ভারতে জন্মালেও আফগানিস্তানে খতম আল-কায়েদার দক্ষিণ এশিয়ার প্রধান!

"আন্তর্জাতির সন্ত্রাসবাদী" হিসাবে চিহ্নিত বছর চল্লিশের Asim Umar ভারতীয় উপমহাদেশে "বিদেশি সন্ত্রাসবাদী সংগঠন" আল কায়েদার দক্ষিণ এশিয়ার প্রধান ছিলেন।

ভারতে জন্মালেও আফগানিস্তানে খতম আল-কায়েদার দক্ষিণ এশিয়ার প্রধান!

Al-Qaeda: ২৩ সেপ্টেম্বর মার্কিন-আফগানিস্তানের যৌথ অভিযানের সময় আসিম উমরের মৃত্যু হয়

ইসলামাবাদ:

আফগানিস্তানের (Afghanistan) হেলমান্দ প্রদেশে তালিবানদের একটি আস্তানা ঘিরে মার্কিন-আফগানিস্তানের যৌথ অভিযান চলাকালীন খতম হন ভারতীয় উপমহাদেশে "বিদেশি সন্ত্রাসবাদী সংগঠন" আল কায়েদার দক্ষিণ এশিয়ার প্রধান তথা "আন্তর্জাতির সন্ত্রাসবাদী" হিসাবে চিহ্নিত বছর চল্লিশের আসিম উমর (Asim Umar)। আফগান কর্মকর্তারা জানিয়েছেন যে ওই (Al-Qaeda) সন্ত্রাসবাদী নেতার জন্ম আসলে ভারতেই। আল-কায়েদার নেতা আইমান আল জাওয়াহিরি ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে একটি ভিডিও বার্তায় ভারত, মিয়ানমার ও বাংলাদেশে লড়াইয়ের লড়াইয়ের জন্য একিউআইএস গঠনের ঘোষণা করেন। তখন থেকেই একিউআইএসকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন আসিম উমর। আফগানিস্তানের জাতীয় সুরক্ষা অধিদফতর (এনডিএস) জানিয়েছে, ২৩ সেপ্টেম্বর হেলমান্দ প্রদেশের মুসা কালা জেলায় একটি তালিবান ঘাঁটিতে মার্কিন-আফগানিস্তানের যৌথ অভিযান চলাকালীন মৃত্যু হয় ওই কুখ্যাত সন্ত্রাসবাদীর।

ওই বিবৃতিতে আরও জানানো হয়েছে যে, উমর ছাড়াও আরও ৬ জন একিউআইএস সদস্যকে হত্যা করা হয় ওই অভিযানের দ্বারা, যাঁদের মধ্যে বেশিরভাগই পাকিস্তানি। নিহতদের মধ্যে রয়েছেন রায়হান, যিনি উমরের হয়ে আল-জাওয়াহিরির কাছে খবর পৌঁছে দিতেন।

ওসামা বিন লাদেনের ছেলের মৃত্যু হয়েছে, জানালেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

ভারতীয় উপমহাদেশে "বিদেশি সন্ত্রাসবাদী সংগঠন" আল কায়দার দক্ষিণ এশিয়ার প্রধান আসিম উমরকে "আন্তর্জাতির সন্ত্রাসবাদী" হিসাবে ঘোষণা করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে উমর আরেকটি বিদেশি সন্ত্রাসবাদী সংগঠন হরকত-উল-মুজাহিদিনের সদস্য ছিলেন । পাকিস্তান ভিত্তিক এই সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীর ভারতীয় উপমহাদেশের শাখা ছিল, যার নেতৃত্ব দিতেন আসিম উমর।

উত্তরপ্রদেশের সাম্ভালে সানা-উল হক নামে জন্মগ্রহণকারী উমর ১৯৯১ সালে দেওবন্দের দারুল উলূম মাদ্রাসা থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। কিন্তু পরে তিনি পাকিস্তান চলে যান এবং সেখানে 'জিহাদি বিশ্ববিদ্যালয়' বলে কুখ্যাত দারুল উলূম হাক্কানিয়া নওশেরাতে পড়াশুনা করেন।

ফের পাকিস্তানের দিক থেকে পাঞ্জাবে প্রবেশ করল ড্রোন, তল্লাশি শুরু

একিউআইএস ২০১৪ সালের ৬ সেপ্টেম্বর করাচিতে একটি নৌ ডকইয়ার্ডে হামলার দায় স্বীকার করেছিল, যেখানে সন্ত্রাসবাদীরা পাকিস্তানি নৌবাহিনীর একটি ফ্রিগেট হাইজ্যাক করার চেষ্টা করে।

পরবর্তীতে ওই সন্ত্রাসবাদী সংগঠনটি মার্কিন নাগরিক অভিজিৎ রায়, মার্কিন দূতাবাসের স্থানীয় কর্মচারী জুলহাজ মান্নান, এবং বাংলাদেশি নাগরিক ওসাইকুর রহমান বাবু, আহমেদ রাজিব হায়দার এবং একেএম শফিউল ইসলাম সহ বাংলাদেশের নেতাকর্মী ও লেখকদের হত্যার দায়ও স্বীকার করে।

দেখুন ভিডিও:

More News