মে মাসেই ভারতে করোনার তাণ্ডব নৃত্য! তেমনই আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের

Coronavirus Lockdown: তবে দেশে লকডাউন জারি থাকায় আশঙ্কার তুলনায় সংক্রমিতের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে কম, বলছে সূত্র

মে মাসেই ভারতে করোনার তাণ্ডব নৃত্য! তেমনই আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের

Coronavirus: পঞ্জাবে সংক্রমিত মোট ১৮৮ জন, তার মধ্যে ২৭ জন সেরে উঠেছেন ও ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে (ফাইল চিত্র)

হাইলাইটস

  • আগামী মে মাসেই দেশে করোনা আক্রান্তের বাড়বাড়ন্ত দেখার আশঙ্কা
  • ঠিক সময়ে লকডাউন না করা হলে আরও বেশি দেশে সংক্রমণ ছড়াতো, মনে করছে সরকার
  • অন্য যে সমস্ত দেশও লকডাউনের পথে হেঁটেছে তারাই ভাল ফল পেয়েছে বলে দাবি
নয়া দিল্লি:

আগামী ৩ মে পর্যন্ত দেশ জুড়ে লকডাউন (Coronavirus Lockdown) চলবে। তবে তার মধ্যেই বিরাট আশঙ্কার কথা শুনিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের একটি সূত্র। একটি অভ্যন্তরীণ সরকারি মূল্যায়ন থেকে জানা গেছে যে মে মাসের প্রথম সপ্তাহেই দেশে করোনা সংক্রমিতের (Coronavirus) সংখ্যা তুলনামূলকভাবে সবচেয়ে বেশি হবে। তবে তারপরেই ধীরে ধীরে সেই সংক্রমণ কমবে বলেও আশা রাখছেন বিশেষজ্ঞরা। কেননা তাঁদের মতে, দেখা গেছে যে দেশগুলোই করোনা ভাইরাসকে (COVID-19) রুখতে প্রথম থেকেই পুরোপুরি লকডাউনের রাস্তায় হেঁটেছে তারাই ভাল ফল পেয়েছে। ভারতও ২৫ মার্চ থেকে টানা লকডাউনের মধ্যে দিয়েই যাচ্ছে। তাতে দেশের অর্থনীতি পুরোপুরি মুখ থুবড়ে পড়লেও বিশেষজ্ঞদের মতে করোনা সংক্রমিতের দ্রুতগতিতে বৃদ্ধিতে অনেকটাই রাশ টানা গেছে। 

দেশের মধ্যেও দেখা গেছে, যে রাজ্যগুলো করোনা সংক্রমণ ছড়াচ্ছে শুনেই আগেভাগে লকডাউনের পথে হেঁটেছে তারা অন্যদের তুলনায় অনেকটাই ভালো অবস্থানে রয়েছে। রাজস্থান, পঞ্জাব এবং বিহার এই ৩টি রাজ্যই প্রথম থেকে লকডাউনের পথে হেঁটে ছিল। তাই দেখা গেছে, উত্তর প্রদেশ, গুজরাট এবং মহারাষ্ট্রের মতো রাজ্যগুলির তুলনায় ওই রাজ্যগুলো অনেকটাই ভাল অবস্থানে রয়েছে।

করোনার সঙ্গে যুঝে অনেকেই সুস্থ হচ্ছেন, তবে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সংক্রমণও, গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজারেরও বেশি

"পরের এক সপ্তাহ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ভারত করোনা সংক্রমণের বৃদ্ধিকে থামাতে আরও বেশি করে করোনা টেস্ট করার দিকে জোর দিচ্ছে । তীব্র শ্বাসকষ্ট  বা করোনা সংক্রান্ত অন্য কোনও লক্ষণ দেখলেই এখন আর দেরি না করে তাঁদের সবারই পরীক্ষা করা হচ্ছে", NDTV-কে জানিয়েছেন এক প্রবীণ সরকারি আমলা।

তাঁর মতে, আগামী কয়েকদিন দেশে আরও বেশি করে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলবে। "সংখ্যাটা আরও বাড়বে যেহেতু আমরা আরও বেশি করে করোনা টেস্ট করব। পাশাপাশি করোনার লক্ষণ যাঁদের মধ্যেই দেখা যাচ্ছে তাঁদের ক্ষেত্রে কোনও ঝুঁকি না নিয়ে আগেই কোয়ারান্টাইন করা হচ্ছে", বলেন তিনি।

২ হাজার ছাড়াল মুম্বইয়ের সংক্রমিতের সংখ্যা! ধারাভির ২৬টি নতুন সংক্রমণে উদ্বেগ

এখনও পর্যন্ত পাওয়া শেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী ভারতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৪৩৭, তার মধ্যে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২৮ জনের, বৃহস্পতিবার এমনটাই জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। দেশে এখন মোট করোনা আক্রান্ত ১৩,৩৮৭ জন, আর গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজারেরও বেশি। এছাড়াও  গত কয়েকদিনে প্রায় ৩৬,০০০ মানুষকে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে কোয়ারান্টাইন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত প্রায় ৩.৬ লক্ষ মানুষ কোয়ারান্টাইন হয়ে রয়েছেন।