‘‘আমার মন্তব্যকে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে’’: সংসদে প্রজ্ঞা ঠাকুর

সংসদে নাথুরাম গডসেকে নিয়ে তাঁর মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে প্রজ্ঞা ঠাকুর বললেন, ‘‘আমার মন্তব্যকে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে।’’

‘‘আমার মন্তব্যকে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে’’: সংসদে প্রজ্ঞা ঠাকুর

সংসদে নাথুরাম গডসেকে নিয়ে তাঁর মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে প্রজ্ঞা ঠাকুর বললেন, ‘‘আমার মন্তব্যকে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে।’’

নয়াদিল্লি:

বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা ঠাকুর (Pragya Thakur) সংসদে তাঁর করা মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইলেন। মহাত্মা গান্ধির হত্যাকারী নাথুরাম গডসেকে (Nathuram Godse) ‘‘দেশভক্ত'' বলেছিলেন তিনি। এবার সেই মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইলেন প্রজ্ঞা। পাশাপাশি তিনি অভিযোগ আনলেন, তাঁকে এক সাংসদ ‘‘জঙ্গি'' বলে অভিহিত করেছেন কোনও প্রমাণ ছাড়াই। প্রসঙ্গত, প্রজ্ঞা ঠাকুরকে কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধি বৃহস্পতিবার ‘‘জঙ্গি'' বলেছিলেন। তিনি বলেন, ‘‘জঙ্গি প্রজ্ঞা জঙ্গি গডসেকে দেশভক্ত বলেছেন। ভারতের সংসদীয় ইতিহাসের এক দুঃখময় দিন।'' এদিন প্রজ্ঞা ঠাকুর বললেন, ‘‘আমার মন্তব্যকে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কাউকে আঘাত দিয়ে থাকলে আমি ক্ষমা চাইছি।''

কিন্তু সেই সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘‘কক্ষের এক সদস্য আমাকে জঙ্গি বলেছেন। এটা অপমান।''

প্রজ্ঞা ঠাকুর বলেন, ‘‘বিস্তারিত ভাবে না বুঝে আমার মন্তব্যকে যেভাবে আক্রমণ করা হয়েছে তা নিন্দনীয়। মহাত্মা গান্ধি জাতির জন্য বিরাট অবদান রেখেছিলেন এবং আমি তাঁকে অত্যন্ত শ্রদ্ধা করি। আমি ক্ষমা চাইছি যদি আমি কারও আবেগে আঘাত দিয়ে থাকি। কিন্তু বিরোধীপক্ষ আমার মন্তব্যকে বিকৃত করা হয়েছে। কক্ষের এক সদস্য আমাকে ‘জঙ্গি' বলেছেন। এটা সংসদের সদস্য হিসেবে আমার সম্মানে আক্রমণ এবং একজন মহিলা হিসেবেও। আমার বিরুদ্ধে আনা কোনও অভিযোগই আদালতে প্রমাণিত হয়নি। আমার ভুল ভাবে উদ্ধৃত করা হয়েছে। ইচ্ছাকযত ভাবে আমাকে জঙ্গি বলা হয়েছে। আমাকে জঙ্গি বলাটা বেআইনি। যিনি এটা করেছেন তিনি সরাসরি ভারতীয় বিচার ব্যবস্থাকে অপমান করছেন।''

বিজেপির সাংসদরা দাবি জানিয়েছেন, এই মন্তব্যের জন্য রাহুল গান্ধিকে ক্ষমা চাইতে হবে।

এদিকে বিরোধীদের দাবি, কেবল ক্ষমা প্রার্থনাই যথেষ্ট নয়।

স্পিকার ওম বিড়লা লোকসভার সদস্যদের কাছে আবেদন করেন যে, মহাত্মা গান্ধিকে নিয়ে যেন রাজনীতি না হয়।

More News