This Article is From Feb 16, 2020

৪০৬ জনের উপসর্গ নেগেটিভ! Coronavirus সতর্কতায় মানেসারে থাকা ভারতীয়দের বাড়ি ফেরাবে কেন্দ্র

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের সঙ্গে আলোচনা করেই প্রোটোকল ও পদ্ধতি মেনে ওই ভারতীয়দের বাড়ি যেতে অনুমতি দেবে আইটিবিপি

৪০৬ জনের উপসর্গ নেগেটিভ! Coronavirus সতর্কতায় মানেসারে থাকা ভারতীয়দের বাড়ি ফেরাবে কেন্দ্র

মানেসার পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে থাকা সব ভারতীয়দের রক্ত, সিরাম ও লালার চূড়ান্ত নমুনা সংগ্রহ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। (ফাইল)

হাইলাইটস

  • উহান থেকে এয়ার ইন্ডিয়ার জোড়া বিমান প্রায় ৬০০-র বেশি ভারতীয়কে ফিরিয়েছিল
  • সতর্কতা অবলম্বনে তাঁদের মানেসার পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে রাখা হয়েছিল
  • সেই ৪০৬ জনের উপসর্গ নেগেটিভ। তাই সোমবার থেকে বাড়ি ফেরানো হবে তাঁদের
নয়া দিল্লি:

করোনা আতঙ্কে (Coronavirus) প্রায় ৬০০-র বেশি ভারতীয়কে উহান (Wuhan) থেকে দেশে ফিরিয়েছিল এয়ার ইন্ডিয়ার জোড়া বিমান। তাঁদের মধ্যে ৪০৬ জনকে রাখা হয়েছিল দিল্লি-হরিয়ানা সীমান্তের মানেসার পর্যবেক্ষণ বা (Manesar ITBP Quarantine Centre) কোয়ারান্টাইন সেন্টারে। এঁদের প্রত্যেকের নমুনায় করোনা উপসর্গ নেগেটিভ। ফলে, সোমবার থেকে ধাপে ধাপে ওই ভারতীয়দের বাড়ি যেতে দেওয়া হবে। এমনটাই রবিবার জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের আধিকারিকরা। ওই ভারতীয়দের রক্ত, সিরাম ও লালার চূড়ান্ত নমুনা সংগ্রহ করেছেন মেডিক্যাল বিশেষজ্ঞরা। সেই নমুনা পরীক্ষা করে প্রত্যেকের উপসর্গ নেগেটিভ বেরিয়েছে। তারপরেই এই সিদ্ধান্তও বলে খবর। 

করোনা ভাইরাসকে “রাজ্য বিপর্যয়” ঘোষণা প্রত্যাহার করল কেরল

ওই পর্যবেক্ষণ সেন্টার আইটিবিপি জওয়ানদের বিশেষ দক্ষতায় তৈরি। সেই সেন্টারের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিল আইটিবিপি। ত্রি-স্তরীয় বলয়ে সাজানো হয়েছিল ওই পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র। একদম বাইরের ধাপে দিল্লি পুলিশ। আর বাকি দুটি ধাপের দায়িত্বে ছিলেন আইটিবিপি জওয়ানরা। জানা গেছে, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের সঙ্গে আলোচনা করেই প্রোটোকল ও পদ্ধতি মেনে ওই ভারতীয়দের বাড়ি যেতে অনুমতি দেবে আইটিবিপি। সোমবার থেকে ধাপে ধাপে শুরু হবে প্রক্রিয়া। 

Li Wenliang: প্রথম মারণ করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সতর্ক করেও মারা গেলেন এই চিনা চিকিৎসক

এদিকে, এখনও পর্যন্ত তিন জন এদেশে করোনা আক্রান্ত। এই তিনজন কেরলের বাসিন্দা।এর বাইরে সে রাজ্যে প্রায় কয়েক হাজার বাসিন্দাকে সতর্কতা অবলম্বনে গৃহবন্দি করেছিল রাজ্য প্রশাসন। যদিও পরে আশঙ্কা কেটে গেলে সেই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে কেরল সরকার। তবে চিন এবং হুবেই প্রদেশের পরিস্থিতি বেশ বিপজ্জনক। উহানে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ৮০০ ছাড়িয়েছে। উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন একাধিক চিনা নাগরিক। এর বাইরে বিশ্বের প্রায় ২০টি দেশে করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। জরুরি ভিত্তিতে ভারত-সহ এই ২০টি দেশ চিন থেকে সংশ্লিষ্ট দেশে যাতায়াতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হু এই ভাইরাস সংক্রমণকে সার্সের চেয়ে মারাত্মক আখ্যা দিয়ে মহামারী ঘোষণা করেছে।