This Article is From Mar 15, 2019

নিউজিল্যান্ডের মসজিদে গুলি, ৪৯ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা, প্রধানমন্ত্রী বললেন কালো দিন

নিউজিল্যান্ডের সাউথ ল্যান্ড শহরের একটি মসজিদে (Mosque) গুলি (New Zealand Firing ) চলেছে  বলে  খবর। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম বলছে  ওই ঘটনায় বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়েছে।

নিউজিল্যান্ডের মসজিদে গুলি, ৪৯ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা, প্রধানমন্ত্রী বললেন কালো দিন

হাইলাইটস

  • নিউজিল্যান্ডের মসজিদে গুলি, অনেকের মৃত্যুর আশঙ্কা
  • প্রশাসন জানিয়েছে বন্দুকবাজকে এখনও নিকেশ করা সম্ভব হয়নি
  • দেশের প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন এটি নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসের অন্যতম কালো দিন
ক্রাইসচার্জ নিউজিল্যান্ড:

নিউজিল্যান্ডের সাউথ ল্যান্ড শহরের একটি মসজিদে (Mosque) গুলি (New Zealand Firing ) চলেছে  বলে  খবর। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম বলছে  ওই ঘটনায় বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়েছে। একটি সূত্র  বলছে প্রায় ৪৯ জনের প্রাণ  গিয়েছে। হামলাকারীরা অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক। এবং সে  অতি ডান পন্থায় বিশ্বাস করে বলে খবর।   পুলিশের তরফ থেকে বলা হয়েছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা হলেও উদ্বেগের কারণ আছে  যথেষ্টই। দেশের প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন এটি নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসের অন্যতম কালো দিন।            

মুম্বইয়ের ভেঙে পড়া ফুটব্রিজ বহন করেছে কাসভের সন্ত্রাসের স্মৃতিও 

  

 

0qpqfa98

একটি সূত্র বলছে  যেখানে গুলি চলেছে সেখানে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কয়েকজনও উপস্থিত ছিলেন। শহরের সমস্ত স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। প্রশাসনের তরফ থেকে  এখন দেশের মসজিদগুলি যেতে বারণ করা হয়েছে। শহরের সমস্ত স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে    বলে জানান পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ। পুলিশে তরফ থেকে সকলকে বাড়ির  ভেতরেই থাকতে অনুরোধ করা  হয়েছে। 

ঘটনাস্থলে  উপস্থিত এক ব্যক্তি রেডিও নিউজিল্যান্ডকে  জানিয়েছেন তিনি গুলির শব্দ পেয়েছেন আর তাছাড়া  চারটি দেহ মাটিতে পড়ে থাকতেও দেখেছেন তিনি।  তবে এই ঘটনায় সত্যি কারও মৃত্যু  হয়েছে  কিনা তা স্পষ্ট নয়। পুলিশ কমিশনারও জানান কতজনের মৃত্যু হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। তবে পরিস্থিতির  চিন্তার এবং উদ্বেগের।                

ইএসপিএন- ক্রিক ইনফোর সাংবাদিক মহম্মদ ইসলাম জানান, বাংলাদেশের ক্রিকেট  টিমের কয়েকজন সদস্য মসজিদে উপস্থিত ছিলেন। কোনও রকমে তাঁর সেখান  থেকে বেরিয়ে যান।  বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা সকলেই সুস্থ আছেন বলে জানা গিয়েছে।  

গুলি চালনা পর থেকে গোটা দেশের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে । একাধিক জায়গায় তল্লাশি শুরু করেছেন পুলিশ আধিকারিকরা। হামলার সঙ্গে জড়িত সমস্ত  ব্যাপারটাই খতিয়ে দেখছেন গোয়েন্দারা।  কারা এই ঘটনা ঘটাল তা জানার চেষ্টা হচ্ছে।