দু'মাস আটক থাকার পর ফারুক ও ওমর আবদুল্লাহকে দলের নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাতের অনুমতি

Jammu and Kashmir: ৫ অগাস্ট কেন্দ্রের পক্ষ থেকে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের ঘোষণা করার আগের রাতে ফারুক আবদুল্লাহ ও তাঁর ছেলে ওমরকে আটক করা হয়

জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন Farooq Abdullah এবং Omar Abdullah

শ্রীনগর:

৫ অগাস্ট কেন্দ্রের পক্ষ থেকে জম্মু ও কাশ্মীরের (Jammu and Kashmir) বিশেষ মর্যাদা বাতিলের ঘোষণা করার আগের রাত থেকেই কেন্দ্রের তরফে আটক রাখা হয় ন্যাশনাল কনফারেন্সের সভাপতি ফারুক আবদুল্লাহ (Farooq Abdullah) এবং তাঁর ছেলে ওমর আবদুল্লাকে (Omar  Abdullah)। ওই আটকের দু'মাস পরে, রবিবার, শেষ পর্যন্ত জম্মু ও কাশ্মীর প্রশাসন ন্যাশনাল কনফারেন্সের দলীয় সদস্যদের তাঁদের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দিয়েছে। সংবাদসংস্থা এএনআইকে ন্যাশনাল কনফারেন্সের মুখপাত্র মদন মানতু বলেছেন, "ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দেবেন্দ্র সিং রানার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল রবিবার সকালে জম্মু থেকে তাঁদের সঙ্গে দেখা করার উদ্দেশে রওনা দেবে"।

ফারুক এবং ওমর আবদুল্লাহ, উপত্যকার দুই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকেই গত ৫ অগাস্ট জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদ করার আগের রাতে আটক করা হয়েছিল। জম্মু ও কাশ্মীর সরকারের পক্ষ থেকে পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রধান মেহবুবা মুফতি এবং কাশ্মীর ভিত্তিক অন্যান্য রাজনীতিবিদদের বিরুদ্ধেও একই রকম ব্যবস্থা নিয়েছিল। জনগণের কাছ থেকে সম্ভাব্য প্রতিক্রিয়া রোধ করতে আটক করা হয়েছিল জম্মু ও কাশ্মীরের পিপলস কনফারেন্সের চেয়ারম্যান সাজ্জাদ লোনকেও। 

কঠিন জন নিরাপত্তা আইনে আটক ফারুক আবদু্ল্লা

মানতু জানিয়েছেন, এই সাক্ষাতের বিষয়ে অনুরোধ করার পরে প্রতিনিধিদলকে আবদুল্লাদের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয় । ৮১ বছর বয়সী ফারুক আবদুল্লাকে তাঁর শ্রীনগরের বাড়িতেই গৃহবন্দি করে রাখা হয়, এবং তাঁর ছেলেকে নিকটবর্তী হরি নিবাসে আটক রাখা হয়েছে। জানা গেছে, ন্যাশনাল কনফারেন্সের ওই প্রতিনিধি দলে ১৫ জন প্রাক্তন বিধায়ক থাকবেন।

যদিও সরকার আটক করা জম্মু-ভিত্তিক রাজনৈতিক নেতাদের সম্প্রতি মুক্তি দিয়েছে, তবে অদূর ভবিষ্যতে কাশ্মীরের মানুষজনেদের ক্ষেত্রেও একই সৌজন্যতা করার কোনও সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। সূত্র অনুযায়ী খবর সত্যপাল মালিক প্রশাসন বিশ্বাস করে যে মেহবুবা মুফতি ও আবদুল্লাদের বিরুদ্ধে সময়মতো প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের কারণেই ৫ অগাস্টের সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরেও রাজ্যটি কোনওরকম অপ্রীতিকর পরিস্থিতি বা "রক্তপাত"-এর হাত থেকে রেহাই পেয়েছে।

Kashmir LIVE Updates: আগস্ট থেকে রাজ্যে একটিও গুলি চলেনি, জানাল কেন্দ্র

"এই অঞ্চলের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার কারণেই এই নেতাদের আটক করা হয়। এই অবরুদ্ধির ফলাফল স্পষ্ট। অতীতে যেমন দেখা গেছে, কাশ্মীরে সবসময়েই এ জাতীয় কোনও পদক্ষেপ গ্রহণের পরেই রক্তক্ষয়ের মতো ঘটনা ঘটেছে । এবার কিন্তু এই ঘটনা ঘটেনি। কারণ এই নেতাদের আটক করে পরিস্থিতি থেকে দূরে রাখা হয়েছিল," জম্মু ও কাশ্মীরের রাজ্যপালের উপদেষ্টা ফারুক খান শুক্রবার এনডিটিভিকে জানান এ কথা।

এর আগে ওমর আবদুল্লা কমপক্ষে দু'বার তাঁর বোন সাফিয়া এবং কাকিমা সুরয়া মটটুর সঙ্গে দেখা করেন।

এই পুজোর উদ্বোধন করলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, দেখে নিন সেই ভিডিও: