This Article is From Jul 03, 2019

প্রযুক্তিগত সমস্যায় বেহাল হোয়াটস অ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুক

ভারতে হোয়াটস অ্যাপের চ্যাট বা ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করার সমস্যা সেভাবে না হলেও কোনো অডিও বা ইমেজ শেয়ারের ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা দেয়

প্রযুক্তিগত সমস্যায় বেহাল হোয়াটস অ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুক

ফের বেহাল অ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুক, হোয়াটস অ্যাপে সমস্যা

ওয়াশিংটন:

ফের অ্যাপ ঘটিত সমস্যায় নাজেহাল নেটিজেনরা।বুধবার ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটস অ্যাপ এবং ফেসবুক (Instagram, WhatsApp and Facebook) ব্যবহারকারীদের অভিযোগ যে বারবার অ্যাপগুলিতে লগ ইনের সমস্যা( facing problem) সহ শেয়ারিং এবং কোনো কিছু ডাউনলোড করার ক্ষেত্রে ব্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে।ইউরোপ, আমেরিকা, আফ্রিকা সহ বিভিন্ন জায়গায় এই সমস্যায় পড়েন ব্যবহারকারীরা।যদিও ভারতে হোয়াটস অ্যাপ বা ইনস্টাগ্রামে কোনো কিছু পোস্ট করার ক্ষেত্রে সমস্যা না হলেও মিডিয়া ফাইল যেমন অডিও, ইমেজ এগুলি আদান প্রদানে বড়সড় সমস্যায় পড়তে হয়।“আমরা জানি যে কিছু সাধারণ মানুষ এবং ব্যবসায়ীদের আমাদের অ্যাপগুলির মাধ্যমে ফাইল আপলোড বা ডাউনলোড করতে বা ছবি আদানপ্রদানে সমস্যা হচ্ছে।আমরা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার জন্যে কাজ করছি।এই সমস্যার জন্যে দুঃখপ্রকাশ করছি আমরা”,জানিয়েছেন ফেসবুকের এক মুখপাত্র ।

হোয়াটস অ্যাপে ছবি ডাউনলোড করতে গেলে নোটিফিকেশন আসছে যে, “ডাউনলোড করা সম্ভব হচ্ছে না। যিনি এই ফাইলটি পাঠিয়েছেন তাঁকে সেটি ফের পাঠানোর জন্যে অনুরোধ করুন”।

তবে মিডিয়া ডাউনলোডের ক্ষেত্রে সমস্যা হলেও কিছু ফাইল পাঠানো যাচ্ছে এখনও।

অ্যাপস ব্যবহারকারীরা এই সমস্যায় পরেই ট্যুইটারে একের পর এক অভিযোগ জানাতে থাকেন।এমনকি বলিউড অভিনেত্রী শ্রুতি হাসানও ওই সমস্যায় পড়ে অভিযোগ জানান।

“হোয়াটস অ্যাপ ইনস্টাগ্রাম ও ফেসবুক বসে গেছে। এগুলি কি বন্ধ হয়ে গেল আশঙ্কা হচ্ছে।এগুলি কাজ করতে প্রচুর সময় নিচ্ছে”,লেখেন শ্রুতি।“আমার ট্যুইটারই ভালো, এটা কখনো বসে যায় না। ট্যুইটার যেনো বাড়ির মতো”,লেখেন তিনি।

“মার্ক জুকেরবার্গের হোয়াটস অ্যাপ,ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম বিশ্বজুড়েই বসে গেছে।আমরা এগুলি স্বাভাবিক করার দাবি জানাচ্ছি”, লেখেন আরও একজন।

চলতি বছরের জুনেও ঠিক এরকমই ঘটনা ঘটেছিল ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারীদের সঙ্গে।কিছু ব্যবহারকারী অভিযোগ জানিয়েছিলেন যে তাঁরা ইন্সটাগ্রাম একসেস করতে পারছেন না।প্রায় ঘণ্টা খানেকেরও বেশি সময় পর সেটি স্বাভাবিক হয়।

সেই রেশ কাটতে না কাটতেই বুধবারের এই অ্যাপ বিপর্যয় চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে নেটিজেনদের কপালে।