উচিত", রাজ্যের কোভিড (COVID-19) হাসপাতালকে দেওয়া হল এই নির্দেশও। স্বাস্থ্য দফতরের তরফে এই পরামর্শও দেওয়া হয়েছে যে, যে করোনা রোগীদের শরীরে তীব্র শ্বাসকষ্টের লক্ষণ দেখা দিচ্ছে তাঁদের ক্ষেত্রে দেরি না করে প্রথমেই আইসিইউতে রাখার ব্যবস্থা করতে হবে। তারপরেও যদি স্বাস্থ্যে উন্নতির লক্ষণ দেখা না যায় তবে তাঁদের ক্ষেত্রে ভেন্টিলেটরের সাহায্য নিতে হবে। 

ক্রমশ খারাপ হচ্ছে বাংলার করোনা পরিস্থিতি, একদিনের মধ্যে ২৫ জনের মৃত্যু

পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য দফতরের এক কর্তার মতে, "প্রতিদিন কোভিড -১৯ আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, তাই আমাদের রোগীদের জন্যে সবসময় আইসিইউ এবং ভেন্টিলেটর প্রস্তুত রাখতে হবে। তবে এই মুহূর্তে রাজ্যে যতগুলো ভেন্টিলেটর রয়েছে তা পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্যে পর্যাপ্ত নয়"। স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া তথ্য অনুসারে, বর্তমানে রাজ্যের কোভিড -১৯ হাসপাতালগুলোতে মোট ৩৯৫ টি ভেন্টিলেটর এবং ৯৪৮ টি আইসিইউ বেড রয়েছে।

রাজ্যের প্রথম প্লাজমা ব্যাঙ্কের উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

পাশাপাশি রাজ্যের কোভিড হাসপাতালগুলোতে যথেচ্ছভাবে অ্যান্টিবায়োটিক প্রয়োগ বন্ধের বিষয়েও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যদফতরের ওই কর্তা বলেন, "যেহেতু কোভিড-১৯ একটি ভাইরাল সংক্রমণ, তাই অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার অনেক ভেবেচিন্তে করা উচিত। আমরা যদি নির্বিচারে এবং দীর্ঘ সময়ের জন্যে অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার করি তবে পূর্ব অভিজ্ঞতা অনুযায়ী তা অনেক ক্ষেত্রেই ক্ষতির কারণ হতে পারে"।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ সারা দেশে লাগাতার বেড়ে চলেছে। পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতিও ক্রমেই খারাপ হচ্ছে।রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর তাদের সাম্প্রতিক মেডিক্যাল বুলেটিনে জানিয়েছে যে, সব মিলিয়ে বাংলায় ৮০৭ জনের প্রাণ কেড়েছে কোভিড- ১৯, গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২৫ জনের। শুধু তাই নয়, পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সংক্রমণও। এই নিয়ে পরপর ৩ দিন রাজ্যে একদিনে ৮০০ রও বেশি মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলো, যা চিন্তা বাড়িয়েছে স্বাস্থ্য আধিকারিকদের। রাজ্যের কোভিড বুলেটিনে বলা হয়েছে আরও ৮৩৭ জনের শরীরে নতুন করে করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। সব মিলিয়ে এরাজ্যে এখনও পর্যন্ত ২৩,৮৩৭ জন করোনার কবলে পড়েছেন।