আজই ভারতীয় বায়ুসেনার "গোল্ডেন অ্যারোস" এ যোগ দিচ্ছে ৫টি রাফাল যুদ্ধবিমান

Rafale fighter jets: হরিয়ানার আম্বালার বায়ুসেনা ঘাঁটিতে অবতরণ করবে সেগুলো, বায়ুসেনা প্রধান ভাদৌরিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে এই যুদ্ধবিমানগুলোকে স্বাগত জানাবেন

আজই ভারতীয় বায়ুসেনার

Rafale fighter jets: ৭,০০০ কিমি পথ পেরিয়ে ভারতে আসছে রাফাল

হাইলাইটস

  • ফ্রান্স থেকে ৭,০০০ কিমি পাড়ি দিয়ে ভারতে আসছে ৫টি রাফাল যুদ্ধবিমান
  • বুধবারই ভারতীয় বায়ুসেনায় যোগ দেবে সেগুলো
  • ২০১৬ তে ফ্রান্সের থেকে ৫৯,০০০ কোটি টাকায় ৩৬ টি বিমান কেনার চুক্তি হয়
নয়া দিল্লি:

৭.০০০ কিলোমিটার দূরত্ব পেরিয়ে আজই (বুধবার) ভারতে এসে পৌঁছবে বহু বিতর্কিত ৫টি রাফাল যুদ্ধবিমান (Rafale fighter jets)। হরিয়ানার আম্বালার (Ambala) বায়ুসেনা ঘাঁটিতে অবতরণ করবে সেগুলো। বায়ুসেনা ( Indian Air Force) প্রধান আর কে এস ভাদৌরিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে এই যুদ্ধবিমানগুলোকে স্বাগত জানাবেন। দুই দশকেরও বেশি সময় পর ভারতে কোনও যুদ্ধবিমানের অধিগ্রহণ করা হচ্ছে। ২০১৬ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর ফরাসি সংস্থা দাসল্ট এভিয়েশন থেকে ৩৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান কেনার জন্যে ৫৯,০০০ কোটি টাকার একটি চুক্তি হয়। সেই চুক্তি অনুসারেই ভারতকে এই যুদ্ধবিমান জোগান দিচ্ছে ফ্রান্স। তবে রাফালের আগমন উপলক্ষে পাকিস্তানের সীমান্ত থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার দূরে থাকা এই বায়ুসেনা ঘাঁটির নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে। আশেপাশের চারটি গ্রামে সবরকম সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। যুদ্ধবিমান অবতরণের সময় কোনওভাবেই কোনও বাড়ির ছাদে কেউ উঠতে পারবেন না এবং কোনওরকম ছবিও তোলা যাবে না। যদিও স্থানীয় এক বিধায়ক রাফালকে স্বাগত জানাতে স্থানীয়দের মোমবাতি জ্বালানোর আহ্বান জানিয়েছেন।

করোনার গোষ্ঠী সংক্রমণ এড়াতে আজ সম্পূর্ণ লকডাউন রাজ্যে, অগাস্টে ৭ দিন

আম্বালা বিমানঘাঁটিতে ইতিমধ্যেই এই যুদ্ধবিমানগুলির জন্য প্রস্তুতি সম্পূর্ণ হয়েছে।  দিল্লির কাছে হরিয়ানার এই ঘাঁটিতে প্রথম দফায় আসা রাফাল যুদ্ধবিমান মোতায়েন করা হবে। রাফাল যুদ্ধবিমান রাখার জন্য আম্বালা বিমানঘাঁটিতে আলাদা করে পরিকাঠামো তৈরি করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, বিমান রাখার জায়গা (হ্যাঙ্গার), এয়ার-স্ট্রিপ ও কমান্ড অ্যান্ড কন্ট্রোল সিস্টেম। ভারতীয় বায়ুসেনার ( Indian Air Force) "গোল্ডেন অ্যারোস" এ যোগ দিচ্ছে ৫টি রাফাল যুদ্ধবিমান।

আগে নাম নথিভুক্ত থাকলে করোনা আক্রান্ত গর্ভবতীকেও ভর্তি নিতে হবে হাসপাতালগুলোকে

এয়ার টু এয়ার মিসাইল রাফাল জেটগুলির অন্যতম ইউএসপি। এর ফলে ১৫০ কিলোমিটার দূরের টার্গেট বিদ্ধ করতে পারবে ভারতীয় বায়ুসেনা। এয়ার টু এয়ার মিসাইল রাফাল জেটগুলির অন্যতম ইউএসপি। এর ফলে ১৫০ কিলোমিটার দূরের টার্গেট বিদ্ধ করতে পারবে ভারতীয় বায়ুসেনা। ১০০ কিলোমিটার জায়গার মধ্যে ৪৫ টি নিশানায় এক সঙ্গে আঘাত হানতে পারে রাফাল। রাফালের বায়ু থেকে বায়ু এবং বায়ু থেকে ভূমিতে আঘাত হানার ক্ষমতা ৩৭০০ কিলোমিটার। রাফালকে বলা হচ্ছে ৪.৫ জেনারেশন এয়ারক্রাফট। রাফালের নির্মাণকারী সংস্থা দাসল্ট-এর দাবি, এগুলি ওমনিরোল এয়ারক্রাফট। অর্থাৎ প্রত্যেকটি মিশনে এই যুদ্ধবিমানকে যে লক্ষ্যে কাজে লাগানো হয়, প্রয়োজনে রাফাল তার থেকেও অতিরিক্ত করার ক্ষমতা রাখে।

ফ্রান্সে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, "নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ১০ টি বিমান প্রস্তুত হয়েছে। প্রশিক্ষণের জন্যে অন্য ৫টি বিমান আপাতত ফ্রান্সেই রয়েছে। তবে ২০২১ সালের শেষের মধ্যে ৩৬ টি বিমানই তৈরি হয়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।" অনুমান করা হচ্ছে, ২০২২ সালের মধ্যে ভারতে সবকটি রাফালই এসে যাবে।