প্রধানমন্ত্রী নির্লজ্জ, দল ভাঙাচ্ছেন, দলীয় সভা থেকে দাবি মমতার

Lok Sabha Election 2019: ২৪ ঘন্টার মধ্যে হুগলির ভদ্রেশ্বর থেকেই জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

প্রধানমন্ত্রী নির্লজ্জ, দল ভাঙাচ্ছেন, দলীয় সভা থেকে দাবি মমতার

Lok Sabha Election 2019: ২৪ ঘন্টার মধ্যে হুগলির ভদ্রেশ্বর থেকেই জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

হাইলাইটস

  • মোদী বলেছিলেন তৃণমূলের ৪০ জন বিধায়ক তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন
  • ২৪ ঘন্টার মধ্যে হুগলির ভদ্রেশ্বর থেকেই জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী
  • তিনি বলেন নির্লজ্জের মতো দল ভাঙাচ্ছেন মোদী
কলকাতা:

হুগলির শ্রীরামপুর থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Modi) বলেছিলেন তৃণমূলের ৪০ জন বিধায়ক তাঁর  সঙ্গে  যোগাযোগ রাখছেন। ২৪ ঘন্টার মধ্যে হুগলির ভদ্রেশ্বর থেকেই জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Bannerjee) । তিনি বলেন নির্লজ্জের মতো দল ভাঙাচ্ছেন মোদী (PM Modi)। কিন্তু এসব করে সরকার ভাঙবে না।  এই সভা থেকে মমতা (Mamata Bannerjee) বলেন প্রধানমন্ত্রীর প্রার্থী পদ বাতিল হওয়া উচিত। রাজ্যে এসে চাঞ্চল্যকর দাবি করেন  প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন,  দিদি আপনার দলের ৪০ জন বিধায়ক আমার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে।  চতুর্থ দফার ভোটের দিন রাজ্যে এসে দুটি সভা করেন মোদী।  

রাজীবকে হেফাজতে পেতে সুপ্রিম কোর্টে প্রমাণ দিতে হবে সিবিআইকে

এর আগে পূর্ব মেদিনীপুরের একটি জনসভা থেকে সোমবার তিনি বলেন, “আরে পাঁচ বছরে একটা কাজের কথা তো বলুন, যেটা আপনি (প্রধানমন্ত্রী) করেছেন! করেছেন, তবে ভালো কাজ তো কিছুই করেননি! আপনি ‘আচ্ছে দিন' নিয়ে আসবেন বলে ১২ হাজার কৃষক আত্মহত্যা করল। মোদীর আচ্ছে দিন মানে কৃষকের মৃত্যুদিন। মোদীর আচ্ছে দিন মানে ৩ কোটি ছেলেমেয়ের চাকরি চলে যাওয়ার দিন। মোদীর আচ্ছে দিন মানে নোটবাতিল করে আপনাদের ব্যবসাকে ডুবিয়ে দেওয়ার দিন। নোটবাতিল করে জনগণকে ডুবিয়ে দেওয়ার দিন। এদিনই মুখ্যমন্ত্রী  বলেন  বিজেপি কোনও অবস্থায় উত্তরপ্রদেশে ১৭টির বেশি আসন পাবে না।  কংগ্রেস পাবে  সাতটির মতো আসন। আর সপা- বসপা জোটের ফল খুব ভাল  হবে। ২০১৪ সালে  এই উত্তরপ্রদেশে ৭৩টি আসন পেয়েছিল এনডিএ। সেটাই তাদের দিল্লির দিকে এগিয়ে দেয়।   নির্বাচনের প্রচারে বার বার  মমতা  বলেছেন, “সাড়ে চার বছর ধরে শুধু প্লেনে করে ঘুরে বেড়িয়েছে আর বিরোধীদের চমকেছে! বিরোধীদের পিছনে সিবিআই লাগিয়েছে”!

 এর আগে  শ্রীরামপুরের সভা   থেকে  প্রধানমন্ত্রী বলেন, দিদি জানেন কয়েকটি আসনে লড়ে প্রধানমন্ত্রী হওয়া যায় না আসলে দিল্লির বাহানা দিয়ে ভাইপোকে রাজ্যে প্রতিষ্ঠা করতে চাইছেন। এই বুয়া-ভাতিজার খেলা লোকে রাজ্যের বুঝে গিয়েছে। একটা  করে  দফা  হচ্ছে আর মহাজোটের ভয় বাড়ছে। ওরা এতদিন মোদীকে গালিগালাজ করত। এখন ইভিমএমকেও গালিগালাজ করছে। বাংলার মানুষ আমাদের ভাল বাসছে ততই দিদি রেগে যাচ্ছেন। এখন এমন অবস্থা যে ওঁর নিজের কর্মীরাই ওঁর কাছে  যেতে ভয় পাচ্ছেন।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)
More News