This Article is From Jun 27, 2020

দিল্লির সর্ববৃহৎ কোভিড-১৯ কেন্দ্র পরিদর্শন মুখ্যমন্ত্রী-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

দিল্লির ছত্তরপুর এলাকায় নবনির্মিত এই কেন্দ্রে আগে পরিযায়ী শ্রমিকদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছিল

দিল্লির সর্ববৃহৎ কোভিড-১৯ কেন্দ্র পরিদর্শন মুখ্যমন্ত্রী-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

লকডাউন চলাকালীন এই জায়গায় পরিযায়ী শ্রমিকদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

নয়াদিল্লি:

বিশ্বের সর্ববৃহৎ কোভিড-১৯ কেন্দ্র (Biggest Covid-19 facility) পরিদর্শন করলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল এবং অমিত শাহ (Arvind Kejriwal-Amit Shah) দিল্লির ছত্তরপুর এলাকায় নবনির্মিত এই কেন্দ্রে আগে পরিযায়ী শ্রমিকদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্তু পরবর্তী সময়ে দিল্লিতে সংক্রমণ বাড়ায় ঘাটতি দেখা যায় করোনা বেডে। সেই ঘাটতি পূরণে এই কেন্দ্র নির্মাণ করেছে দিল্লি সরকার। এদিন তার পরিষেবা ও পরিকাঠামো ঘুরে দেখলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল নামাঙ্কিত এই কেন্দ্র ২০০০ শয্যাবিশিষ্ট। নিরাপত্তার দায়িত্বে আইটিবিপি জওয়ানরা (ITBP jawan)। আছেন চিকিৎসক-সহ স্বাস্থ্যকর্মীর। শুক্রবার থেকে চালু করা হয়েছে এই কেন্দ্রের পরিষেবা। এই দুই নেতাকেই দেখা গিয়েছে , এই কেন্দ্রের সূক্ষ্ম পরিদর্শনের ওপর জোর দিতে। পাশাপাশি কেন্দ্র ও রাজ্যস্তরে দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিকদের থেকে খোঁজখবর নিয়েকেন মুখ্যমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

রাধা সোয়ামির বিজের জমিতে এই নির্মাণ তৈরি হয়েছে। এর পরিষেবা খতিয়ে দেখতে গত সপ্তাহে অমিত শাহকে আমন্ত্রণ জানান দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি এই কেন্দ্রের স্বাস্থ্যকর্মীর সামরিক বাহিনীর সদস্য হোক। এমন দাবি সেই টুইটে করেছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

সেই দাবি ও আমন্ত্রণ গ্রহণ করে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীকে পাল্টা টুইট করেছিলেন অমিত শাহ।

দেখুন সেই টূইট:

একদিনের মধ্যে আরও ১৮,৫৫২ জনের শরীরে বাসা বাঁধলো করোনা ভাইরাস। জানুয়ারি থেকে যে রোগ মৃত্যুদূতের মতো গুঁড়ি মেরে আমাদের দেশে এসে একের পর এক মানুষকে তার আক্রমণের লক্ষ্য করেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় তার প্রভাব এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি। রোজই যেন নতুন করে সংক্রমণের এক নতুন রেকর্ড গড়ছে কোভিড- ১৯। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক শনিবার সকালে যে পরিসংখ্যান দিয়েছে তাতে দেখা যাচ্ছে, সব মিলিয়ে ভারতে এখনও পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছে ৫,০৮,৯৫৩ জন। একদিনের মধ্যে আরও ৩৮৪ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। ফলে দেশে মোট ১৫,৬৮৫ জনের প্রাণ কেড়েছে এই মারণ ভাইরাস। শুক্রবারও, ভারতে একদিনে আক্রান্ত হয় ১৭,০০০ এরও বেশি মানুষ। যে দ্রুতগতিতে সংক্রমণের মাত্রা বাড়ছে তাতে দেখা যাচ্ছে যে, দেশে ৫ লক্ষেরও বেশি মানুষকে কাবু করতে মাত্র ১৪৯ দিন সময় নিয়েছে করোনা ভাইরাস। গত আট দিন ধরে ভারতে দৈনিক কমপক্ষে ১৪,০০০ মানুষ এই রোগের কবলে পড়েছেন।

মহারাষ্ট্র সব মিলিয়ে করোনা আক্রান্ত মোট ১,৫২,৭৬৫ জন এবং সেরাজ্যে ৭,১০৬ জনের প্রাণ কেড়েছে এই রোগ। মহারাষ্ট্রে বাসিন্দাদের মধ্যে ১৭.৫২ শতাংশ মানুষ কোভিডের কবলে পড়েছেন এবং মৃত্যুর হার এখন ৪.৬৫ শতাংশ।

দিল্লিতে ৭৭,২৪০ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। দেশের রাজধানীতে মারা গেছে ২,৪৯২ জন। যে হারে সেখানে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে তাতে হাসপাতালে বেড পাওয়া ক্রমেই মুশকিল হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

(PTI থেকে সংগৃহীত)