This Article is From Nov 30, 2019

মহারাষ্ট্রে অস্থায়ী স্পিকার নিয়োগ নিয়ে ক্ষুব্ধ বিজেপি সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারে

প্রথা অনুযায়ী, সবচেয়ে বর্ষীয়ান বিধায়ককেই সাধারণত অন্তর্বর্তী স্পিকার করা হয়। যদিও অতীতে তার ব্যতিক্রমও দেখা গিয়েছে।

এনসিপির দিলীপ ওয়ালসেকে অস্থায়ী স্পিকার হিসেবে নিয়োগ করা হয়।

হাইলাইটস

  • এনসিপির দিলীপ ওয়ালসেকে অস্থায়ী স্পিকার হিসেবে নিয়োগ করা হয়
  • নতুন সরকার সমস্ত নিয়ম লঙ্ঘন করছে বলে অভিযোগ বিজেপির
  • রবিবার স্থায়ী স্পিকার নিয়োগ করা হবে
মুম্বই:

মহারাষ্ট্র বিধানসভায় অস্থায়ী স্পিকার নির্বাচনের পরিপ্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারে বলে জানাল বিজেপি। শনিবার বিধানসভায় আস্থা ভোটে মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের সরকারকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে হবে। সেই আস্থা ভোটের আগে এনসিপির দিলীপ ওয়ালসেকে অস্থায়ী স্পিকার হিসেবে নিয়োগ করা হয়। প্রসঙ্গত, আগামী রবিবার স্থায়ী স্পিকার নিয়োগ করা হবে। অন্তবর্তী স্পিকারের দায়িত্ব সামলাচ্ছিলে‌ন কালিদাস কোলাম্বকার। এরপর তাঁকে সরিয়ে দু'দিনের অধিবেশনের জন্য দিলীপ ওয়ালসেকে অস্থায়ী স্পিকার হিসেবে নিয়োগ করা হল। বিজেপি নেতা চন্দ্রকান্ত পাতিল বলেন, ‘‘ওরা (মহা বিকাশ আঘাদি) অন্তর্বর্তী স্পিকার কালিদাস কোলাম্বকারকে সরিয়ে দিলীপ ওয়ালসে পাতিলকে নিয়োগ করেছে। এটা আইনত ভুল।''

তিনি আরও অভিযোগ জানান, ‘‘শপথগ্রহণও নিয়ম মেনে হয়নি। নতুন সরকার সমস্ত নিয়ম লঙ্ঘন করছে। আমরা রাজ্যপালের কাছে পিটিশন জমা দিচ্ছি। এবং সম্ভবত সুপ্রিম কোর্টকেও জানাব।''

প্রথা অনুযায়ী, সবচেয়ে বর্ষীয়ান বিধায়ককেই সাধারণত অন্তর্বর্তী স্পিকার করা হয়। যদিও অতীতে তার ব্যতিক্রমও দেখা গিয়েছে। বর্তমান সময়ে রাজ্য কংগ্রেসের সম্পাদক বালাসাহেব থোরাটই সবচেয়ে সিনিয়র বিধায়ক। আট বার তিনি বিধায়ক হয়েছেন।

রবিবার স্থায়ী স্পিকার নির্বাচনে বিজেপি তাদের প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করিয়েছে বিধায়ক কিষান এস কাঠোরেকে। কংগ্রেসের প্রার্থী বিধায়ক নানা পাটোলেম। তিনি শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোটের হয়ে মনোনয়ন পেয়েছেন।

শনিবার সকালে এনসিপি নেতা প্রফুল পটেল সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘স্পিকার পদের জন্য কংগ্রেসের প্রার্থী দাঁড়াচ্ছেন তিন দল এনসিপি, শিবসেনা ও কংগ্রেসের সম্মতিতে। এ নিয়ে কোনও সংশয় নেই। কংগ্রেস বেশ কয়েকটি নাম আমাদের কাছে আজ সকালে পাঠিয়েছিল। আমাদের কোনও আপত্তি ছিল না এতে।''

নব নির্বাচিত স্পিকার বিরোধী দলনেতার নাম ঘোষণা করবেন।

মঙ্গলবার বিজেপি মনোনীত স্পিকার বিধায়কদের শপথ গ্রহণের সময় উপস্থিত ছিলেন। কোনও সরকার গঠন না করে মুখ্যমন্ত্রী নিয়োগ না করে এমন শপথ গ্রহণ বিরল।