যে রাঁধে, সে নাচেও! কাটিহার স্কুলের কোয়ারান্টাইন কেন্দ্রের রাঁধুনির ভিডিও ভাইরাল

জানা গিয়েছে, কাটিহারের সেই স্কুলের রাঁধুনি রিঙ্কু নিজের গ্রামে একটা ছোট হোটেল চালান। শৈশব থেকেই তাঁর নাচের খুব শখ।

যে রাঁধে, সে নাচেও! কাটিহার স্কুলের কোয়ারান্টাইন কেন্দ্রের রাঁধুনির ভিডিও ভাইরাল

নেটিজেনদের থেকে বাহবা কুড়িয়েছে রিঙ্কুর এই নাচের ভিডিও!

হাইলাইটস

  • কাটিহার কোয়ারান্টাইন সেন্টারের রাঁধুনির নাচের ভিডিও ভাইরাল
  • শৈশব থেকেই নাচের শখ রিঙ্কুর! নিজের গ্রামে ছোট হোটেল চালান তিনি
  • বিমর্ষ থাকা শ্রমিকদের একটু বিনোদন দিতে এই উদ্যোগ। জানান রিঙ্কু
কাটিহার:

যে রাঁধে, সে চুলও বাঁধে, থুড়ি সে নাচেও। এমনই অনন্য প্রতিভা একটু চোখ-কান খোলা রাখলেই মিলবে।পরিস্থিতির বিচারে সেই প্রতিভা সাময়িক ছন্দ হারায় বটে, কিন্তু অনুকূল পরিবেশে তার বিচ্ছুরণ ঘটেই। তেমন এক প্রতিভাবানের নাচের ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে সোশাল মাধ্যমে। জানা গিয়েছে বিহারের কাটিহার জেলার এক কোয়ারান্টাইন সেন্টারের (Quarantine centre in Bihar) রিঙ্কু নামে এক ব্যক্তির নাচের ভিডিও এখন শিরোনামে। ওই জেলার লক্ষণ মণ্ডল উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়কে কোয়ারান্টাইন সেন্টার বানিয়েছে প্রশাসন। সেই কেন্দ্রের রাঁধুনি  এই রিঙ্কু। পরিযায়ী শ্রমিক (Migrants in Katihar) যারা সংক্রমণ সন্দেহের তালিকায়, তাঁদের সেই সেন্টারে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। তাই তাঁদের রেঁধে খাওয়ানোর সঙ্গে নেচে একটু মনোরঞ্জন দিতে চেয়েছেন রিঙ্কু। এমনটাই স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর। পারিপার্শ্বিক এই দমবন্ধ করা পরিবেশে রিঙ্কুর এই প্রতিভায় মুগ্ধ নেট দুনিয়া। ভিডিওর কমেন্ট সেকশন  দেখলে তেমনটাই ইঙ্গিত। 

দেখুন সেই ভিডিও: 

জানা গিয়েছে, কাটিহারের সেই স্কুলের রাঁধুনি রিঙ্কু নিজের গ্রামে একটা ছোট হোটেল চালান। শৈশব থেকেই তাঁর নাচের খুব শখ। তাই অর্থ উপার্জনের চাপে ফেলে আসা সেই অতীত আবার ফিরে পেতে পরিযায়ী শ্রমিকদের নেচে বিনোদন দিচ্ছেন তিনি। তাঁর দাবি, "কোয়ারান্টাইন সেন্টারে পরিবার ছাড়া থেকে মানসিক বিষাদগ্রস্ত হয়ে পড়েন শ্রমিকরা। তাই তাঁদের এই অসহনীয় পরিস্থিতি থেকে বের করতে ওদের মনোরঞ্জন দেওয়ার চেষ্টা করি।" 

সেই স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রিঙ্কুর এই প্রতিভা দেখে উচ্ছ্বসিত। সঙ্কট কেটে সবকিছু স্বাভাবিক হলে, সরকারি তরফে রিঙ্কুকে সম্বর্ধনা দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন তিনি।  

ভিডিও: করোনা থেকে বাঁচতে এবার পুজোপাঠের আশ্রয়