ইডির ৬ আধিকারিক করোনা পজিটিভ, 'সিল' করা হল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের প্রধান কার্যালয়

Enforcement Directorate: করোনা আক্রান্ত ওই ৬ আধিকারিকের সংস্পর্শে আসা আরও ১০ জনেরও বেশি ইডি কর্মীকে কোয়ারান্টাইন করে রাখা হয়েছে

ইডির ৬ আধিকারিক করোনা পজিটিভ, 'সিল' করা হল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের প্রধান কার্যালয়

Coronavirus: সদর দফতরে কর্মরত এক ইডি আধিকারিকের থেকেই ওই করোনা সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে

হাইলাইটস

  • দেশে লাগাতার বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা
  • এবার করোনা থাবা বসালো ইডির সদর দফতরেও
  • এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের ৬ আধিকারিক করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন
নয়া দিল্লি:

ইডির (Enforcement Directorate) ৬ আধিকারিক করোনা (Coronavirus) পজিটিভ, তাই তড়িঘড়ি 'সিল' করা হল দিল্লিতে অবস্থিত এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের প্রধান কার্যালয়টি। গোটা ভবনটিকে জীবাণুমুক্ত বা স্যানিটাইজড করতে হবে, তাই আপাতত ২ দিনের জন্যে বন্ধ রাখা হয়েছে সেটি। এদিকে করোনা আক্রান্ত ওই ৬ আধিকারিকের সংস্পর্শে আসা আরও ১০ জনেরও বেশি ইডি কর্মীকে কোয়ারান্টাইন করে রাখা হয়েছে। সম্প্রতি, ইডির সদর দফতরে কর্মরত এক ইডি আধিকারিকের শরীরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে। ওই আধিকারিক কেন্দ্রীয় আধাসামরিক বাহিনী থেকে তদন্তকারী সংস্থার ডেপুটেশনে ছিলেন বলে সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন ইডির কর্তারা। মনে করা হচ্ছে, ওই আধিকারিকের থেকেই মারণ রোগের সংক্রমণ ছড়িয়েছে বাকিদের মধ্যে।

সংক্রমণের বিচারে ইতালিকে টপকে ৬ নম্বরে ভারত, করোনা আক্রান্ত ২.৩৫ লক্ষ

এদিকে দেশে করোনা সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক যে পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে তাতে দেখা গেছে যে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনা আক্রান্ত আরও ৯,৮৮৭ জন। মাত্র একদিনের মধ্যে আরও ২৯৪ জনের মৃত্যু হওয়ায় ভারতে এখনও পর্যন্ত করোনা প্রাণ কাড়ল ৬,৬৪২ জনের। সরকারি তথ্য অনুসারে শুক্রবারের তুলনায় করোনা (COVID -19) থেকে পুনরুদ্ধারের হারের সামান্য অবনতি হয়েছে। শুক্রবার যেখানে দেশে ৪৮.২৭ শতাংশ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েও পরে সুস্থ হয়েছেন দেখা যাচ্ছিল সেখানে শনিবার সেই পুনরুদ্ধারের হার কমে এসে দাঁড়িয়েছে ৪৮.২০ শতাংশে।

২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ৯,৮৮৭ জন, একদিনে ২৯৪ জনের প্রাণ কাড়ল কোভিড- ১৯

সংক্রমণের বিচারে ইতালিকে টপকে ৬ নম্বরে ভারত, এদেশে এখন করোনা আক্রান্ত ২.৩৫ লক্ষেরও বেশি মানুষ।মাত্র এক সপ্তাহ আগেই ভারত চিনকে টপকে ৯ নম্বরে ছিল, আর এই কদিনেই দেশ পৌঁছে গেল ৬ নম্বরে।

তবে দেশে করোনা সংক্রমণ বাড়লেও তার পাশাপাশি বাড়ছে পুনরুদ্ধারের হারও। ১.১২ লক্ষেরও বেশি মানুষ কোভিডের কবলে পড়েও চিকিৎসা সহায়তায় ওই রোগ থেকে রেহাই পেয়েছেন। তবে ভারতে এখন ১ লক্ষের বেশি মানুষ সক্রিয় করোনা রোগী। বেশ কয়েক দিন ধরেই দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন গড়ে ৮,০০০ বা তারও বেশি করে বাড়ছে।