Rahul at J&K: শ্রীনগর বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে রাহুলের কথোপকথনের ভিডিও প্রকাশ্যে

কংগ্রেস ভিডিও প্রকাশ করে, যেখানে দেখা যাচ্ছে রাহুল গান্ধি বিমানবন্দরের আধিকারিকদের বোঝানোর চেষ্টা করছেন তিনি রাজ্যপালের আমন্ত্রিত।

শ্রীনগর বিমানবন্দর থেকে ফিরিয়ে দেওয়া হয় রাহুল গান্ধি সহ বিরোধী নেতাদের।

হাইলাইটস

  • রাহুল সহ ১১ বিরোধী দলের নেতাদের শ্রীনগর বিমানবন্দর থেকে ফেরত পাঠানো হয়।
  • সীতারাম ইয়েচুরি, ডি রাজা দিনেশ ত্রিবেদীরা ছিলেন ওই প্রতিনিধি দলে।
  • 'পরিস্থিতি স্বাভিক নয়', জানিয়েছেন রাহুল গান্ধি।
নয়াদিল্লি:

‘রাজ্যপাল আমন্ত্রণ করেছেন বলেই আমি এখানে এসেছি। কিন্তু, আপনারা বলছেন আমি যেতে পারবো না। সরকার বলছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক, সবকিছু ঠিক রয়েছে। তাহলে কেন আমাদের যেতে দেওয়া হচ্ছে না? এটা অবাক করা বিষয়।' শ্রীনগর (Srinagar) বিমানবন্দরে পুলিশ অফিসারদের বলছিলেন রাহুল গান্ধি (Rahul Gandhi)। কংগ্রেসের তরফেই এই ভিডিও প্রকাশ্যে আনা হয়। তবে, তাঁর মন্তব্যে তুষ্ট হননি প্রশাসনের অধিকারিকরা। শেষ পর্যন্ত বিমানবন্দর থেকে বেরোতে পারেননি রাহুল গান্ধি সহ ১১ বিরোধী দলের প্রতিনিধিরা। প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি ছাড়াও এই দলে ছিলেন, সিপিএমে সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইযেচুরি, সিপিআইয়ের ডি রাজা, ডিএমকের তিরুচি শিবা, আরজেডির মনোজ ঝাঁ ও তৃণমূলের (TMC) দিনেশ ত্রিবেদী। রাহুল ও পুলিশের মধ্যে বাক্য বিনিময়ের মাঝে কংগ্রেস নেতার পাশেই দাঁড়িয়েছিলেন বাকিরা। রাহুল পুলিশকে জানান, ‘আমরা শুধু স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলতে চাই। আর যদি ১৪৪ ধারা লাগু থাকে তবে আমরা একে একে যাবো। এছাড়া আর কিছুই চাই না।' পাশ থেকে বর্ষীয়াণ কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ (Ghulam Nabi Azad) তাতে সম্মতি জানান। বিরোধী শিবিরের তরফে পুরো বিষয়টিকে ‘অগণতান্ত্রিক' ও ‘অসাংবিধানিক' বলা হয়।

 “জম্মু ও কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক নয়” বললেন রাহুল গান্ধি  

শ্রীনগর থেকে দিল্লি ফিরে রাহুল গান্ধি বলেন, ‘এদিনের ঘটনাই প্রমাণ করলো জম্মু কাশ্মীরের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক নয়।' প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতির সেই রাজ্যে যাওয়াকে ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত' বলে অভিযোগ করেন রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক।

Jammu Kashmir Issue: মৌলিক অধিকার হারিয়ে "বিরক্ত" রাজ্যবাসী, চাকরি ছাড়ছেন আইএএস অফিসার

জম্মু কাশ্মীরের রাজ্যপাল এএনআইকে বলেন, ‘সৌজন্য দেখিয়ে আমি তাঁকে আমন্ত্রণ জানিয়ে ছিলাম। কিন্তু, তাঁদের আচরণেই স্পষ্ট তাঁরা রাজনীতি করছেন। দেশের স্বার্থ সবার আগে এটা মনে রাখা প্রয়োজন।'

সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, ‘শ্রীনগর বিমানবন্দরে আমাদের কোন অপরাধে আটকে রাখা হল তা জানতে চাইলে উত্তর মেলেনি। আইন অনুযায়ী আমাদের কপি দেওয়ার কথা। কিন্তু তা দেওয়া হয়নি। তারা পড়ে শুনিয়েছে মাত্র।'

৩৭০ ধারা রদের পরপরই কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিযে উদ্বেগ প্রকশ করেন রাহুল গান্ধি। তারপরই তাঁকে সেখানে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানান সত্যপাল মালিক। জবাবে রাহুল সেখানে যাওয়ার শর্ত দেন। পরে সেই আমন্ত্রণ প্রত্যাহার করে নেন রাজ্যপাল।

প্রায় তিন সপ্তাহ কাশ্মীরে জারি রয়েছে নিয়ন্ত্রণ। রাজ্যের দুই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও বন্দি প্রায় ৪০০ রাজনৈতিক কর্মী। জম্মু-কাশ্মীরের সরকারের তরফে ট্যুইটে জানানো হয়, বিরোধী নেতাদের রাজ্যে প্রবেশকরতে দেওয়া হবে না। তারা এলে পরিবেশ অন্যরকম হয়ে উঠতে পারে।