হাউডি মোদি অনুষ্ঠানে, ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে নেহেরুর দৃষ্টিভঙ্গির প্রশংসা মার্কিন সেনেটরের

Howdy Modi Event: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দলের নেতারা প্রায়ই ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী এবং কংগ্রেসের অন্যতম আইকন জহওরলাল নেহেরুর সমালোচনা করেন

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS

ভারতকে ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক করে তুলতে নেহেরুর দৃষ্টিভঙ্গির কথা বলেব মার্কিন সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা স্টিনি হোয়ার


হাউস্টন: 

রবিবার হাউস্টনের অনুষ্ঠানে উষ্ণ অভ্যর্থনা পেলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, প্রায় ৫০,০০০ ইন্দো-মার্কিন নাগরিকের উপস্থিতিতে রেড কার্পেটে অভ্যর্থনা জানানো হল ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে, তাঁকে স্বাগত ভাষণে, মহাত্মা গান্ধি ও জহওরলাল নেহেরুর প্রশংসা করলেন এক মার্কিন সিনিয়র সেনেটর। হাউসের সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা স্টিনি হোয়ার বলেন, “আমেরিকার মতো, ভারত, গান্ধিজির শিক্ষা এবং ভারতকে ধর্মনিরপেক্ষ গণতন্ত্র করে তুলতে নেহেরুর দৃষ্টিভঙ্গির মাধ্যমে প্রাচীণ পরম্পরায় গর্বিত, যেখানে বহুত্ত্ববাদ ও মানবধিকার প্রত্যেকজনার আত্মরক্ষা”। ডেমোক্র্যাটিক পার্টির ওই সিনিয়র সেনেটর “শক্তিশালীর মতোই, দুর্বলকেও সমানাধিকার দেওয়ার জন্য” গণতন্ত্রই অস্ত্র, এই কথা বলতে গিয়ে গান্ধিজির বক্তব্য তুলে ধরেন।

“পরেরবার ট্রাম্পের সরকার”, হাউস্টনে বললেন প্রধানমন্ত্রী মোদি

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দলের নেতারা প্রায়ই ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী এবং কংগ্রেসের অন্যতম আইকন জহওরলাল নেহেরুর সমালোচনা করেন। হাউস্টনে প্রধানমন্ত্রী মোদির অনুষ্ঠানের কয়েকঘন্টা আগে, পাক অধিকৃত কাশ্মীর তৈরি হওয়ার জন্য জহওরলাল নেহরুর সমালোচনা করেন বিজেপি সভাপতি তথা, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। মুম্বইয়ের একটি অনুষ্ঠানে অমিত শাহ বলেন, ১৯৪৭-এ নেহেরুর “অসময়ে যুদ্ধবিরতি” ঘোষণার কারণে,  জম্মু ও কাশ্মীরে বিশেষ মর্যাদা এবং সঙ্গে সঙ্গেই উপত্যকায় সন্ত্রাসের জন্ম হয়েছে।

পাক-অধিকৃত কাশ্মীরের জন্য দায়ী জওহরলাল নেহেরু, বললেন অমিত শাহ

হাউস্টনে স্টিনি হোয়ার বলেন, “টেক্সাসে আমরা প্রধানমন্ত্রী মোদিকে স্বাগত জানাচ্ছি, চ্যালেঞ্জের দৃষ্টিভঙ্গিতে তাঁর নেতৃত্বে আধুনিক ভারতের দ্বারা আমরা অনুপ্রাণিত। নতুন উচ্চতায় পৌঁছানোর জন্য তারা অব্যাহত, এবং সমানভাবে মিলিয়ন সংখ্যাক মানুষকে দরিদ্রতার সীমা থেক তুলতে আতে বদ্ধপরিকর। শিক্ষা দিতে বদ্ধপরিকর, পরিষ্কার জল, স্বাস্থ সচেতনতা, এবং সবুজ ও সুস্থ ভারত গড়ে তুলতে নয়া অত্যাধুনিক শক্তি প্রযুক্তির উন্নয়নে সাহায্য করার জন্য”।

৩৭০ ধারা নিয়ে দাঁড়িয়ে সম্মান প্রদর্শনের অনুরোধ প্রধানমন্ত্রী মোদির

তিনি আরও বলেন, “আমি গর্বিত যে, ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান, দুই তরফেই ভারত ও মার্কিন সম্পর্ক একসঙ্গে সেই লক্ষ্যের এবং আমাদের এক নীতিতে চলেছে। সম্প্রতি কয়েকদশকে, প্রেসিডেন্ট ক্লিনটনের, ভারত-মার্কিন সম্পর্ক আরও মজবুত করার দৃষ্টিভঙ্গি ছিল। প্রেসিডেন্ট বুশ দুই রাষ্ট্রের সম্পর্ক মজবুত করেছিলেন এবং প্রেসিডেন্ট ওবামা আরও মজবুত করেছিলেন। আজও চালিয়ে যাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প”।



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................