মাটির পাত্রে শুইয়ে মেয়েকে জীবন্ত কবর বাবার! কপালজোরে বেঁচে গেল সদ্যোজাত

অবাঞ্ছিত সন্তানকে তাই পৃথিবীর আলো ভালো করে দেখতে না দিয়েই মাটির পাত্রে শুইয়ে, নিজের হাতে জীবন্ত কবর দিল বাবা।

মাটির পাত্রে শুইয়ে মেয়েকে জীবন্ত কবর বাবার! কপালজোরে বেঁচে গেল সদ্যোজাত

Bareilly, Uttar Pradesh: মেয়েকে জীবন্ত কবর দিল বাবা (প্রতীকী ছবি)

বেরিলি, উত্তরপ্রদেশ:

কোন প্রবাদ মানবেন? মেয়েদের জান কই মাছের প্রাণ? না, রাখে কেষ্ট মারে কে? দুটোই বোধহয় এই ঘটনার সঙ্গে খুব ভালো মানানসই। নিশ্চয়ই মনে মনে পুত্রসন্তান কামনা করেছিলেন বাবা। হয়েছে মেয়ে। অবাঞ্ছিত সন্তানকে তাই পৃথিবীর আলো ভালো করে দেখতে না দিয়েই মাটির পাত্রে শুইয়ে, নিজের হাতে তিন ফুট গভীর গর্ত খুঁড়ে জীবন্ত কবর দিল বাবা। কিন্তু কপালের লিখন খণ্ডায় কে! এত-র পরেও প্রাণে বেঁচে গেল চোখের বালি সেই সদ্যোজাত কন্যা (newborn girl)। এমন মর্মান্তিক ঘটনার সাক্ষী উত্তরপ্রদেশের বরিলিতে ( Uttar Pradesh's Bareilly)।

সবচেয়ে বড় উপহার তৈরি করে ভারতের ইতিহাসে নাম তুললেন অপেক্ষা

ঘটনাটি দেখতে পেয়েই রীতেশ কুমার সিরোহি নামের এক ব্যবসায়ী সদ্যোজাত সন্তানকে উদ্ধার করে তুলোয় করে দুধ খাওয়ান তাকে। মেয়েটিকে বর্তমানে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনা সম্পর্কে পুলিশ সুপার অভিনন্দন সিংয়ের মত, সিরোহির স্ত্রী বৈশালি বরেলি-র সাব ইন্সপেক্টর।

তিনি আরও জানান, বুধবার প্রসব যন্ত্রণা নিয়ে স্থানীয় একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন সারোহির স্ত্রী। বৃহস্পতিবার তিনি সাত মাসের এক প্রি-ম্যাচিওর সন্তানের জন্ম দেন। জন্মের কয়েক মিনিট পরেই সদ্যজাতের মৃত্যু হয়। নিজের সন্তানকে কবর দিতে গিয়েই এরপর ঘটে অত্যাশ্চর্য ঘটনা। মাটি খুঁড়তেই বেরিয়ে আসে মাটির পাত্রে শোয়ানো সদ্যজাত কন্যাসন্তানের দেহ। তখনও ধুকপুক করছে তার হৃদপিণ্ড।

শি'এর সঙ্গে বৈঠকের আগে মাল্লাপুরমের মনোরম সৈকত সাফাইয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদি

এরপরেই শিশুটিকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। খোঁজ চলছে অমানবিক অভিভাবকদের।

More News