‘কেবল তিনিই করতে পারেন’, রাখীতে তিন তালাক আইনের প্রশংসায় মোদীর রাখী-বোন

বৃহস্পতিবার স্বামীকে সঙ্গী করেই প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে পৌঁছে যান কামার মহসিন শেখ  (Qamar Mohsin Shaikh)। দাদা মোদির হাতে পরিয়ে দেন রাখী।

‘কেবল তিনিই করতে পারেন’, রাখীতে তিন তালাক আইনের প্রশংসায় মোদীর রাখী-বোন

পাকিস্তানী বংশোদ্ভূত কামার গত ২৫ বছর ধরে মোদির হাতে রাখী বাঁধছেন

নয়াদিল্লি:

একটা আইন। তাতেই বদলে গিয়েছে স্বাধীনতার মানে। মোদি সরকারের (Modi Govt) প্রশংসায় পঞ্চমুখ দেশের মুসলিম মহিলারা। রাখীর (Rakhi)  আগেই ‘দাদা' মোদির থেকে মিলেছে তাৎক্ষণিক তিন তালাক বিরোধী আইন  (Anti Triple Talaq Law)। তাই, ভাই-বোনের মিলনের দিনেই রাখী বেঁধে প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানালেন পাকিস্তানী বংশোদ্ভূত বোন। কাঁটাতারের উত্তাপ, ধর্মের কড়া বিধানকে ছাপিয়ে গেল হৃদয়ের উষ্ণতা। কামার মহসিন শেখ  (Qamar Mohsin Shaikh)। আদতে পাক বংশোদ্ভূত । কিন্তু, বিবাহসূত্রে বহু বছরে আগেই এসেছেন ভারতে। দু'দশক আগেই মোদির (Modi) সঙ্গে পরিচয়। সে সময়, রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সঙ্ঘের (RSS) প্রচারক নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদি  (Narendra Modi)। যা অবশ্য বাধা হয়নি ভিন্ন ধর্মের ভাই-বোনের সম্পর্কে।

বৃহস্পতিবার স্বামীকে সঙ্গী করেই প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে পৌঁছে যান কামার মহসিন শেখ  (Qamar Mohsin Shaikh)। দাদা মোদির হাতে পরিয়ে দেন রাখী। উপহার হিসাবে দেন জীবনসাথীর আঁকা ছবি। গত কয়েক বছর ধরেই উজ্জ্বল এদৃশ্য।

তাৎক্ষণিক তিন তালাক বিরোধী আইন প্রণয়ন করেছে মোদি সরকার। খুশি কামার মহসিন (Qamar Mohsin Shaikh)। সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে সাক্ষাৎকারে বললেন, ‘ধর্মগ্রন্থ কোরান বা ইসলামে তাৎক্ষণিক তিন তালাকের কোনও বিধান নেই। তাই যা হয়েছে খুব ভালো হয়েছে মুসলমান মহিলাদের জন্য। এই দৃঢ় পদক্ষেপ উনি (প্রধানমন্ত্রী মোদি) ছাড়া আর কেউ করতে পারতেন না।'  

তারপরই এল ‘দাদা' মোদি'র প্রসঙ্গ। কামার বলছিলেন, ‘বছরের এই একটা দিনেই ওঁর হাতে রাখি পড়াতে পারি। আমি খুব খুশি। প্রার্থনা করি যেন আগামী পাঁচ বছর দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন উনি। গোটা বিশ্ব যেন ওনার সাহসী পদক্ষেপের স্বীকৃতি দেয়।'

a1d9d7ng

বিজেপি (BJP) ফের দেশের ক্ষমতায় এসেছে সপ্তাহ দশেক আগেই। তার মধ্যেই বেশ কয়েকটি ঐতিহাসিক পদক্ষেপ করেছে মোদি সরকার। যার অন্যতম তাৎক্ষণিক তিন তালাক বিরোধী আইন প্রণয়ন। স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লার ভাষণেও প্রধানমন্ত্রী তিন তালাক প্রসঙ্গে বক্তব্য রাখেন। বলেন, ‘সতীদাহ ও পণপ্রথা বন্ধ হলে তিন তালাক কেন বিলোপ হবে না। মুসলিম মহিলাদের রক্ষা করতে আইন এনেছি। সামাজিক দায়িত্ব পালন করেছি।'

বিরোধীরা অবশ্য এই বিল আইনে পরিনত করার আগে আলোচনার জন্য সংসদের সিলেক্ট কমিটিতে পাঠানোর আবেদন করে। তাতে লাভ হয়নি। লোকসভা ও রাজ্যসভায় পাস হয়ে যায় তাৎক্ষণিক তিন তালাক বিরোধী বিল।

এই আইনের কথা উঠতেই আবেগতাড়িত ‘বোন' কামার মহসিন। বার বার বলছিলেন, ‘আরএসএস-এর (RSS)  প্রচারক থেকে দেশে প্রধানমন্ত্রী। নরেন্দ্র মোদির আচরণে কোন পার্থক্য ধরা পড়ে না। কেবল ব্যস্ততার জন্য সবসময় সময় দিতে পারেন না।'