লকডাউনের জেরে শিকেয় পড়াশুনো! ভার্চুয়াল ক্লাস করানোর ঘোষণা রাজ্য সরকারের

করোনা সংক্রমণ এড়াতে দেশে লকডাউন, বন্ধ পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোও, এবার নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্যে ভার্চুয়াল ক্লাসের আয়োজন

লকডাউনের জেরে শিকেয় পড়াশুনো! ভার্চুয়াল ক্লাস করানোর ঘোষণা রাজ্য সরকারের

West Bengal: লকডাউনের বাকি দিনগুলোতে রাজ্যের সরকারি বিদ্যালয়গুলোর নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্যে ভার্চুয়াল ক্লাসের ব্যবস্থা

হাইলাইটস

  • লকডাউনের মধ্যেই রাজ্যের পড়ুয়াদের জন্যে বিশেষ ভার্চুয়াল ক্লাসের ব্যবস্থা
  • ৭ থেকে ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত কলকাতা দূরদর্শন কেন্দ্র থেকে ওই ক্লাস করানো হবে
  • প্রতিদিন বিকেল চারটে থেকে পাঁচটা পর্যন্ত বিভিন্ন বিষয়ে ক্লাস করানো হবে
কলকাতা:

করোনা (Coronavirus) মহামারীর কারণে প্রায় স্তব্ধ গোটা দেশ। রাজ্য (West Bengal) সহ গোটা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হওয়ার কারণে পড়াশুনোও শিকেয় উঠেছে। ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত আপাতত লকডাউন (Coronavirus Lockdown) চলবে, তাই ওই দিন পর্যন্ত তো আর এভাবে হাত গুটিয়ে থাকা যায় না। রাজ্যের সরকারি স্কুলের পড়ুয়াদের কথা বিবেচনা করে এবার তাই ভার্চুয়াল ক্লাস (Virtual Classes) করানোর ঘোষণা করল রাজ্য সরকার। কলকাতা দূরদর্শন কেন্দ্র থেকে রাজ্যের পড়ুয়াদের জন্যে বিশেষ ক্লাস নেবেন সরকারি বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন আগামী ৭ থেকে ১৩ এপ্রিল প্রতিদিন বিকেল চারটে থেকে পাঁচটা পর্যন্ত বিভিন্ন বিষয়ে ক্লাস করানো হবে কলকাতা দূরদর্শনে। আর বাড়ি বসে ওই ক্লাসের অংশীদার হবেন ছাত্র-ছাত্রীরা। আপাতত নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্যেই ওই ভার্চুয়াল ক্লাসের আয়োজন করা হচ্ছে। পাশাপাশি জানা গেছে, এখনই এভাবে ক্লাস করানো না হলেও অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়াদের হোম টাস্কও দেওয়া হবে বাংলার শিক্ষা পোর্টালের মাধ্যমে। 

আমেরিকায় আরও ঘণীভূত করোনা সঙ্কট, গত ২৪ ঘণ্টায় ১,৪৮০ জনের মৃত্যু

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ‘বাংলার শিক্ষা'পোর্টালে ই-মেল করে বা হোয়াটস অ্যাপে এবং ফোনের মাধ্যমে ওই ভার্চুয়াল ক্লাসে পঠনপাঠন চলাকালীন প্রশ্ন করতে পারবেন রাজ্যের পড়ুয়ারাও। সেই ই-মেল আইডি বা হোয়াটস অ্যাপ নম্বর এবং সহায়তাকারী হেল্পলাইন নম্বরও শিক্ষা সংক্রান্ত ওই পোর্টালে দিয়ে দেওয়া হবে।

করোনা সংক্রমণের জেরে গোটা দেশে লকডাউন চলছে। তার আগেই অবশ্য সংক্রমণের আশঙ্কায় আগাম সতর্কতা হিসাবে বন্ধ করে দেওয়া হয় রাজ্যের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয় যে আগামী শিক্ষাবর্ষে  প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত সমস্ত পড়ুয়াকে পাশ করিয়ে পরের শ্রেণিতে উঠিয়ে দেওয়া হবে। কিন্তু এভাবে চলতে থাকলে তো মুখ থুবড়ে পড়বে রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থা, ক্ষতির সম্মুখিন হবে রাজ্যের নতুন প্রজন্ম। এই সব বিবেচনা করেই তাই এবার কলকাতা দূরদর্শন কেন্দ্রের সহায়তায় ভার্চুয়াল ক্লাস করানোর এই অভিনব আয়োজন করল রাজ্যের শিক্ষা দফতর।

Newsbeep

ভারতীয় বংশোদ্ভূত এই চিকিৎসকের কাছে মাথা নত করতে বাধ্য হল ব্রিটিশ সরকারও!

নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের পাশাপাশি রাজ্যের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে পাঠরত অন্যান্য শ্রেণির পড়ুয়াদের কথাও ভেবেছে সরকার। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান 'বাংলার শিক্ষা' পোর্টালে বিষয়ভিত্তিক হোমটাস্ক দেওয়া হবে। বাড়িতে বসে সেই হোমটাস্ক করতে হবে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়াদের। স্কুল যখন খুলবে, তখন সেগুলো শিক্ষকদের দেখাতে হবে। তিনি বলেন, হোমটাস্কের মডেল প্রশ্নগুলি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা রাজ্য স্কুল শিক্ষা বিভাগের ওই পোর্টাল থেকেই ডাউনলোড করতে পারেন এবং হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে পাঠাতে পারবেন।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)