সুপ্রিম তিরস্কার! মধ্যরাতের আগেই বকেয়া মেটাতে Telco-গুলিকে নির্দেশ টেলিকম মন্ত্রকের

সুপ্রিম কোর্টের বকুনির পর বকেয়া আদায়ে সক্রিয় হল কেন্দ্রীয় টেলিকম মন্ত্রক। টেলিকম সংস্থা বা টেলকোগুলিকে (Telcos) শুক্রবার মধ্যরাতের আগে সব বকেয়া পরিশোধের নির্দেশ পাঠানো হয়েছে। জানা গেছে, এদিন রাত ১১.৫৯ মিনিটের মধ্যে টেলকোগুলিকে বকেয়া আনুমানিক ৯২ হাজার কোটি টাকা সরকারকে পরিশোধ করতে হবে।

সুপ্রিম তিরস্কার! মধ্যরাতের আগেই বকেয়া মেটাতে Telco-গুলিকে নির্দেশ টেলিকম মন্ত্রকের

ভারতী এয়ারটেল ও ভোডাফোন আইডিয়ার মতো সংস্থাগুলোকে নোটিশ পাঠায় টেলিকম মন্ত্রক।

হাইলাইটস

  • সুপ্রিম কোর্টের তিরস্কারের পর টেলকোগুলিকে নোটিশ পাঠাল সুপ্রিম কোর্ট
  • বকেয়া ৯২ হাজার কোটি টাকা মেটাতে পাঠানো হয়েছে ওই নোটিশ
  • তালিকায় আছে ভোডাফন-আইডিয়া, ভারতী এয়ারটেল, আরসি কমের মতো সংস্থা
New Delhi:

সুপ্রিম কোর্টের বকুনির পর বকেয়া আদায়ে সক্রিয় হল কেন্দ্রীয় টেলিকম মন্ত্রক। টেলিকম সংস্থা বা টেলকোগুলিকে (Telcos) শুক্রবার মধ্যরাতের আগে সব বকেয়া পরিশোধের নির্দেশ পাঠানো হয়েছে। জানা গেছে, এদিন রাত ১১.৫৯ মিনিটের মধ্যে টেলকোগুলিকে বকেয়া আনুমানিক ৯২ হাজার কোটি টাকা সরকারকে পরিশোধ করতে হবে। সংবাদসংস্থা পিটিআই সূত্রে এমনটাই খবর। সংবাদসংস্থা সূত্রে আরও খবর ভারতী এয়ারটেল (Bharati Airtel) ও ভোডাফোন আইডিয়ার (Vodafone-Idea) মতো সংস্থাগুলোকে এই মর্মে নোটিশ পাঠিয়েছে মন্ত্রক। শীর্ষ আদালতের (Supreme Court) নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও এযাবৎকাল কেন বকেয়া পরিশোধ করেনি টেলকোগুলো, এই প্রশ্নের জবাবদিহি চেয়ে এদিন সরকার ও টেলিকম সংস্থাগুলোকে একপ্রস্থ বকুনি দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। খানিকটা বিরক্তির সুরে আদালত প্রশ্নও তুলেছিল; "আমরা জানি না এ ধরনের কাজ কে বা কারা করছে? দেশে কি আইন-আদালত সব উধাও হয়ে গিয়েছে?" আগামী শুনানি ১৭ মার্চ, সরকারি ও বেসরকারি সব টেলিকম সংস্থাগুলোর শীর্ষ কর্তাদের তলব করে সুপ্রিম কোর্ট। 

টেলি বকেয়া মেটানোর বিষয়ে রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন খারিজ সুপ্রিম কোর্টে: ১০ তথ্য

 এরকম সুপ্রিম বকুনির পর তড়িঘড়ি সক্রিয় হয় টেলিকম মন্ত্রক।তারপরেই অভ্যন্তরীণ বৈঠকের পর সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে শুক্রবার মধ্যরাতের আগে অর্থাৎ ১১.৫৯-র মধ্যে বকেয়া ৯২ হাজার কোটি টাকা মেটাতেই হবে টেলকোগুলিকে। এর আগে জানুয়ারি মাসে বকেয়া পরিশোধের সর্বোচ্চ সীমা বাড়ানোর অনুরাধ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল টেলকোগুলো। ২৩ জানুয়ারি ছিল সরকারি তরফে এই বকেয়া পরিশোধের সর্বোচ্চ সীমা।

ওমর আবদুল্লার মুক্তির বিষয়ে তাঁর বোনের আবেদনে প্রশাসনকে আদালতের নোটিস

জানা গিয়েছে, স্পেকট্রাম চার্জ  ও লাইসেন্স ফি বাবদ একটা শতাংশ ডিপার্টমেন্ট অফ টেলিকমিউনিকেশনকে মেটায় টেলকো। এদিন সকালে শুনানিতে হাজার হাজার কোটি টাকার বকেয়া অর্থ পরিশোধ না করায় টেলি সংস্থাগুলিকে তীব্র ভর্ৎসনা করে সুপ্রিম কোর্ট তিরস্কারের সুরে বলেছিল, "আপনারা যদি কঠোর ব্যবস্থা না নিতে চান তাহলে আমরাও কঠোর আদেশ দিতে চাই না। তেমন হলে তো সরকারের তরফ থেকে বকেয়া আদায়ের বিষয়ে এই আবেদনটি দায়ের করাই উচিত ছিল না। দেশে কোনও আইন নেই? আমরা অত্যন্ত ব্যথিত। আমার মনে হয় আদালতের এ বিষয়ে কাজ করাই উচিত নয়।" ভোডাফোন আইডিয়া, ভারতী এয়ারটেল এবং টাটা টেলিসার্ভিসেসের দায়ের করা আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার এ কথা বলে বিচারপতি অরুণ মিশ্র, এস আবদুল নাজির এবং এম আর শাহের বেঞ্চ। 

(PTI থেকে সংগৃহীত) 

More News