This Article is From Jul 31, 2020

রাজ্যে দলীয় কর্মী "খুন"! সিবিআই তদন্ত চেয়ে অমিত শাহের দ্বারস্থ রাজ্য বিজেপি

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে জেলা তৃণমূল

রাজ্যে দলীয় কর্মী

ফাইল ছবি।

নয়াদিল্লি:

গত কয়েকদিনে দু'জন বিজেপি কর্মীর অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে রাজ্যে। পূর্ব মেদিনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার এই ঘটনায় কাঠগড়ায় শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। আর এই কর্মী মৃত্যু ঘটনায় সিবিআই (CBI) তদন্ত চেয়ে অমিত শাহের দ্বারস্থ রাজ্য বিজেপি (Bengal BJP)। দুই দলীয় সাংসদ সৌমিত্র খাঁ ও নিশীথ প্রামাণিক নয়াদিল্লিতে শুক্রবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর (Home Minister Amit Shah) বাসভবনে গিয়েছিলেন। দক্ষিণ ২৪ পরগনার ঘোড়ামারার বিজেপি কর্মী গৌতম পাত্র ও পূর্ব মেদিনীপুরের রামনগরের পূর্ণচন্দ্র দাসের অস্বাভাবিক মৃত্যুর প্রসঙ্গ তোলেন ওই দুই সাংসদ। পাশাপাশি সিবিআই তদন্তের দরবার করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে। তাঁদের অভিযোগ, "রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুব খারাপ। প্রায়ই বিজেপি কর্মীদের মেরে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হচ্ছে। প্রচার করা হচ্ছে এই ঘটনা আত্মহত্যা।" তাঁদের দাবি, "চলতি সপ্তাহে আমাদের দুই জন দলীয় কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়েছে। আমরা এই ঘটনার তদন্তে সিবিআই চেয়েছি। মাননীয়া অমিত শাহজিকে খতিয়ে দেখতে অনুরোধ করেছি।" এদিকে, পূর্ব মেদিনীপুরের ঘটনা জেলা তৃণমূলের দিকে অভিযোগের আঙুল। বিজেপির অভিযোগ, "তৃণমূলে যোগের জন্য চাপ ছিল গৌতমের ওপর। সেই চাপের কাছে মাথা নত করেননি তিনি। তাই এই পরিণতি।"

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে জেলা তৃণমূল। এদিকে, গৌতম পাত্র দলের বুথস্তরের কর্মী ছিলেন। তাঁকেও একইভাবে খুন করেছে তৃণমূল। যদিও পূর্ব মেদিনীপুরের ঘটনায় জেলা পুলিশের বক্তব্য, "প্রাথমিক তদন্তে অনুমান আত্মহত্যা করেছেন ওই ব্যক্তি। গোরুর সঙ্গে যখন সম্পর্কের একটা অভিযোগ উঠেছিল তাঁর বিরুদ্ধে। সেটা সহ্য করতে না পেরেই এই ঘটনা।"

দিন কয়েক আগেই হেমতাবাদের বিজেপি বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে পড়েছিল উত্তেজনার পারদ। বিজেপির তরফে খুনের অভিযোগ থাকলেও, সিআইডি তদন্তে আর্থিক বিষয়ে আত্মহত্যার তত্ত্ব খাড়া করা হয়েছে।