নিজামুদ্দিনে যাওয়া প্রাক্তন কংগ্রেস নেতা সপরিবারে আক্রান্ত করোনা ভাইরাসে

ওই নেতা বারবার নিজামুদ্দিনে যাওয়ার ব্যাপারে অস্বীকার করলেও তাঁর কল রেকর্ড ও তদন্ত থেকে ক্রমে উঠে আসে আসল সত্য।

নিজামুদ্দিনে যাওয়া প্রাক্তন কংগ্রেস নেতা সপরিবারে আক্রান্ত করোনা ভাইরাসে

Coronavirus: নিজামুদ্দিনে যোগ দেওয়া বহু ব্যক্তির শরীরে ধরা পড়েছে করোনা সংক্রমণ।

হাইলাইটস

  • কংগ্রেসের প্রাক্তন নেতা ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের শরীরে মিলল করোনা সংক্রমণ
  • ওই নেতা নিজামুদ্দিনের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন
  • প্রথমে তিনি সে ব্যাপারটি অস্বীকার করলেও পরে আসল সত্য জানতে পারে পুলিশ
নয়াদিল্লি:

কংগ্রেসের প্রাক্তন (Ex-Congress) নেতা, যিনি একদা কাউন্সিলরও ছিলেন তাঁর বিরুদ্ধে মার্কেজ নিজামুদ্দিনে (Nizamuddin) যাওয়ার কথা পুলিশকে গোপন করার অভিযোগ উঠল। ওই নেতার স্ত্রী বর্তমানে এলাকার কাউন্সিলর। স্বামী-স্ত্রী ছাঁড়াও তাঁদের কন্যার শরীরে মিলেছে করোনা (Coronavirus) সংক্রমণ। পুলিশ জানাচ্ছে, ওই প্রাক্তন নেতার অবহেলার কারণেই তাঁর গ্রাম দক্ষিণ-পশ্চিম দিল্লির দীনপুরকে ‘সিল' করে দেওয়া হয়েছে। গ্রামের কারও বাইরে যাওয়ার অনুমতি নেই। এক সিনিয়র পুলিশ আধিকারিক NDTV-কে জানাচ্ছেন, ‘‘ওই তিনজনকেই আম্বেদকর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।'' ওই আধিকারিক জানাচ্ছেন, যখন সকলের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল নিজামুদ্দিনের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যাওয়ার ব্যাপারে, তখন ওই প্রাক্তন কংগ্রেস ন‌েতা তথ্য গোপন করেন। পরে তাঁর শরীরে লক্ষণ ফুটে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার।

ফের জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী মোদি, দিতে পারেন লকডাউনের মেয়াদবৃদ্ধির বার্তাও

ওই পুলিশ আধিকারিক বলেন, ‘‘আমরা যখন তদন্ত করছিলাম, ওঁর শরীরে করোনার লক্ষণ ছিল না। কিন্তু পরে আমরা তদন্ত এগিয়ে নিয়ে চললে তাঁর সঙ্গে ওই ধর্মীয় অনুষ্ঠানের যোগ প্রমাণিত হয়।''

ওই নেতা বারবার নিজামুদ্দিনে যাওয়ার ব্যাপারে অস্বীকার করলেও তাঁর কল রেকর্ড ও তদন্ত থেকে ক্রমে উঠে আসে আসল সত্য।

বিহারে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে এক তৃতীয়াংশ রোগী একটিই পরিবারের!

দীনপুরের ২৫০টি বাড়ির সদস্যদের বলে দেওয়া হয়েছে তাঁরা যেন কেউ বাড়ি থেকে না বেরোন।

১০,০০০ মোবাইল ফোন রেকর্ড খতিয়ে দেখে নিজামুদ্দিনের অনুষ্ঠানের সঙ্গে কাদের যোগ রয়েছে তা দেখা হচ্ছে। পুলিশ জানাচ্ছে, কিছু ক্ষেত্রে যেখানে মানুষ মিথ্যা বলছে কিংবা সত্য গোপন করছে সেখানে আক্রমণাত্মক পদ্ধতি অবলম্বন করতে হচ্ছে।

দেশের রাজধানী দিল্লিতে ক্রমেই বাড়ছে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ। হটস্পটের সংখ্যা বাড়ছে দ্রুত। বুধবার পর্যন্ত যেখানে দিল্লিতে হটস্পট ছিল ২০টি, সেখানে এখন তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৫-এ। তালিকায় নয়া সংযোজন নিজামুদ্দিনের দু'টি অঞ্চল— সদর বাজার ও বাঙালি মার্কেট। ‘সিল' করে দেওয়া হয়েছে দিল্লির বহু অঞ্চল।
গত ২৪ ঘণ্টায় দিল্লিতে নতুন করে ৫১টি করোনা সংক্রমণের ঘটনা সামনে এসেছে। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭২০। মৃত ১২। সুস্থ হয়ে গিয়েছেন ২৫ জন। দিল্লির ৭২০ আক্রান্তদের মধ্যে ৪৩০ জনেরই যোগ রয়েছে নিজামুদ্দিনের ধর্মীয় অনুষ্ঠানের।