This Article is From Jun 13, 2020

লকডাউনে দেদার চলেছে ই-লার্নিং! কিন্তু দেশের ৫৫% পড়ুয়ার স্মার্টফোন নেই: সমীক্ষা

দেশের প্রায় ৬৭% পড়ুয়ার ঘরে টিভি আছে। আর ৩১% পড়ুয়ার ঘরে টিভি নেই

লকডাউনে দেদার চলেছে ই-লার্নিং! কিন্তু দেশের ৫৫% পড়ুয়ার স্মার্টফোন নেই: সমীক্ষা

প্রতীকী ছবি।

হাইলাইটস

  • লকডাউনে ই-লার্নিংয়ে জোর দিয়েছিল সরকারি ও বেসরকারি স্কুলগুলো
  • কিন্তু এই ক্লাস নিতে কতটা প্রস্তুত দেশের পড়ুয়ারা। সমীক্ষা চালানো হয়েছিল
  • সমীক্ষায় জানা গিয়েছে; মাত্র ৪৫% পড়ুয়ার স্মার্টফোন আছে
নয়াদিল্লি:

করোনা সংক্রমণ রোধে (Covid-19) বন্ধ স্কুল-কলেজ। কবে ফের ক্লাস শুরু হবে, জানে না কোনওপক্ষ। তবে পড়ুয়াদের পঠনপাঠনের অভ্যাস জারি রাখতে অনলাইন ক্লাসে (E-Learning) অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্র-রাজ্য। কিন্তু অনলাইন ক্লাসের জন্য ন্যূনতম প্রয়োজন স্মার্টফোন। আর সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায় এই বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। দেশের প্রায় ৫৫% পড়ুয়া স্মার্টফোন ব্যবহারকারী নয়। মাত্র ৪৪ শতাংশ পড়ুয়া স্মার্টফোন ব্যবহার করে। স্মাইল ফাউন্ডেশন নামে এনজিও'র করা সমীক্ষায় এই উদ্বেগজনক পরিসংখ্যান উল্লেখ করা হয়েছে। অনলাইন ক্লাসে আরও একটা জিনিস প্রয়োজন। সেটা হল টেলিভিশন। সমীক্ষায় সেই পরিসংখ্যানে সামান্য স্বস্তি প্রকাশ করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, দেশের প্রায় ৬৭% পড়ুয়ার ঘরে টিভি আছে। আর ৩১% পড়ুয়ার ঘরে টিভি নেই।

ওই এনজিও'র তরফে বলা হয়েছে, প্রাথমিক স্তরে ১৯, ৫৭৬ জন পড়ুয়াকে সমীক্ষার আওতাভুক্ত করা হয়েছে। অন্যদিকে উচ্চপ্রাথমিকে ১২, ২৭৭ জনকে সমীক্ষার আওতাভুক্ত করা হয়েছে। মাধ্যমিকস্তরে ৫৫৩৭ জনকে রাখা হয়েছিল আর উচ্চমাধ্যমিক স্তরে ৩২১৬ জনের মধ্যে এই সমীক্ষা চালানো হয়েছে। এনজিও'র খাতায় নথিভুক্ত পড়ুয়াদের থেকে ফোনে এই সমীক্ষা করা হয়েছে। আর এনজিও'র আশাকর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে সমীক্ষা করেছে। এমনটাই  উল্লেখ সেই সমীক্ষা রিপোর্টে।

দেশের ভবিষ্যৎ অর্থাৎ স্কুলপড়ুয়াদের মধ্যে প্রযুক্তির বাড়বাড়ন্ত কতটা? এই সমীক্ষার সেটাই বিষয় ছিল। দিল্লি; গুজরাত, পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র-সহ দেশের ২৩টা রাজ্যে করা হয় এই সমীক্ষা। ১৬-২৮ এপ্রিল; প্রায় ১২ দিন ধরে চলেছে এই কর্মযজ্ঞ।