বাপুকে ‘অপমান করায়’ সাধ্বীকে কোনও দিনে ক্ষমা করবেন না মোদী

Loksabha Election 2019: বাপুকে অপমান করায় আমি কোনদিন সাধ্বীকে ক্ষমা করতে পারব না: প্রধানমন্ত্রী।

বাপুকে ‘অপমান করায়’ সাধ্বীকে কোনও দিনে ক্ষমা করবেন না মোদী

এবারের নির্বাচনে নতুন করে প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠেছে গান্ধীজিকে হত্যার ঘটনাটি

হাইলাইটস

  • নাথুরাম গডসেকে গোটা পৃথিবী গান্ধীজীর হত্যাকারী হিসেবে চেনে
  • কিন্তু বৃহস্পতিবার সাধ্বী বলেন, গডসে হচ্ছেন একজন দেশভক্ত
  • প্রবল চাপের মুখে ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছেন সাধ্বী
নিউ দিল্লি:

নাথুরাম গডসেকে গোটা পৃথিবী গান্ধীজীর হত্যাকারী হিসেবে চেনে। কিন্তু বৃহস্পতিবার সাধ্বী বলেন, গডসে হচ্ছেন একজন দেশভক্ত। এই মন্তব্যের তুমুল সমালোচনা হয়েছে। প্রবল চাপের মুখে ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছেন সাধ্বী। কিন্তু গান্ধীজীকে ‘অপমান করায়' তাঁকে কোনওদিন ক্ষমা করবেন না। দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিউজ ২৪ চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাপুকে অপমান করায়  আমি কোনদিন সাধ্বীকে ক্ষমা করতে পারব না। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য থেকে পরিষ্কার ক্ষমা চেয়েও এই বিতর্ক থেকে রেহাই পাচ্ছেন না সাধ্বী। গান্ধীজিকে হত্যা করার দায় ফাঁসি হয়েছিল নাথুরামের। এবারের নির্বাচনে এ ধরনের বিষয় নতুন করে প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠেছে। 

গডসে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য, তিন নেতাকে কারণ ব্যাখ্যার নির্দেশ দিলেন অমিত

saadhvi pragya

  নির্বাচনের মরসুমে বারে বারে বিতর্ক উস্কে দিয়েছেন সাধ্বী।   

 শুধু সাধ্বী নয় বিজেপির একাধিক নেতা মন্ত্রী এ ধরনের মন্তব্য করছেন। গত দু-তিন দিনের মধ্যে বিজেপির তিন নেতা নাথুরাম গডসে কে নিয়ে এমন মন্তব্য করেছেন যা বিজেপির আদর্শের বিরোধী বলে জানিয়েছেন খোদ সভাপতি।  অমিত শাহ আজ সকালে টুইট করে বলেছেন এই তিনজন নেতা যা বলেছেন তার সঙ্গে দলের কোনও সম্পর্ক নেই।কিন্তু এই ধরনের বক্তব্যকে দল  সমর্থন করে না। দলের আদর্শের সঙ্গেও এ  ধরনের বক্তব্য খাপ খায় না। তাই তাঁদের  থেকে এ ধরনের মন্তব্য করার কারণ জানতে চাওয়া হয়েছে। পাশাপাশি গোটা বিষয়টি আপাতত বিজেপির শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটি দেখছে বলে জানিয়েছেন অমিত। 

Lok sabha Elections 2019:প্রচারের সময় কমিয়ে পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ করেছে কমিশন,দাবি কেজরিওয়ালের

Newsbeep

টিভি চ্যানেলকে দেওয়া   ওই সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চাওয়া হয় সাধ্বীকে কেন প্রার্থী করেছে বিজেপি? উত্তরে মোদী বলেন, যারা হিন্দুদের সন্ত্রাসবাদী বলে যারা হিন্দু সভ্যতার সঙ্গে সন্ত্রাসের যোগ খুঁজে পায় তাদের উত্তর দিতেই সাধ্বীকে প্রার্থী করা হয়েছিল।

এদিকে নিজের বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন সাধ্বী,  দুবার প্রকাশ্যেই নিজের মন্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি। কখনও বলেছেন দলের বক্তব্য আমার বক্তব্য। আবার কখনও বলেছেন আমি এদেশের সমস্ত মানুষের কাছে ক্ষমা চাইছি। নাথুরাম গডসেকে নিয়ে আমি যা বলেছি তা সম্পূর্ণ ভুল। আমার জাতির জনকের প্রতি সম্পূর্ণ শ্রদ্ধা  আছে।