PM Modi Birthday: ‘‘প্রকৃতি আমাদের কাছে আরাধ্য’’ বললেন প্রধানমন্ত্রী

Happy Birthday Narendra Modi: দেশজুড়ে নানা ভাবে পালিত হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী মোদির ৬৯তম জন্মদিন। গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে পালিত হচ্ছে ‘সেবা সপ্তাহ’।

PM Modi Birthday: ‘‘প্রকৃতি আমাদের কাছে আরাধ্য’’ বললেন প্রধানমন্ত্রী

PM Modi Birthday: দেশজুড়ে নানা ভাবে পালিত হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ৬৯তম জন্মদিন।

গুজরাত:

১৭ সেপ্টেম্বর দিনটা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (PM Modi) জীবনের এক বিশেষ দিন। আজই যে তাঁর জন্মদিন‌ (PM Modi Birthday)। মঙ্গলবার ৬৯ বছর হল তাঁর। এই উপলক্ষে বিমানে গুজরাতে গেলেন প্রধানমন্ত্রী (Narendra Modi)। মঙ্গলবার নর্মদা জেলায় গিয়ে সর্দার সরোবর বাঁধ পরিদর্শন করবেন। এই বাঁধের জলস্তর এর পূর্ণ ক্ষমতায় পৌঁছেছে (১৩৮.৬৮ মিটার)। ২০১৭ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর এই বাঁধের উদ্বোধন করেছিলেন মোদিই। সেই উপলক্ষে বাঁধটি সুন্দর করে সাজানো হয়েছে রংবেরঙের বাল্ব দিয়ে। দেশজুড়ে নানা ভাবে পালিত হচ্ছে মোদির ৬৯তম জন্মদিন। গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে এই সপ্তাহটি পালিত হচ্ছে ‘সেবা সপ্তাহ' হিসেবে। এতে অংশ নিয়েছেন দলের সভাপতি অমিত শাহ ও অন্য গুরুত্বপূর্ণ নেতারা। চালানো হবে সাফাই অভিযান। এছাড়া রক্তদানও করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীকে টুইটারের মাধ্যমে অনেকেই শুভেচ্ছা জান‌িয়েছেন।

এদিন গুজরাতে ভাষণ দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘চারটি রাজ্য নর্মদা প্রকল্পের সুফল পয়েছে।'' তিনি আরও বলেন, ‘‘আজকের দিনে মা নর্মদার দর্শনের সুযোগ পাওয়া যায়। পুজো-অর্চনার অবসর মেলে। আমার জন্য এ বড়ই সৌভাগ্য।''

হনুমানকে ১.২৫ কেজির সোনার মুকুট কেন উৎসর্গ করলেন মোদি-ভক্ত?

এদিন মোদি জানান, ‘‘একসময় আমার ফোটোগ্রাফির শখ ছিল। পরে কর্মব্যস্ততার কারণে সব হারিয়ে যায়। আজ মনে হচ্ছিল আমার হাতে একটা ক্যামেরা থাকলে বেশ হত। উপর থেকে যে দৃশ্য আমি দেখছি, তাতে দেখতে পাচ্ছি সামনে জনসাগর আর পিছনে জল সাগর।''

পরিবেশ রক্ষা ও উন্নয়ন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘আমাদের সংস্কৃতি অনুযায়ী পরিবেশ রক্ষার সময়ও উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব। প্রকৃতি আমাদের কাছে আরাধ্য, প্রকৃতি আমাদের গহনা। পরিবেশ সংরক্ষণের সঙ্গে কীভাবে উন্নয়ন করা যায় তার একটি জীবন্ত উদাহরণ কেবাডিয়ায় দেখা যাচ্ছে। ওখান‌ে প্রগতি, প্রকৃতি, পর্যবেক্ষণ ও পর্যটনের অদ্ভুত সঙ্গম দেখা যাচ্ছে।''

সাতসকালেই টুইটে প্রধানমন্ত্রী মোদিকে শুভেচ্ছা জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

তিনি বলেন, ‘‘আজ একদিকে সর্দার সরোবর বাঁধ রয়েছে, বিদ্যুৎ উৎপাদনের যন্ত্র রয়েছে। অন্যদিকে একতা নার্সারি, বাটারফ্লাই গার্ডেনের মতো ইকো-টুরিজমের ব্যবস্থাও রয়েছে। আর সেই সঙ্গে সর্দার পটেলজির মূর্তি আমাদের আশীর্বাদ করছে।''

বিশ্বকর্মা পুজো উপলক্ষেও বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘আমরা যে নতুন ভারত তৈরির লক্ষ্যে এগিয়ে চলেছি, তাতে ভগবান বিশ্বকর্মার মতো সৃজনশীলতা এবং বড় লক্ষ্য অর্জনের ইচ্ছাশক্তি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।''

সর্দার সরোবর বাঁধ নিয়ে তিনি বলেন, ‘‘আমরা প্রথমবারের মতো সরদার সরোবর বাঁধটি পূর্ণ দেখেছি। এমন একটি সময় ছিল যখন ১২২ মিটারের লক্ষ্যে পৌঁছনো বড় ব্যাপার ছিল। তবে ৫ বছরের মধ্যে ১৩৮ মিটার পর্যন্ত সর্দার সরোবর ভরাট করা আশ্চর্যজনক এবং অবিস্মরণীয়।''

তিনি আরও বলেন, ‘‘আমার মনে আছে ২০০০ সালে ভারতের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো রাজকোট, সুরেন্দ্রনগর ও জামনগরে পৌঁছনোর জন্য একটি বিশেষ জল ট্রেন চালাতে হয়েছিল। আজ, যখন সেই সেই পুরনো দিনগুলির কথা মনে করি, মনে হয় গুজরাট আজ কত দূর এগিয়ে গিয়েছে।''

More News