বেশি মাত্রায় সংক্রমিত শহরে উড়ান ১৫ অগস্ট পর্যন্ত স্থগিত রাখার প্রস্তাব রাজ্যের

যে সমস্ত শহরে সংক্রমণ বেশি, এমন ৬টি শহর থেকে এবং সেই অভিমুখে ১৫ অগস্ট পর্যন্ত উড়ান পরিষেবা স্থগিত রাখার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে প্রস্তাব দিল রাজ্য

বেশি মাত্রায় সংক্রমিত শহরে উড়ান ১৫ অগস্ট পর্যন্ত স্থগিত রাখার প্রস্তাব রাজ্যের

এর আগে ৩১ জুলাই পর্যন্ত কলকাতা বিমানবন্দরে কোনও যাত্রীবাহী বিমান অবতরণ করবে না জানানো হয় (প্রতীকি ছবি)

কলকাতা:

করোনা সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে দেশজুড়ে। তাপমধ্যেই নিজেদের সুরক্ষা নিয়ে কাজে বেরোনোর আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। বিভিন্ন জায়গায় দেশীয় উড়ান পরিষেবাও চালু করা হয়েছে। তবে যে সমস্ত শহরগুলিতে সংক্রমণের মাত্রা বেশি, এমন ৬টি শহর থেকে এবং সেই অভিমুখে ১৫ অগস্ট পর্যন্ত উড়ান পরিষেবা স্থগিত রাখার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে প্রস্তাব দিল রাজ্য। তালিকায় রয়েছে দিল্লি, মুম্বই, পুনে, নাগপুর, চেন্নাই এবং আহমেদাবাদ। কলকাতা নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তরফে টুইটে বলা হয়েছে, “১৫ অগস্ট পর্যন্ত দিল্লি, মু্ম্বই, পুনে, চেন্নাই, নাগপুর ও আহমেদাবাদ বিমান পরিষেবা স্থগিত থাকবে”। এর আগে ৩১ জুলাই পর্যন্ত কলকাতা বিমানবন্দরে কোনও যাত্রীবাহী বিমান অবতরণ করবে না জানানো হয়।

এদিকে, ভারতে প্রতিদিনই রেকর্ড হারে করোনা সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। পুরনো সব রেকর্ড ভেঙে এবার দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা ৫০,০০০ ও ছাড়িয়ে গেল। গত ২৪ ঘণ্টায় এদেশে ৫২,১২৩ জন নতুন করে করোনা আক্রান্ত। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের বৃহস্পতিবারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত মোট ১৫,৮৩,৭৯২ লক্ষ মানুষ এই রোগের কবলে পড়েছেন। তবে চিকিৎসা সহায়তায় এদের মধ্যে ১০,২০,৫৮২ জন করোনার প্রভাব কাটিয়ে সুস্থ জীবনে ফিরে গেছেন, বর্তমানে দেশে এই রোগ থেকে পুনরুদ্ধারের হার বেড়ে ৬৪,৪৩ শতাংশ।

বুধবার সারা দিনে মারা গেছেন ৭৭৫ জন করোনা রোগী, ফলে দেশে এপর্যন্ত ৩৪,৯৬৮ জনের প্রাণ কাড়ল করোনা ভাইরাস। কোভিড-১৯ এর বাড়বাড়ন্ত আটকাতে আরও বেশি করে করোনা পরীক্ষার উপর জোর দিয়েছে দেশের সরকার। এই পরীক্ষার ফলাফলে করোনা পজিটিভের হার ১১.৬৭ শতাংশ। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত মোট ১,৮১,৯০,৩৮২ জনের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়েছে। শুধু গতকালই (বুধবার) সারা দেশে মোট ৪,৪৬,৬৪২ জনের শরীরে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

যে পাঁচটি রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে সেগুলো হল, মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, কর্নাটক এবং উত্তরপ্রদেশ। সরকারি তথ্যে দেখা গেছে যে গত একদিনে সন্ধান পাওয়া নতুন করোনা রোগীদের মধ্যে ৬৬.৪১ শতাংশই অন্ধ্রপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, কর্নাটক এবং উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা।

করোনায় মৃত্যুর হিসাবে গত ২৪ ঘণ্টায় যে পাঁচটি রাজ্য শীর্ষে রয়েছে সেগুলো হল, মহারাষ্ট্র, কর্নাটক, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গ। বুধবার যতজন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে তার মধ্যে ৭৪.৫৮ শতাংশই এই পাঁচ রাজ্যে।

(PTI এর তথ্য সংযোজিত হয়েছে)