This Article is From Jan 01, 2019

দীর্ঘ শারীরিক অসুস্থতার শেষে নতুন বছরের শুরুতেই চিরবিদায় নিলেন অভিনেতা কাদের খান

৮১ বছর বয়সী কাদের খান শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যায় ভুগছিলেন এবং ডাক্তাররা তাকে নিয়মিত ভেন্টিলেটর থেকে বাইপ্যাপ ভেন্টিলেটরে স্থানান্তরিত করেছিলেন

দীর্ঘ শারীরিক অসুস্থতার শেষে নতুন বছরের শুরুতেই চিরবিদায় নিলেন অভিনেতা কাদের খান
নিউ দিল্লি:

নতুন বছরের শুরুই হল আরেক মৃত্যু সংবাদ দিয়ে। প্রয়াত হলেন বলিউডের বিশিষ্ট বর্ষীয়াণ অভিনেতা তথা লেখক কাদের খান।শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে কানাডার একটি হাসপাতালে দীর্ঘদিন ভর্তি ছিলেন কাদের খান। কাদের পুত্র সরফরাজ বলেন, "আমার বাবা আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। দীর্ঘদিন অসুস্থতার কারণে কানাডিয়ান সময় অনুযায়ী ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬ টার সময় তিনি মারা যান। তিনি বিকেলেই কোমাতে চলে যান। তিনি গত ১৬-১৭ সপ্তাহ ধরে হাসপাতালে ছিলেন।” তিনি পিটিআইকে বলেন, "তাঁর শেষকৃত্য কানাডাতেই অনুষ্ঠিত হবে। এখানে আমাদের পুরো পরিবার রয়েছে এবং আমরা এখানেই থাকি তাই শেষ কাজও এখানেই হবে।"

সংবাদ সংস্থা পিটিআই আগেই জানিয়েছিল, ৮১ বছর বয়সী কাদের খান শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যায় ভুগছিলেন এবং ডাক্তাররা তাকে নিয়মিত ভেন্টিলেটর থেকে বাইপ্যাপ ভেন্টিলেটরে স্থানান্তরিত করেছিলেন। শেষ কয়েক দিনে কাদের খানের ছেলে সরফরাজ ও পুত্রবধূ সর্বক্ষণ পাশে ছিলেন তাঁর। মেডিক্যাল রিপোর্ট অনুযায়ী, তিনি প্রগ্রেসিভ সুপ্রানিউক্লিয়ার পালসিতে আক্রান্ত ছিলেন। এটি এমন একটি মারাত্মক রোগ যা ভারসাম্য হ্রাস, হাঁটাচলায় সমস্যা এবং ডিমেনশিয়ার সমস্যা সৃষ্টি করে। 

শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে ভেন্টিলেশনে ৮১ বছর বয়সী অভিনেতা কাদের খান

১৯৮০-৯০-এর দশকের অভিনেতা-চিত্রনাট্যকারের মৃত্যুর খবর নিয়ে বারেবারেই গুজব রটেছে। গত বছর, অসমর্থিত মিডিয়া প্রতিবেদনে বলা হয় যে, কাদের খান চিকিৎসার জন্য কানাডা চলে গিয়েছেন। পরে, তাঁর শেষ ছবি ‘হো গ্যয়া দিমাগ কা দাহি'র পরিচালক ফৌজিয়া আর্শি বলেন, "কাদের খান তিন থেকে চার মাস ধরে কানাডায় রয়েছেন। তিনি ঠিকই আছেন। কানাডায় রয়েছেন কারণ তাঁর বড় ছেলে সেখানে থাকেন, ছেলের সঙ্গেই আছেন তিনি। তাড়াহুড়ো করে তিনি কানাডা গিয়েছেন এমন কোনও বিষয় নেই। সবকিছু ঠিক আছে।” ২০১৫ সালে হাঁটুর অস্ত্রোপচারের পর কাদের খানকে হুইলচেয়ারেই দেখা গিয়েছে।

২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে গুজব রটে যে কাদের খান মারা গিয়েছেন। তবে খান পরিবারের নিকটবর্তী একটি সূত্র জানায় যে খবরগুলি অসত্য ছিল। পরে, ফৌজিয়া আর্শি সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, "এই সব টুইট এবং পোস্ট আসলে গুজব আছে। তিনি ভালোভাবেই বেঁচে আছেন। আমি এই গুজব থামাতে অনুরোধ জানাচ্ছি।"

রাজেশ খান্নার জন্মদিনে বাবার পুরনো ছবি পোস্ট করে নস্টালজিয়ায় ভাসলেন টুইঙ্কেল খান্না

২২ অক্টোবর আফগানিস্তানের কাবুলে জন্ম নেন কাদের খান। অসংখ্য সিনেমায় তাঁর অভিনয় এবং একজন লেখক হিসেবে তাঁর কাজ সুবিদিত। কাদের খান ১৯৭৩ সালে রাজেশ খান্নার ‘দাগ' সিনেমায় বলিউডে তাঁর অভিষেক ঘটান। সারা জীবনে ৩০০ টিরও বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন কাদের। তিনি ২৫০ টিরও বেশি চলচ্চিত্রের সংলাপ লিখেছেন। অভিনেতা হওয়ার আগে রণধীর কাপুর-জয় বচ্চনের ‘জওয়ানি দিওয়ানি'র সংলাপও লিখেছিলেন কাদের।

মনমোহন দেশাই ও প্রকাশ মেহেরার মতো পরিচালকের সঙ্গেও কাজ করেছেন তিনি। মনমোহন দেসাইয়ের সঙ্গে তাঁর ছবিগুলি হল ধর্মবীর, গঙ্গা যমুনা সরস্বতী, কুলি, দেশ প্রেম, সুহাগ, পারভরিশ এবং অমর আকবর অ্যান্থনি এবং প্রকাশ মেহরার সঙ্গে চলচ্চিত্রগুলির মধ্যে রয়েছে জ্বওয়ালামুখী, শরাবী, মুকাদ্দর কা সিকান্দার।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)