রাষ্ট্রপতি পদকপ্রাপ্ত কাশ্মীরের পুলিশ আধিকারিক আটক হিজবুল জঙ্গিদের সঙ্গে

গত বছরের ১৫ আগস্ট রাষ্ট্রপতির সাহসিকতার পুলিশ পদক পান দেবেন্দর সিংহ। সেই তিনিই এবার দিল্লি যাওয়ার পথে আটক হলেন জঙ্গিদের সঙ্গে।

রাষ্ট্রপতি পদকপ্রাপ্ত কাশ্মীরের পুলিশ আধিকারিক আটক হিজবুল জঙ্গিদের সঙ্গে

ওই পুলিশ আধিকারিকের বাড়ি থেকে পুলিশ একটি একে-৪৭ ও দু’টি পিস্তল উদ্ধার করেছে।

শ্রীনগর:

রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে সাহসিকতার পদকপ্রাপ্ত (Pesident's Medal For Bravery) জম্মু ও কাশ্মীরের (J&K) এক পুলিশ আধিকারিককে শনিবার আটক করা হল দু'জন জঙ্গির সঙ্গে (J&K Cop Caught With Hizbul Terrorists)। শ্রীনগর-জম্মু হাইওয়ে দিয়ে একটি গাড়িতে সফররত অবস্থায় তাদের আটক করা হয়। পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, তারা দিল্লিতে যাচ্ছিল। আটক পুলিশ আধিকারিকের নাম দেবেন্দর সিংহ। শ্রীনগরের আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর এলাকায় পোস্টিং ছিল পুলিশের ডেপুটি সুপারিটেন্টেন্ট দেবেন্দরের। কুলগাম জেলার ওয়া‌নপোহে তাঁকে আটক করা হয়েছে জঙ্গি সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিনের জঙ্গি নাভিদ বাবুর সঙ্গে। গত বছর অক্টোবর ও নভেম্বরে দক্ষিণ কাশ্মীরে ১১ জন ভিন রাজ্যের ট্রাক চালক ও শ্রমিকদের হত্যাকাণ্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগ রয়েছে নাভিদের উপরে।

গত আগস্টে জম্মু ও কাশ্মীরের ‘স্পেশাল স্ট্যাটাস' তুলে নেওয়ার পর কাশ্মীরের আপেল বাগানে কাজ করতে আসা শ্রমিকদের লক্ষ্য করে একাধিক হত্যাকাণ্ড চালানো হয়। পুলিশ সূত্র জানাচ্ছে, তারা নাভিদের গতিবিধির দিকে নজর রাখছিল। সে নিজের ভাইকে ফোন করার সময় তার ‘লোকেশন' চিহ্নিত করতে পারে পুলিশ।

"সেনাবাহিনী ভারতের সংবিধান রক্ষার শপথ গ্রহণ করেছে": বললেন সেনাপ্রধান

প্রসঙ্গত, নাভিদও একজন প্রাক্তন এসপিও। তার সঙ্গে ছিল আসিফ নামের আরও এক জঙ্গি। তাদের সঙ্গে আটক করা হয় দেবেন্দর সিংহকে।

গত বছরের ১৫ আগস্ট রাষ্ট্রপতির সাহসিকতার পুলিশ পদক পান দেবেন্দর সিংহ।

"পুলিশ এবিভিপির হয়ে কথা বলছে": জেএনইউ হামলা প্রসঙ্গে বললেন কানহাইয়া কুমার

দেবেন্দর ও নাভিদ বাবুকে আটক করার পাশাপাশি পুলিশ একাধিক স্থানে তল্লাশি চা‌লিয়েছে। শ্রীনগর ও দক্ষিণ কাশ্মীরে তল্লাশি চালিয়ে বহু অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

দেবেন্দরের শ্রীনগরের বাদামি বাগ ক্যান্টমেন্টের বাড়ি থেকে পুলিশ একটি একে-৪৭ ও দু'টি পিস্তল উদ্ধার করেছে। নাভিদ বাবুর স্বীকারোক্তির সাহায্যে আরও এক জায়গা থেকে একে রাইফেল ও পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, কেন এক পুলিশ আধিকারিকের সাহায্যে তারা দিল্লি যাচ্ছিল, সে বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। সূত্রানুসারে, দেবেন্দর সিংহ এদিন কাজে যোগ দেননি। তিনি রবিবার থেকে চারদিনের ছুটির জন্য আবেদন করে রেখেছিলেন।

২০১৩ সালে সংসদে হামলাকারী জঙ্গি আফজল গুরুর লেখা একটি চিঠি প্রকাশ্যে আসে। সেই চিঠি থেকে জানা গিয়েছিল, দেবেন্দর তাকে সংসদে হামলার ছক কষতে বলেন এবং তার জন্য দিল্লিতে থাকার বন্দোবস্ত করে দেওয়ার কথাও জানান। সেই চিঠি প্রকাশ্যে আসার পর প্রথম বার আলোচনায় উঠে আসে দেবেন্দরের নাম। 

More News