This Article is From Apr 24, 2020

৩ দিনের জন্য আন্তঃরাজ্য যাতায়াতে সায় অসমের! উপকৃত হবেন প্রায় এক লক্ষ নাগরিক

নিজেদের গাড়িতে রাজ্যের এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাবেন, এমন ৫১ হাজার পাস ইস্যু করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ১২ হাজার নাগরিক শনিবার যাতায়াত করবেন

৩ দিনের জন্য আন্তঃরাজ্য যাতায়াতে সায় অসমের! উপকৃত হবেন প্রায় এক লক্ষ নাগরিক

অসমে ৩৫ জন সংক্রমিত। মৃত ১। (ফাইল ছবি)

হাইলাইটস

  • ৩ দিনের জন্য আন্তঃরাজ্য যাতায়াতে সায় দিল অসম সরকার
  • এই সিদ্ধান্তে উপকৃত হবেন প্রায় এক লক্ষ মানুষ
  • মানবিকতার খাতিরে এই সিদ্ধান্ত, জানান অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী
গুয়াহাটি:

শর্তাধীন আন্তঃরাজ্য যাতায়াতে ছাড় দিতে চলেছে অসম সরকার (Assam government)। তিনদিনের জন্য এই শৈথিল্য লাগু থাকবে। শুক্রবার জানিয়েছেন অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা (Himant Biswa Sharma)।মানবিকতার খাতিরে এই সিদ্ধান্ত বলে জানান তিনি। জানা গিয়েছে, রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে থাকা নাগরিকদের নিরাপদ আশ্রয়ে ফেরার পরিসর দিতে এই সিদ্ধান্ত। আন্তঃরাজ্য এই যাতায়াতে নিশ্চিত করতে প্রায় এক লক্ষ পাস ইস্যু করেছে রাজ্য সরকার। এনডিটিভিকে হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেছেন, "কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের গাইডলাইন মেনে এই যাতায়াত নিশ্চিত করা হবে। প্রতি জেলা শাসকের কাছে বিশেষ পাস পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। ওঁরাই আবেদনপত্র খতিয়ে দেখে এই পাস ইস্যু করেছেন।" সূত্রের খবর, ২৫ এপ্রিল থেকে ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত এই শৈথিল্য লাগু থাকবে। 

রাজ্যের অডিট প্যানেল জানাল মৃত ৫৭ করোনা আক্রান্তের ৩৯ জনই কো-মর্বিডিটির শিকার

কোন কোন নাগরিক এই পাসের আবেদন করতে পারছেন? রাজ্যের এক সূত্রের খবর, যারা বাড়ি থেকে দূরে আটকে রয়েছেন, যারা কাজে ফিরতে বিভিন্ন জেলা দফতরে যেতে আগ্রহী আর যারা অসুস্থ, চিকিৎসাধীন হতে চান তাঁদের তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি যে সব পরিবার রোগী স্থানান্তর করতে আগ্রহী। সেই পরিবারগুলোকেও এই পাস ইস্যু করে হয়েছে। সূত্রের খবর, পরিযায়ী শ্রমিক যারা বাড়ি থেকে দূরে অসহায় ভাবে আটকে, তাঁদের বাড়ি ফিরে যেতেও পাস দেওয়া হয়েছে। নিজেদের গাড়িতে রাজ্যের এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাবেন, এমন ৫১ হাজার পাস ইস্যু করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ১২ হাজার নাগরিক শনিবার যাতায়াত করবেন। 

করোনাকে রুখতে পরীক্ষামূলক ড্রাগ 'রেমডেসিভির' মানবদেহে কাজ করতে ব্যর্থ

জানা গিয়েছে, অসমে মোট সংক্রমিত ৩৫ আর মৃত এক। এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন ১,৭৫২ জন। একদিনে আক্রান্তের নিরিখে এই সংখ্যা সর্বাধিক। মারা গিয়েছেন ৩৭ জন। দেশে করোনা আক্রান্তের মোট সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২৩,৪৫২ জন। মৃত ৭২৩। শুক্রবার স্বাস্থ্য মন্ত্রক একথা জানিয়েছে। এর আগে এদিন সরকার জানিয়ে দিয়েছিল ৪,৭৪৮ জন করোনাকে জয় করে সুস্থ হয়ে উঠতে পেরেছেন। অর্থাৎ সুস্থ হয়েছেন সক্রিয়দের মধ্যে ২০.৫৭ শতাংশ।

করোনা সংক্রমণ দ্বিগুণ হওয়ার সময় এখন ৭.৫ দিন থেকে ১০ দিনে পৌঁছেছে। একথা জানিয়ে সরকারের তরফে বলা হয়, লকডাউন ঘোষণার সিদ্ধান্তেই এই সাফল্য পাওয়া গেছে। পাশাপাশি আরও বলা হয়েছে দেশের ৮০টি জেলায় গত ১৪ দিনে নতুন করে কেউ করোনা আক্রান্ত হননি। কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে, সংক্রমণের শৃঙ্খল ভেঙে গিয়েছে।