This Article is From Apr 26, 2020

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিতে পারে ৯টি রাজ্য

Coronavirus: বেশ কিছু ক্ষেত্রের জন্য ২০ এপ্রিল থেকে যে ছাড় দেওয়া হয়েছে, তা নিয়েও আলোচনা করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রীরা

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিতে পারে ৯টি রাজ্য

Coronavirus: সোমবার সকাল ১০টায় মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী মোদি

নয়াদিল্লি:

সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi) সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে বৈঠক করতে চলেছেন অন্তত ৯ জন মুখ্যমন্ত্রী, বেশিরভাগই পূর্ব এবং উত্তরপূর্বের রাজ্যের। লকডাউন (Countrywide Lockdown) শুরুর পর থেকে এই নিয়ে চতুর্থবার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে বৈঠক করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বেশ কিছু ক্ষেত্রের জন্য ২০ এপ্রিল থেকে যে ছাড় দেওয়া হয়েছে, তা নিয়েও আলোচনা করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রীরা, এছাড়াও পরীক্ষার কিট এবং চিকিৎসকদের সুরক্ষা নিয়েও আলোচনা হতে পারে।  সকাল ১০টায় শুরু হবে ভিডিও কনফারেন্স, সেখানেই লকডাউন বাড়ানো নিয়ে পর্যালোচনা হবে। কীভাবে পর্যায়ক্রমে পরবর্তী পদক্ষেপ করা যায়, তা নিয়েও আলোচনা হবে ভিডিও কনফারেন্সে।

করোনা আক্রান্ত কর্মী, সিল করা হল দিল্লির আরও একটি হাসপাতাল

কেন্দ্রের থেকে রাজ্যগুলি আর্থিক প্যাকেজের দাবি জানাতে পারে বলেও মনে করা হচ্ছে, এছাড়াও রাজকোষ সম্পর্কিত আইনের সংশোধনেরও দাবি উঠতে পারে। যেহেতু বর্তমান পরিস্থিতিতে ত্রাণের ব্যাপক প্রয়োজন এবং বিশ্বব্যাপি ছড়িয়ে পড়া অতিমারীর মোকাবিলায় বড় অঙ্কের টাকা খরচ হবে, ফলে, রাজকোষ ঘাটতির সম্ভাবনা রয়েছে।

আগের বৈঠকেই নিজেদের চিন্তাভাবনার কথা জানিয়েছেন অনেক বড় রাজ্যই।

এবারের বৈঠকে সিদ্ধান্ত জানানোর কথা রয়েছে বিহার, ওড়িশা, গুজরাট, হরিয়ানা, উত্তরাখণ্ড, এবং হিমাচলপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীদের এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মধ্যে পদুচেরি। উত্তরপূর্বের রাজ্যের মধ্যে রয়েছে মেঘালয় এবং মিজোরাম।

সূত্রের খবর, ছোটো বা বড়, সমস্ত রাজ্যকেই তাদের মতামত দিতে সুযোগ দিতে চায় কেন্দ্র। যদিও গতবারের মতো, যখন লকডাউন বাড়ানো নিয়ে আলোচনা হয়, তাদের মতামত লিখিত দিতে হয়নি, তা এবারে হবে না।

“পরিযায়ীদের রক্ষা করা আবশ্যক”, বললেন রাহুল গান্ধি

২০ মার্চ প্রথম বৈঠকে, ভাইরাস নিয়ে তাদের মতামত জানায় আটটি রাজ্য, স্থানীয় স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রশিক্ষণ এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের উন্নতি করা নিয়ে আলোচনা হয়।

২ এপ্রিল, দ্বিতীয় বৈঠকে, লকডাউন শেষ হলে, সেই পরিস্থিতি মোকাবিলা করা নিয়ে আলোচনা হয়।

১১ এপ্রিল, তৃতীয় বৈঠকে, লকডাউন বাড়ানোর পক্ষে মতামত দেন ১৩টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী।

বর্তমান পরিস্থিতিতে বিহার ও ওড়িশার কম প্রভাব রয়েছে করোনার। মেঘালয়ে ভাইরাসের কবলে ১১ জন এবং মিজোরামে একজন।