রাজস্থানে তুষারপাত! বরফে ঢাকল মরুশহরের রাস্তাঘাট, যানবাহন! চিন্তিত বাসিন্দারা

আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে রাজস্থানে ভারী বৃষ্টিপাত এবং শিলাবৃষ্টির কারণ ‘পশ্চিমি ঝঞ্ঝা’। রাজস্থানের গঙ্গানগর জেলায় বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ ১৫.৮ মিমি বৃষ্টিপাত হয়েছে, রাজ্যে রাতের তাপমাত্রা আট ডিগ্রিতে নেমেছিল।

রাজস্থানে তুষারপাত! বরফে ঢাকল মরুশহরের রাস্তাঘাট, যানবাহন! চিন্তিত বাসিন্দারা

Snow fall in Rajasthan's Nagaur: মরুভূমির এই রাজ্য যেন নিমেষে বদলে যায় বরফস্নাত শৈল শহরে।

নয়াদিল্লি:

রাজস্থানে তুষারপাত! মরুশহর রাজস্থানের নাগৌড়ের (Rajasthan's Nagaur) অস্বাভাবিক এমন ঘটনায় উদ্বিগ্ন অনেকেই। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ভারী শিলাবৃষ্টির ফলে বরফের একাধিক স্তরে ঢাকা পড়ে এই শহর। মরুভূমির এই রাজ্য যেন নিমেষে বদলে যায় বরফস্নাত শৈল শহরে। ছবিতে রাস্তা, ছাদ এবং পুরোপুরি বরফের চাদরে ঢাকা যানবাহন দেখে একনজরে কাশ্মীর বলে ভুল হওয়াও অস্বাভাবিক নয়। এর আগে এমন অদ্ভুত ঘটনা দেখেননি স্থানীয়রা। ফলত এই জাতীয় পরিবর্তিত আবহাওয়ার মুখোমুখি হয়ে বিস্মিত, চিন্তিত তারা।

 অসমে বিজেপির জোটসঙ্গীর মতবদল! সংসদে সমর্থনের পর এখন নাগরিক আইনের বিরোধিতা

নাগৌড়ের ছাপরি, মৌলাসার, কীচক গ্রামে সবচেয়ে ভারী শিলাবৃষ্টি হয়েছে যার ফলে ফসলেরও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। রাস্তাঘাট বরফে ঢেকে যাওয়ার কারণে স্থানীয় যান চলাচলও ক্ষতিগ্রস্থ হয়। অনেকেই এই অকাল শিলাবৃষ্টিতে বিস্মিত, তবে বেশিরভাগ টুইটারেত্তিই এই গরম মরু অঞ্চলে অস্বাভাবিক আবহাওয়া নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। একজন টুইটারেত্তির শেয়ার করা একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে রাস্তা, গাছ এবং মাটি বরফে ঢাকা।

অন্য ব্যবহারকারী বিনোদ কে মীনাও শস্যের ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে লিখেছেন, “প্রকৃতির প্রতিকূলতা! রাজস্থানের নাগৌড় জেলায় প্রায় ২১ মিনিটের ভারী শিলাবৃষ্টি। কৃষক, গবাদি পশু এবং ফসলের ক্ষতি হয়েছে। দিল্লিতেও বৃষ্টি হচ্ছে! জলবায়ু পরিবর্তনের সমস্যাটা ভীষণ বাস্তব। আশা করি আমরা যথাযথভাবে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করব।" 

"অরাজকতা চলতে থাকলে রাষ্ট্রপতির শাসন চাইব পশ্চিমবঙ্গে": বিজেপি

আরেক টুইটারেত্তি সৈয়দ আহমদ আফজাল বলেন, তুষারপাতে সবকিছুই ‘দুধ-সাদা' হয়ে গিয়েছে। “তাহলে, কাশ্মীর নয়, রাজস্থানের নাগৌড়। একদিন আগে নাগৌড়ের অভূতপূর্ব শিলাবৃষ্টিতে সব কিছুই এখন দুধ-সাদা,” টুইট করেছেন আফজাল।

আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে রাজস্থানে ভারী বৃষ্টিপাত এবং শিলাবৃষ্টির কারণ ‘পশ্চিমি ঝঞ্ঝা'। রাজস্থানের গঙ্গানগর জেলায় বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ ১৫.৮ মিমি বৃষ্টিপাত হয়েছে, রাজ্যে রাতের তাপমাত্রা আট ডিগ্রিতে নেমেছিল। সিকার জেলায় রাজ্যের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল আট ডিগ্রি। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, সপ্তাহান্তে রাজ্যে ঘন কুয়াশা পড়ার সম্ভাবনাও রয়েছে।

More News