জোড়া সঙ্কট মোকাবিলায় বাংলার অদম্য ইচ্ছাশক্তিকে কুর্নিশ করে টুইট মুখ্যমন্ত্রীর

তাঁর এই টুইটের সমালোচনায় সরব বিজেপি। গত কয়েকদিন ধরে করোনা ও আমফান বিপর্যয়ে রাজ্য সরকারের ব্যর্থতার প্রসঙ্গ তুলে ধরে সরব হয়েছে গেরুয়া শিবির

জোড়া সঙ্কট মোকাবিলায় বাংলার অদম্য ইচ্ছাশক্তিকে কুর্নিশ করে টুইট মুখ্যমন্ত্রীর
কলকাতা:

সঙ্কট মোকাবিলায় (Corona in Bengal) রাজ্যবাসীর অদম্য ইচ্ছাশক্তিকে কুর্নিশ জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata)। একে করোনায় রক্ষা নেই; আমফান তার দোসর। এই পরিস্থিতিতে প্রশাসনের পাশে ইতিবাচক ভাবে থাকতে দেখা গিয়েছে রাজ্যবাসীকে। শুক্রবার এমন দাবিও করেছেন তিনি। এদিন টুইট করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন; "বাংলার সংস্কৃতি ও অদম্য ইচ্ছাশক্তির বলে আমরা জোড়া বিপর্যয়ের সঙ্গে লড়াই করছি। এই সঙ্কট আমরা অবশ্যই কাটিয়ে উঠব। এবং আগামি দিনে আরও ঐক্যবদ্ধ হব।" এমনকি এই সঙ্কটকালে যাঁরা সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন টুইটে তাঁদের প্রশংসাও করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি রাজ্য সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে টুইটে লেখেন; "আমি সব ত্রাণকর্মী, পুলিশ, স্বাস্থ্যকর্মী, সাফাইকর্মী, নাগরিক সমাজকে ধন্যবাদ জানাব। সঙ্কট মোকাবিলায় এঁরা সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। যদিও আমাদের আরও সতর্ক হতে হবে। অনুগ্রহ করে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন আর শরীরের খেয়াল রাখুন।"

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আবেদন; "যেহেতু পরিবহণ কম, তাই দেরিতে অফিস প্রবেশে লেট মার্কস পড়বে না। বেসরকারি সংস্থাগুলো এ ব্যাপারে সহানুভূতিশীল হোক। প্রয়োজন ছাড়া গণজমায়েত স্থলে যাবেন না। নিরাপদ থাকুন আর সুস্থ থাকুন।" ভিড় বাস এড়িয়ে চলতেও পরামর্শ দেন তিনি।

তাঁর এই টুইটের সমালোচনায় সরব বিজেপি। গত কয়েকদিন ধরে করোনা ও আমফান বিপর্যয়ে রাজ্য সরকারের ব্যর্থতার প্রসঙ্গ তুলে ধরে সরব হয়েছে গেরুয়া শিবির। স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, একদিনে ৪৪০ জন সংক্রমিত। রাজ্যে মোট সংক্রমিত ৯৭৬৮ জন। একদিনে মৃত্যু হয়েছে দশ জনের। মোট মৃত ৪৪২ জন।