মাসুদ আজহার নিয়ে 'দ্বিচারিতা', চিনকে আক্রমণ আমেরিকার

Masood Azhar: কয়েকদিন আগেই, মাসুদ আজহারকে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদ ‘গ্লোবাল টেররিস্ট’ হিসেবে ঘোষণা করতে গেলে সেখানে বাধা দিয়েছিল চিন।

মাসুদ আজহার নিয়ে 'দ্বিচারিতা', চিনকে আক্রমণ আমেরিকার

Masood Azhar: মাসুদ আজহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা চাপানোর ব্যাপারে গত কয়েক বছরে চারবার বাধা দিয়েছে চিন

বেজিং:

বেশ কয়েকবার মাসুদ আজহারকে ‘গ্লোবাল টেররিস্ট' হিসেবে ঘোষণার ক্ষেত্রে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদকে বাধা দিয়েছিল চিন। তার বিরুদ্ধে তীক্ষ্ণ আক্রমণ করে আমেরিকা অভিযোগ জানিয়েছিল, সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলিকে রক্ষা করতে চিন সবসময়ই আগেভাগে সচেষ্ট হয়ে ওঠে। বুধবার আমেরিকার সেক্রেটারি অব স্টেট মাইক পম্পেও চিনকে মুসলমানদের প্রতি ‘ন্যক্কারজনক দ্বিচারিতা' দেখানোর জন্য রীতিমত একহাত নেন। তিনি বলেন, চিনের দ্বিচারিতা অত্যন্ত বিরক্তিকর। নিজেদের দেশেই চিন কয়েকলক্ষ মুসলমানের ওপর রীতিমত অত্যাচার চালিয়ে যায়। অথচ, রাষ্ট্রপুঞ্জ যখন ইসলামকি সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলিকে নিষিদ্ধ করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়, তখনই সেখানে সমস্যার সৃষ্টি করে একমাত্র চিন।

মাসুদের উপর চাপ বাড়ল,কালো তালিকাভুক্ত করতে নতুন পদক্ষেপ করল আমেরিকা

সম্প্রতি, কয়েকদিন আগেই, মাসুদ আজহারকে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদ ‘গ্লোবাল টেররিস্ট' হিসেবে ঘোষণা করতে গেলে সেখানে বাধা দিয়েছিল চিন। সেদিকে ইঙ্গিত করেই কথাটি বলেন পম্পেও।

এর উত্তরে অবশ্য চুপ করে থাকেনি বেজিং। চিনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র গেং শুয়াং শুক্রবার সাংবাদিক সম্মেলনে আমেরিকার নাম না করে জানান, “রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে গ্লোবাল টেররিস্ট হিসাবে কাউকে অভিহিত করার ব্যাপারে বাধা দেওয়া হয়েছিল, শুধু এই কারণে একটি বিশেষ দেশ চিনকে যদি দোষারোপ করে, তাহলে তো প্রশ্ন করতে হয়, যে যে দেশ আজ পর্যন্ত এই বাধা দিয়েছে তারা প্রত্যেকেই জঙ্গিদের প্রশ্রয় দেয় কি না? সেক্ষেত্রে কি আমরা এই কথা বলতে পারি যে, যে দেশটি সবথেকে বেশিবার এমন বাধা দিয়েছে রাষ্ট্রপুঞ্জে, তারাই আসলে সবথেকে বেশি সন্ত্রাসবাদীদের মদত দেয়?”



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)