This Article is From Sep 07, 2019

Chandrayaan 2 সম্পূর্ণ ব্যর্থ নয়! ক্ষতি অতি সামান্য! এখনো কি আশা আছে?

Chandrayaan 2 Status: ইসরো অনুসারে, চাঁদের সাথে ২.১ কিলোমিটার উচ্চতা পর্যন্ত যোগাযোগ ছিল কিন্তু তারপরে যোগাযোগটি হারিয়ে যায়। বর্তমান স্থিতি নিয়ে বিশ্লেষণ করা হচ্ছে

Chandrayaan 2 সম্পূর্ণ ব্যর্থ নয়! ক্ষতি অতি সামান্য! এখনো কি আশা আছে?

Chandrayaan 2 Status: ৯৭৮ কোটি টাকা খরচ করে গঠিত চন্দ্রযান -২ মিশন এখনও শেষ হয়ে যায়নি বলেই আশা করা হচ্ছে

বেঙ্গালুরু:

মিশন Chandrayaan 2 পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে কি? ভারত ইতিহাস তৈরি থেকে মাত্র ২.১ কিমি দূরেই রয়ে গেল? সবকিছুই স্বাভাবিকভাবে চলছিল। ইসরোর পুরো দল তাদের কম্পিউটারে বসে ছিল। প্রস্তুতি ছিল পালকের মতো অবতরণের জন্য। তারপরেই ছেয়ে গেল নীরবতা। ইসরো প্রধান কে সিভন প্রধানমন্ত্রী মোদীর সাথে দেখা করে জানিয়ে দিলেন, মিশন চন্দ্রায়ণ ব্যর্থ। প্রধানমন্ত্রী মোদী বিজ্ঞানীকে আশ্বাস দিয়েছিলেন যে জীবনে নানা উত্থান-পতন রয়েছে। প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে, পৃথিবীর সাথে বিক্রম ল্যান্ডারের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। ইসরো অনুসারে, চাঁদের সাথে ২.১ কিলোমিটার উচ্চতা পর্যন্ত যোগাযোগ ছিল কিন্তু তারপরে যোগাযোগটি হারিয়ে যায়।  বর্তমান স্থিতি নিয়ে বিশ্লেষণ করা হচ্ছে। আসলে, সম্পূর্ণ ঘটনাটি ISRO টেলিমেট্রি, ট্র্যাকিং এবং কমান্ড নেটওয়ার্ক কেন্দ্রের পর্দায় দেখা যাচ্ছিল, বিক্রম তার নির্ধারিত পথ থেকে কিছুটা বিচ্যুত হয় এবং তার পরে যোগাযোগটি হারিয়ে যায়। বিভিন্ন বিশেষজ্ঞ বলেছেন যে এই মিশনটি এখনই ব্যর্থতা বলা যায় না। ল্যান্ডারটি আবার সংযুক্ত করা যেতে পারে। তাঁরা জানিয়েছেন, ল্যান্ডার ব্যর্থ হলেও 'চন্দ্রযান -২' এর কক্ষপথটি বেশ স্বাভাবিক এবং সেটি ক্রমাগত চাঁদকে প্রদক্ষিণ করছেন। ৯৭৮ কোটি টাকা খরচ করে গঠিত চন্দ্রযান -২ মিশন এখনও শেষ হয়ে যায়নি বলেই আশা করা হচ্ছে।

 নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইসরোর এক আধিকারিক অনুরোধের সুরে জানিয়েছিলেন, "ল্যান্ডার বিক্রম এবং প্রজ্ঞা রোভার - মিশনের মাত্র পাঁচ শতাংশ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে, আর বাকি ৯৫ শতাংশ - চন্দ্রযান ২ এখনও কক্ষপথে সফলভাবে চাঁদ প্রদক্ষিণ করেছে। " এই মিশনের মেয়াদ এক বছর, এর মধ্যে চাঁদের অনেকগুলি ছবি ইসরোতে পাঠাতে পারে এই যান। এই কর্মকর্তা বলেছিলেন যে অরবিটার ল্যান্ডারের ছবিও তুলে প্রেরণ করতে পারে, যাতে এর স্থিতিটি জানা যাবে। লক্ষণীয় বিষয়, ভারতের চন্দ্রযান ২ গত ৪৩ দিন ধরে মহাকাশে রয়েছে। ৩.৮ টন ওজনের যানবাহনটি বর্তমানে চাঁদের কক্ষপথে প্রদক্ষিণ করছে। সোমবার বিকেলে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্টপে বিক্রম ল্যান্ডার চন্দ্রযান থেকে পৃথক হয়েছিল।

 এরপর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শনিবার সকালে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেওয়ার জন্য ইসরোতে পৌঁছেছিলেন। এখানে তিনি বিজ্ঞানীদের শুধু উত্সাহিত করেননি, তিনি বলেছিলেন যে আমি আপনার সাথে আছি এবং সেই সাথে পুরো দেশ আপনার সাথে রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী মোদী যখন বেঙ্গালুরুর স্পেস সেন্টার থেকে বেরিয়ে আসছিলেন, তখন তিনি ইসরো চেয়ারম্যানের সিভনকে জড়িয়ে ধরেন এবং এই সময়ে খুব আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন তাঁরা। প্রধানমন্ত্রী মোদী দীর্ঘক্ষণ ইসরোর চেয়ারম্যানকে জড়িয়ে ধরে তাঁকে উত্সাহিত করতে থাকেন। প্রসঙ্গত, সম্পর্কিত ঘটনাগুলি বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ সকাল আটটায় জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিয়েছেন।তিনি বলেছিলেন, "আপনারাই সেই লোক, যারা ভারত মাতাকে গর্বিত করার জন্যই বেঁচে থাকেন।আপনারাই তারা, যারা ভারত মাতাকে গর্বিত করার জন্য লড়াই করে চলেছেন।আপনারা ভারত মাতার প্রতি অনুরাগী, আপনারা নিজেদের সম্পূর্ণ জীবন তাঁর পায়ে সঁপে দিয়েছেন।আপনাদের স্বপ্ন ভারত মাতার গর্ব।'