2019 Election Results:মুখে মুখে ''জয় শ্রী রাম'',পশ্চিমবঙ্গেও গেরুয়া ঝড়ের প্রতিফলন

ঘাসফুলের রাজত্বে ক্রমশই বাড়ছে পদ্মের রমরমা, গোটা দেশেও বিরোধীদের অনেক পিছনে ফেলে নিজেদের ভিত আরও মজবুত করেছে বিজেপি,

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
2019 Election Results:মুখে মুখে ''জয় শ্রী রাম'',পশ্চিমবঙ্গেও গেরুয়া ঝড়ের প্রতিফলন
কলকাতা: 

লোকসভা নির্বাচনের ভোটগণনা(2019 Election Results)শুরু হতেই আভাষ মিলেছিল যে দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠের পছন্দ ফের একবার মোদী সরকারের দিকেই যেতে চলেছে। সময় যত এগিয়েছে তত স্পষ্ট হয়েছে পদ্মের ছবিটা। দেশ জুড়ে ক্রমশই গাঢ় হয়েছে গেরুয়া রং। আর গোটা দেশের ছবির সঙ্গে সাযুজ্য রেখেই ধরা পড়েছে পশ্চিমবঙ্গের ভোটচিত্রও। বেলা গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বোঝা গেছে মমতা-রাজ্যেও আশাতীত ভাল ফল বিজেপির। আর সেই ছবি যত পরিষ্কার হয়েছে, ততই ভিড় বেড়েছে মধ্য কলকাতায় অবস্থিত পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির(BJP)সদর দফতরে। দলের প্রার্থীদের একের পর এক ভাল ফলে বিজেপি দফতরের সামনে জনতার মুখে শোনা গেছে ''জয় শ্রী রাম'' (Joy sree Ram)জয়ধ্বনি। দিনভর ভোটগণনা যত এগিয়েছে তত যেন উত্সাহ বেড়েছে রাজ্যের বিজেপি কর্মীদের মধ্যে, রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসে তাঁরা ভিড় জমিয়েছেন ৬ নম্বর, মূরলীধর সেন লেনের দলীয় সদর দফতরে।  
ঘাসফুলের রাজত্বে ক্রমশই বাড়ছে পদ্মের রমরমা, গোটা দেশেও বিরোধীদের অনেক পিছনে ফেলে নিজেদের ভিত আরও মজবুত করেছে বিজেপি, এই বিষয়টা পরিষ্কার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই এ রাজ্য়েও চোখে পড়েছে দলীয় কর্মীদের বিজয়োল্লাস। নিজেদের মধ্য়ে গেরুয়া আবির খেলায় (the dry colour used in Holi celebration)মেতে ওঠেন তাঁরা, মিষ্টি বিতরণ করেন পথ চলতি মানুষের মধ্য়েও। এমনকি দুপুরের পরে বাস ও অটো সহ বিভিন্ন যানবাহণে উঠেও তাঁরা জয়ের আনন্দে মাতেন।
বিজেপির যুব কর্মী সনু শাহ মোদী মুখোশে নিজেকে সাজিয়ে সকলকে অভিনন্দন জানাতে থাকেন এই গেরুয়া জয়ের, পাশাপাশি কিছু কর্মী আবার  ''ভারত মাতার জয়''(Bharat Mata Ki Jai) বলেও ধ্বনি তুলে উল্লাস প্রকাশ করেন।
উল্লাস চোখে পড়ে কিছু বাইক আরোহীর মধ্য়েও। ''ঠিক এটাই আমরা চেয়েছিলাম'' বলে রাস্তা দিয়ে চলতে চলতে উল্লাসে ফেটে পড়ে বাইক বাহিনী। যদিও বিজেপির কিছু প্রবীণ সদস্য়কে দেখা যায়, এই বিজয়োল্লাসের ফলে যাতে পথচলতি মানুষ বা যানবাহন চলাচলে অসুবিধা না হয়ে সে বিষয়ে উত্সাহিত বিজেপি যুব কর্মীদের সতর্ক করতে। পাশাপাশি অ্যাম্বুল্যান্স যাতে ট্রাফিক জ্যামে আটকে না পড়ে সে  ব্যাপারেও যুব কর্মীদের সজাগ থাকতে পরামর্শ দেন বিজেপির অভিজ্ঞ কর্মীরা।
"২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনে (Loksabha Election Result 2019)সিপিআইএমের ভোট শেয়ার ছিল ৩০ শতাংশের কাছাকাছি, কিন্তু এবারের নির্বাচনে বিজেপির ভোট ৪০ শতাংশের কাছাকাছি, যা সিপিআইএমেরও ভোট ব্যাঙ্কে থাবা বসিয়েছে। যা থেকে বোঝা যায়, গোটা বাংলা উন্নয়নের পক্ষে ভোট দিয়েছে এবং অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে ফের একবার প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নরেন্দ্র মোদীকে (Narendra modi) দেখার জন্যে", মন্তব্য ভারতীয় জনতা পার্টির যুব মোর্চা নেতা প্রশান্ত গুপ্তার। অন্য়দের মতো দলীয় পতাকা উড়িয়ে বাংলার গেরুয়াকরণের সাফল্য়ে (saffronisation of Bengal) যোগ দিতে দেখা যায় তাঁকেও।জাত-পাত-বর্ণ বিভেদের উর্ধ্বে উঠে এক লক্ষেরও বেশি বিজেপি কর্মী বিজয়োল্লাসে যোগ দেবেন চূড়ান্ত ফল ঘোষণার পর, জানান প্রশান্ত গুপ্তা। 
তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায় ও তাঁর ভাইপো অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্য়াযকে কটাক্ষ করে বিজেপি কর্মীদের মধ্য়ে কয়েকজন বলে ওঠেন, "এবার দিদিও বলবেন জয় শ্রী রাম, ভাইপোও বলবেন জয় শ্রী রাম"(Joy sree Ram)। ফের চায়ের কাপ হাতে আনন্দে মেতে ওঠেন তাঁরা।
বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে আনন্দে মেতে উঠতে দেখা যায় পথচলতি মানুষদেরও। বছর পঁচিশের এক তরুণ বলে ওঠেন, "গোটা দেশে ৩০০রও বেশি আসন ও এ রাজ্য়ে ১৫-১৬টা আসন হাসিল করতে পারলে এই জয়ের উদযাপন করাই উচিত।" 
বিজেপির আশাতীত ফলে উল্লসিত বিজেপি নেত্রী তথা রাজ্য়সভার সাংসদ রূপা গঙ্গোপাধ্য়ায়ও। তৃণমূল নেত্রীকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, "অন্তত বিজেপি শূন্য় পাবে বলে দিদি যে ভবিষ্য়ত্বাণী করেছিলেন তা ফলল না।একজন মুখ্য়মন্ত্রীর মতো ব্য়বহার করা উচিত মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের", বলেন রূপা। "মানুষের ভালবাসার জোরেই এ রাজ্য়ের মুখ্য়মন্ত্রী হয়েছিলেন মমতা, এই ফলের পর (2019 Election Results)তাঁর বসে ভাবা উচিত কেন তিনি মানুষের ভালবাসা হারালেন", পরামর্শ বিজেপি নেত্রী রূপা গঙ্গোপাধ্য়ায়ের।

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................