ইনস্টায় পরিচয়, টিকটকে ডেটিং! লকডাউন উঠলেই কি সপ্তপদী?

সোশ্যালে প্রথম ডেটিং-এ সেজেগুজে একই খাবার অর্ডার দিয়েছিলেন তাঁরা দুই প্রান্ত থেকে।

ইনস্টায় পরিচয়, টিকটকে ডেটিং! লকডাউন উঠলেই কি সপ্তপদী?

সামাজিক দূরত্ব মেনেই গাঢ় প্রেম যুগলের

যেসব বাঙালি পাঠক এই খবরটি পড়বেন তাঁদের হয়ত মনে পড়লেও পড়তে পারে, আরতি মুখোপাধ্যায়ের সেই কালজয়ী গান, ‘এক বৈখাখে দেখা হল দু'জনার....জষ্ঠীতে হল পরিচয়'। সেই গানেরই যেন আধুনিক রূপ এই যুগলের প্রেম! যাঁদের পরিচয় ইনস্টায়। দীর্ঘ ডেটিং টিকটকে। এঁদের প্রেম কাহিনি ভাইরাল সোশ্যালে। সব দেখে শুনে তাজ্জব নেটিজেনদের কৌতূহল, লকডাউন উঠলেই কি চার হাত এক হয়ে শুভ কাজ সম্পন্ন হবে? একদম ঠিক পড়ছেন। ম্রুণাল পাঞ্চাল (Mrunal Panchal)-এর প্রেম এভাবেই শুরু অনিরুদ্ধর (Anirudh) সঙ্গে। সোশ্যালে ভিডিও কলে সেই ভালোবাসা গাঢ় থেকে গাঢ়তর। দুজনের মধ্যে যোজন দূরত্ব। কিন্তু সেই দূরত্ব কোনোদিন বাধা হয়ে দাঁড়িতে পারেনি। বরং ইনস্টা থেকে টিকটক হয়ে আজকের প্রজন্মের কাছে এই যুগল উদাহরণ। আশা জাগাচ্ছেন তাঁদের মনে, যাঁরা লকডাউনে ঘরবন্দি থেকে সোশ্যালে ভালোবাসাকে রোজ নতুন করে অক্সিজেন দিচ্ছেন।

রোগীদের বিনোদনে পাক চিকিৎসক চিয়ার লিডার! ভরপুর বিদ্রূপ গৌতম গম্ভীরের

ভালোবাসা নিয়ে অকপট প্রেমিকার দাবি, অনিরুদ্ধ প্রোফাইল এতটাই দৃষ্টিনন্দন যে এক দেখাতেই ভালো লেগেছিল। তারপর প্রোফাইলে ঢুকে সমস্ত দেখার পড়ে ডাক পাঠান তিনি। সাড়া পেতেও বেশি দেরি হয়নি। একবারের ডাকেই অনিরুদ্ধ ফিরে ডেকেছিলেন ম্রুণালকে। এভাবেই ভালোলাগা। তারপর ভালোবাসা। চ্যাট শুরু। শেষে বাঁধভাঙা ভিডিও কল।

কানাডার অনিরুদ্ধ আর ভারতের ম্রুণাল, এভাবেই লক্ষ যোজন দূর থেকে বাঁধা পড়েছিলেন সম্পর্কে। তাঁরা উভয়েই কনটেন্ট তৈরি করেন। তাই প্রায়ই নতুন ভাবনার আদানপ্রদান চলত তাঁদের মধ্যে। সেই কথা আস্তে আস্তে প্রেমকথা হতেই টিকটকে ডেটিং শুরু। নির্দিষ্ট তারিখে তাঁরা ভিডিও শেয়ার করে একে অপরের সঙ্গে মুখোমুখি হতেন। সোশ্যালে প্রথম ডেটিং-এ সেজেগুজে একই খাবার অর্ডার দিয়েছিলেন তাঁরা দুই প্রান্ত থেকে। এর পর মাস তিনেক বাদে পুণেতে আসেন অনিরুদ্ধ। চাক্ষুষ করেন প্রথম প্রিয়াকে।

ঘন জঙ্গলে লুকিয়ে সাপ! খুঁজে বের করুন তো?

এখন দুই বাড়ির একে অন্যের সমস্ত খুঁটিনাটি জানেন। দুজনকেই পছন্দ করেন। বিয়ে প্রায় হব হব। কিন্তু এখনও কানাডায় কাজের মেয়াদ ফুরোয়নি অনিরুদ্ধের। তিনি ফিরলেই সপ্তপদী হবে সমস্ত নিয়ম মেনে।

“Heads up! Our story is as millennial as it gets–we met on Instagram. When I saw Anirudh's profile, I loved his feed. So after I stalked the hell out of him, I messaged him–or slid into his DMs! He replied instantly & we began chatting. I'd never met him but within an hour of texting, it felt like we'd known each other...since forever? ⁣ Soon, we couldn't get through a day without talking to each other. He was studying in Canada & I was in India so the time difference was tough but we found a way to talk–sleep could wait. ⁣ Also, we're both content creators, so when he asked me to do a Tik Tok Duet with him, I was game. We had so much fun! But, we also realized how much we felt for each other. So he asked me out on a ‘virtual date' where we dressed up, ordered the same food & video called each other! It was so romantic–he managed to sweep me off my feet from thousands of miles away! That night, I told him I loved him, & he did too. ⁣ But we hadn't met so there was that fear of things going flat when we met in person.⁣ So, 3 months after our virtual romance, he came to Pune to see me & give this a real shot. For a month, I showed him around, took him to my favorite spots & spent time with him. But I knew he had my heart the second I saw him.⁣ So, we became ‘official' & told our family & friends, but he had to go back to Canada to finish his last month–I missed him so much as the long distance resumed. ⁣ It was also tough because Anirudh could stay there after graduation. But then he told me he was coming back–I was on cloud 9. He said his heart belongs with me in India.⁣ After, we both moved to Bombay & got 2 different flats in the same building. ⁣ Finally, from being a thousand miles away, we're now just a floor apart. Virtual dates have turned into breakfast in bed & Skype sessions are now fairy lit netflix nights at home. ⁣ But he still finds a way to sweep me off my feet. Recently, he gave up a huge work opportunity to stand by my side as I won an award for ‘Iconic Influencer of the Year'! We're only a year old, but somehow time isn't a measure; it feels like a love of a lifetime with him. I guess that's our story–a modern day love with an old school heart!"

A post shared by Humans of Bombay (@officialhumansofbombay) on

ম্রুণাল এবং অনিরুদ্ধের প্রেমের গল্প ইতিমধ্যেই ইনস্টাগ্রামে লাইক পেয়েছে ১.৩ লক্ষ। শয়ে শয়ে মন্তব্য ভিড় করেছেন ইনবক্সে। অনেকেই বলছেন, একুশের বুকেও এত ভালোবাসা লুকিয়ে! যন্ত্রও এত প্রেমময়! নিশ্চয়ই তাই-ই। নইলে কী করে লেখা হল নয়া রূপকথা'?