জনসুরক্ষা আইন লাগু হতে পারে ওমর আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতির বিরুদ্ধে: সূত্র

নাম প্রকাশ না করার শর্তে, এক পুলিশ আধিকারিক NDTV কে জানান, ওমর আবদুল্লা ও মেহবুবা মুফতির আটকের পরোয়ানায় স্বাক্ষর করবেন এক জেলা শাসক

জনসুরক্ষা আইন লাগু হতে পারে ওমর আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতির বিরুদ্ধে: সূত্র

গত বছরের ৫ অগস্ট থেকে বন্দি রয়েছেন ওমর আবদুল্লা (ফাইল)

শ্রীনগর/নয়াদিল্লি:

গত ৬ মাস ধরে গৃহবন্দি রয়েছেন জম্মু ও কাশ্মীরের (Jammu and Kashmir) প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা (Omar Abdullah)  এবং মেহববা মুফতি (Mehbooba Mufti), সূত্রের খবর, তাঁদের বিরুদ্ধে জনসুরক্ষা আইন (Public Safety Act)  লাগু হতে পারে বলে সূত্র মারফৎ জানতে পেরেছে NDTV,  কোনও বিচারপ্রক্রিয়া ছাড়াই এই আইনে ২ বছর পর্যন্ত কাউকে আটক করে রাখা যেতে পারে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে, এক পুলিশ আধিকারিক NDTV কে জানান, ওমর আবদুল্লা ও মেহবুবা মুফতির আটকের পরোয়ানায় স্বাক্ষর করবেন এক জেলা শাসক। এই আইনের মাধ্যমে কোনও বিচারপ্রক্রিয়া ছাড়াই দুই নেতাকে ৩ মাস জেলে থাকতে হতে পারে।

 ‘‘কাশ্মীরের পরিচয় সমাধিস্থ হয়েছিল ১৯৯০-এর ১৯ জানুয়ারি রাতে'': প্রধানমন্ত্রী

গত সেপ্টেম্বরে একই আইন লাগু করা হয় ওমর আবদুল্লার বাবা ফারুক আবদুল্লার বিরুদ্ধেও, এবং অগস্ট থেকেই তাঁকে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে। এই আইনে ৮৩ বছর বয়সী এই রাজনীতিবিদের বিরুদ্ধে “সরকারি নির্দেশ লঙ্ঘন” করার অভিযোগ আনা হয়েছে, যার অর্থ তিন মাসের কম সময় আটক করে রাখা।

অগস্টে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার করা এবং রাজ্যটিকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রে শাসিত অঞ্চলে ভাগ করা হয়, তারই পদক্ষেপ হিসেবে, ওমর আবুদুল্লা, ফারুক আবদুল্লা, মেবুবা মুফতি সহ শতাধিক রাজনীতিবিদকে আটক অথবা গ্রেফতার করা হয়।

জম্মু ও কাশ্মীর পরিদর্শনে যাওয়া মন্ত্রীদের থেকে রিপোর্ট চাইল প্রধানমন্ত্রীর দফতর

ফারুক আবদুল্লাই প্রথম মূল স্রোতের রাজনীতিবিদ, যাঁর বিরুদ্ধে এই জনসুরক্ষা আইন কার্যকরা করা হয়। তিনি তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী এবং সাংসদ। বিশেষ করে এই আইন জঙ্গি, বিচ্ছিন্নতাবাদী বা পাথর ছোঁড়ায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আনা হয়।

এই আইনকে আগে বলা হত জম্মু ও কাশ্মীর সুরক্ষা আই, যেটি এনেছিলেন ফারুক আবদুল্লার বাবা এবং প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শেখ আবদুল্লা, পাচারকারীদের ধরতে এই আইন এনেছিলেন তিনি।

আজকের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি দেখতে ক্লিক করুন: 

জন সুরক্ষা  আইনে খুবই “কড়া আইন” বলা হয়, এই আইনের মাধ্যমে কোনও ব্যক্তির আচরণ “প্ররোচনামূলক, উত্তেজক বা সরকারি নির্দেশ অমান্য হতে পারে এমন”, হলে তাঁকে আটক করা যায় এই আইনে।

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com